বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

শিরোনাম: কর্মোপযোগী শিক্ষার মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত উন্নতি সম্ভব    নববর্ষের আনন্দ যেন বিষাদের কারণ না হয়: রাষ্ট্রপতি    নির্বাচনে ২১ সদস্যের মনিটরিং সেল গঠন ইসির    দেশজুড়ে যে তিনদিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা!    মির্জা ফখরুলের জামিন শুনানি ৯ জানুয়ারি    প্রাথমিকের ছুটি বাড়ল ১৬ দিন (তালিকা)    নির্বাচনের বিরুদ্ধে বিএনপির প্রচারণা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
মুন্সিগঞ্জ ২ আসনে নৌকার মাঝি হতে চান লিংকন মোল্লা
বিশেষ প্রতিনিধি
প্রকাশ: রোববার, ২৮ মে, ২০২৩, ৭:৫২ পিএম আপডেট: ২৯.০৫.২০২৩ ১:৪৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

দেশের বাইরে থাকলে সব সময় তার মন পরে থাকে বাংলাদেশেই। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শিক সন্তান হিসাবে দলের জন্য প্রবাসে  ও বাংলাদেশে কাজ করে যাচ্ছেন নিরলসভাবে। আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে মুন্সিগঞ্জ-২ (লৌহজং-টঙ্গীবাড়ি) আসন থেকে নৌকার মাঝি হতে চান সর্ব ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের সমন্বয় কমিটির সদস্য সচিব ও ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এম এ লিংকন মোল্লা। 

ইতিমধ্যেই তিনি নিজ সংসদীয় আসনের তৃণমূল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের কাছে আস্থা ও ভরসার নামে পরিণত হয়েছেন। নিজ দলের নেতাকর্মীদের সুখে-দুঃখে পাশে দাঁড়িয়ে নিজের অবস্থানও পোক্ত করেছেন। 

এম এ লিংকন মোল্লা ধীরস্থির, কর্মঠ, স্বাধীনচেতা, অসাম্প্রদায়িক, মুক্তমনা মানুষ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা মনেপ্রাণে ধারন করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্যকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। 

ব্যাক্তিগত জীবনে বিবাহিত ও তিন সন্তানের জনক। সকলে স্থায়ীভাবে ডেনমার্ক বসবাস করলেও নিয়মিত দেশের মানুষের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করেন লিংকন মোল্লা। আওয়ামী পরিবারে জন্ম নেয়া এম এ লিংকন মোল্লার চাচা মরহুম কালু মোল্লা ছিলেন লৌহজং থানা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা  সভাপতি। পারিবারিক ধারাবাহিকতায়  অদ্যাবধি বাবা ,চাচা , ভাই তথা পরিবারের সকলে উপজেলা আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারনী পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করছেন। লৌহজং  উপজেলা সদরে এই মোল্লা পরিবারের প্রভাব  উপজেলা আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী ও  গতিশীল করেছে। জেনারেল জিয়ার স্বৈরশাসনামল থেকে, স্থানীয় বিএনপি এই মোল্লা পাড়াকে “বাকশালী পাড়া“ হিসাবে সম্বোধন করে আসছে। এলাকার সর্বজনবিদিত-দলের দুঃসময়ে শত অত্যাচার-নির্যাতন সহ্য করেও মোল্লা পরিবার আওয়ামী লীগের পতাকা শক্ত হাতে বহন করে আসছে।
 
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যার পর অসময়ের বাংলাদেশে বেড়ে উঠা উঠেন এম এ লিংকন মোল্লা স্বাধীনতা বিরোধীদের ক্ষমতার অংশীদার করে  খুনী, স্বৈর-শাসক জিয়া, একচেটিয়া গণমাধ্যম ব্যাবহার  করে বাংলাদেশকে উল্টো দিকে দিকে নিয়ে গেছেন, তখন একমাত্র পারিবারিকভাবে যারা আওয়ামীলীগ করেছেন তাদের ছাড়া নতুন  করে কাউকে আওয়ামী লীগের আদর্শে  উদ্বুদ্ধ করা খুব কঠিন ছিলো। তার চাচাতো ভাই  ডাঃ আমীর হোসেন মোল্লা ১৯৬৯ থেকে থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। মেঝো ভাই সেই ৭৪ সাল থেকে ৮৬ সাল পর্যন্ত থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৮৬ সাল থেকে লিংকন মোল্লার ছোট চাচা আবুল বাশার মোল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৮৩ সালে তার মেঝো ভাইয়ের নির্দেশনায়, তিনি লৌহজং থানা ছাত্রলীগ পুনঃগঠনের কাজ শুরু করেন এবং ১৯৮৪ সালে সম্মেলনের মধ্যদিয়ে থানা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি  নির্বাচিত হন। ১৯৮৯ সালের জুন মাস থেকে তিনি ডেনমার্ক বসবাস শুরু করেন। 
 
এদিকে, বিদেশে গিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে যাচ্ছেন। ২০০১ সালের ২২শে সেপ্টেম্বর, লিংকন মোল্লার নেতৃত্বে ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয় এবং ৬ই জানুয়ারী ২০০২ সালে লন্ডনে বঙ্গবন্ধুর ছোট কন্যা শেখ রেহানার বাসায় জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজে ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সেই কমিটি অনুমোদন দিয়েছিলেন।  
 
এম এ লিংকন মোল্লা ১৯৮৪  লৌহজং থানা ছাত্রলীগ সভাপতি, একই বছর লৌহজং থানা ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক, ১৯৯৫ সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ এ্যাসোসিয়েশন, ডেনমার্ক, ২০০১ আহবায়ক, ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ, ২০০২ সাধারণ সম্পাদক, ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ, ২০১৫ সভাপতি, ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ। ২০১৯ থেকে  সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ সমন্বয় কমিটির সদস্য সচিব হিসাবে কাজ করছেন তিনি। 




অন লাইন এক্টিভিস্ট হিসাবে বিদেশে সরব ভূমিকা পালন করতে দেখা গেছে এম এ লিংকন মোল্লাকে। এছাড়া বিভিন্ন পত্রিকায় লিখা-লিখি করে থাকেন তিনি। বিভিন্ন মানবাধিকার কর্মকান্ডে জড়িত লিংকন মোল্লা। 

উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক কর্মকান্ডের মধ্যে এম এ লিংকন মোল্লা ১৯৮২ সালে রাজনৈতিকভাবে মিথ্যা মামলার শিকার হন। ১৯৮৪/১৯৮৫ সালে জাতীয় পার্টির  শাহ মোয়াজ্জেম হোসেনের অত্যাচারে বাড়ীতে থাকতে পারেননি। সারাক্ষণ পুলিশ এবং তার সন্ত্রাসী বাহিনী ভয়ে এলাকা ছাড়া ছিলেন। ১৯৮৮ সালে বাধ্য হয়ে দেশ ত্যাগ করতে হয়েছিল। প্রবাসে থেকেও দ্বিতীয় স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলন করেছেন। ২০০১ সালের বিতর্কিত নির্বাচনের পর, নিএনপি- জামাতের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে নিয়মিত সভা–সমাবেশ প্রতিবাদ করে ভূমিকা পালন করেছেন। 
 
বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার লক্ষে এবং আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশুন্য করার লক্ষে ২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট, বিএনপি–জামাতের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার  তাৎক্ষনিক প্রতিবাদ করেন লিংকন মোল্লা। পরের সপ্তাহে, ডেনিশ পুলিশ সদরদপ্তর এবং কোপেনহেগেন সিটি মেয়রের লিখিত অনুমতি সাপেক্ষে, কোপেনহেগেন সিটিহল স্কয়ার থেকে প্রায় ৬০/৭০ জনের একটি প্রতিবাদ মিছিল মূল রাস্তা দিয়ে হেটে  ডেনিশ পার্লামেন্টের স্পিকারের বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন। ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশ দুতাবাস স্টকহলম গিয়ে স্মারকলিপি দিয়ে প্রতিবাদ করেছেন। 
 
সেনা সমর্থিত সরকার বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে  গ্রেফতার করার প্রতিবাদে হাজার হাজার দলীয় কর্মীদের সাথে সেদিন সকালে সুধা সদনের সামনে উপস্থিত ছিলেন। রাতে নিজ এলাকায় , ১৫/২০ জন ছাত্র–যুবকদের সাথে নিয়ে  জননেত্রী শেখ হাসিনার গ্রেফতারের প্রতিবাদের  মিছিল করা, যা পরের দিন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের নামে বিভিন্ন পত্রিকায় খবর প্রকাশ হয়।  
২০০৭ সালে, জননেত্রী শেখ হাসিনা মুক্তি আন্দোলনে ইউরোপের বিভিন্ন সংস্থায় লিখালিখি, পত্রপত্রিকায় লিখা- লিখি, দলীয়ভাবে প্রতিবাদ, স্মারকলিপি প্রদান করেন লিংকন মোল্লা। নেত্রীর কারামুক্তি আন্দোলন করতে গিয়ে সারা ইউরোপ চসে বেড়িয়েছেন। ১৯৯৬ সাল থেকে প্রতিটি নির্বাচনে দেশে গিয়ে দলের পক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন। 

জাতির পিতার খুনিদের বিচার, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবীতে দেশ-বিদেশে জনমত জনমত সৃষ্টি করো, বিএনপি-জামাতের দেশ বিরোধী আগুন সন্ত্রাস, দেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও গুজবের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। 
 
লিংকন মোল্লা মনে করেন, আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুন্সিগঞ্জ -২, (লৌহজং-টঙ্গীবাড়ি) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন তিনি পাবেন। তার পারিবারিক ঐতিহ্য এবং দলের নেতাকর্মীদের দীর্ঘ সময়ের আশা পূরণ করে নৌকার মাঝি হিসাবে বিপুল ভোটে তিনি জয়ী হবেন বলেও আশাবাদী তিনি।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Vorer-pata-23-12-23.gif
http://www.dailyvorerpata.com/ad/bb.jpg
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Screenshot_1.jpg
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]