সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

শিরোনাম: বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন ধর্মঘট না ডাকার আহ্বান কাদেরের    শতভাগ পাস ২৯৭৫ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে, ৫০টিতে সবাই ফেল    সংঘাত-দুর্যোগের সময় নারীদের দুর্দশা বহুগুণ বেড়ে যায়: প্রধানমন্ত্রী    এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেলো ২ লাখ ৬৯ হাজার শিক্ষার্থী    এসএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮৭.৪৪ শতাংশ    এসএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ    বিশ্বে একদিনে করোনায় আক্রান্ত সাড়ে ২ লাখ   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
ইউএনও'র কার্যালয়ে তরুণকে পেটালো আনসার সদস্য
নোয়াখালী প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৭:৪৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এর কার্যালয়ে সেবা প্রার্থী এক তরুণকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ে কর্মরত দুই আনসার সদস্যের বিরুদ্ধে।    

মারধরের শিকার তরুণের নাম মো.আহসান হাবিব (২২)। সে উপজেলার কবিরহাট পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মো.এনায়েত উল্যার ছেলে।   

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কবিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। পরে কবিরহাট পৌরসভা এলাকার বেশ কয়েকজন যুবক কবিরহাট উপজেলার আনসার ব্যারাকে হামলার চেষ্টা করে।  খবর পেয়ে কবিরহাট পৌরসভার মেয়র জহিরুল হক রায়হান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে তাদের ফেরত পাঠায়।   



ভুক্তভোগী আহসান হাবিব অভিযোগ করে বলেন, বুধবার দুপুরে আমি আমার বন্ধু মনির উদ্দিনসহ উপজেলা কার্যালয়ে ছোট ভাইয়ের জন্ম নিবন্ধের নাম সংশোধন করার জন্য যাই। এ সময় সেবা প্রার্থী লোকের সংখ্যা বেশি হওয়ায় আমি লাইনে দাঁড়াই। এ সময় আমার মোবাইলে এক বন্ধুর ভিডিও কল আসলে রিসিভ করে কথা বলা শুরু করি। এমন সময় আনসার সদস্য ইউনুস এসে আমাকে মুঠোফোনে ভিডিও করার অভিযোগ তুলে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তখন আমি আনসার সদস্যকে জানাই  ভিডিও করিনি, ভিডিও কলে কথা বলেছি।  কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে আরেক আনসার সদস্য রনি এসে লাঠি দিয়ে আমার চোখে আঘাত করে আমাকে মারধর করে। 

এর কিছুক্ষণ পর বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানিয়ে তার কক্ষ থেকে বের হওয়ার সময় আনসার সদস্য ইউনুস ও রনি পুনরায় আমাকে মারধর করে। পরে ইউএনও তাদেরকে গালমন্দ করে আমাকে তার গাড়িতে করে কবিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে পাঠায়।  
 
এঘটনার পরই কবিরহাট পৌরসভা এলাকার বেশ কয়েকজন যুবক উপজেলা পরিষদের আনসার ব্যারাকে হামলার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে কবিরহাট পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক রায়হান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।  

কবিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফাতেমা সুলতানা তার কক্ষে মারধরের অভিযোগটি অস্বীকার করে বলেন, তারা নিজেরা নিজেরা মাঠে মারামারি করেছে।  আমার কক্ষে কাউকে মারধর করা হয়নি।  

ইউএনও আরো বলেন, দুই আনসার সদস্যকে আর এখানে রাখা হবেনা। তাদেরকে জেলায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে। আহত তরুণকে আমি চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/dd.jpg
http://dailyvorerpata.com/ad/apon.jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]