শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২ আশ্বিন ১৪২৮

শিরোনাম: ফিনল্যান্ড পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা    কমেছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা    কমেছে মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত     বাংলাদেশের নতুন কোচ অস্কার    সাতক্ষীরায় ধানক্ষেতে মিললো দুই যুবকের মরদেহ    ইভ্যালির রাসেল-শামীমা ৩ দিনের রিমান্ডে    বগুড়ায় বাসের ধাক্কায় চুরমার অটোরিকশা, নিহত ২   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
ঈদযাত্রায় সড়কে প্রাণ গেলো ২০৭ জনের
ভোরের পাতা ডেস্ক
প্রকাশ: সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১, ৮:৩৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

পবিত্র ঈদুল আজহার যাতায়াতে দেশের সড়ক-মহাসড়কে ১৫৮টি দুর্ঘটনায় ২০৭ জন নিহত হয়েছেন। এসব দুর্ঘটনায় ৩৮৯ জন আহত হয়েছেন।


রোড সেফটি ফাউন্ডেশন গত ১৪ জুলাই থেকে ২৪ জুলাই পর্যন্ত দেশের ৭টি জাতীয় দৈনিক, ৫টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং ইলেক্ট্রনিক গণমাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে।

সোমবার (২৬ জুলাই) প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৭৬টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ৮৭ জন। যা মোট নিহতের ৪২.০২ শতাংশ। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ৪৮.১০শতাংশ। দুর্ঘটনায় ৪৩ জন পথচারী নিহত হয়েছেন, যা মোট নিহতের ২০.৭৭ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ৩২ জন, অর্থাৎ ১৫.৪৫ শতাংশ।

যানবাহনভিত্তিক নিহতের চিত্র
দুর্ঘটনায় যানবাহনভিত্তিক নিহতের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, মোটরসাইকেল চালক ও আরোহী ৮৭ জন (৪২.০২ শতাংশ), বাসযাত্রী ১২ জন (৫.৭৯ শতাংশ), ট্রাক-পিকআপ যাত্রী ৮ জন (৩.৮৬ শতাংশ), মাইক্রোবাস-প্রাইভেটকার যাত্রী ১৩ জন (৬.২৮ শতাংশ), থ্রি-হুইলার যাত্রী (সিএনজি-ইজিবাইক-অটোরিকশা-লেগুনা) ৩১ জন (১৪.৯৭ শতাংশ), নসিমন-মাহিন্দ্র-চান্দেরগাড়ি যাত্রী ১০ জন (৪.৮৩ শতাংশ), বাইসাইকেল আরোহী ৩ জন (১.৪৪ শতাংশ) নিহত হয়েছে।

দুর্ঘটনা সংঘটিত সড়কের ধরন
রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ বলছে, দুর্ঘটনাগুলোর মধ্যে ৫৯টি (৩৭.৩৪ শতাংশ) জাতীয় মহাসড়কে, ৬৬টি (৪১.৭৭ শতাংশ) আঞ্চলিক সড়কে, ১৪টি (৮.৮৬ শতাংশ) গ্রামীণ সড়কে এবং ১৯টি (১২.০২ শতাংশ) শহরের সড়কে সংঘটিত হয়েছে।

দুর্ঘটনার ধরন
দুর্ঘটনাসমূহের ৪৬টি (২৯.১১ শতাংশ) মুখোমুখি সংঘর্ষ, ৫৪টি (৩৪.১৭ শতাংশ) নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে, ৪২টি (২৬.৫৮ শতাংশ) পথচারীকে চাপা/ধাক্কা দেওয়া এবং ১৬টি (১০.১২ শতাংশ) যানবাহনের পেছনে আঘাত করার কারণে ঘটেছে।

দুর্ঘটনায় সম্পৃক্ত যানবাহন
দুর্ঘটনায় সম্পৃক্ত যানবাহনের মধ্যে- ট্রাক-কাভার্ডভ্যান-পিকআপ ২৭.১৭ শতাংশ, ট্রাক্টর-ট্রলি-লরি ২.৮৯ শতাংশ, মাইক্রোবাস-প্রাইভেটকার-এ্যাম্বুলেন্স ৫.৪৩ শতাংশ, যাত্রীবাহী বাস ৭.৯৭ শতাংশ, মোটরসাইকেল ২৮.২৬শতাংশ, থ্রি-হুইলার (সিএনজি- ইজিবাইক- অটোরিকশা-লেগুনা) ১৭.৩৯ শতাংশ, নসিমন- করিমন-ভটভটি- মাহিন্দ্র- চান্দেরগাড়ি ৯.৪২ শতাংশ এবং বাইসাইকেল ১.৪৪ শতাংশ।

দুর্ঘটনায় সম্পৃক্ত যানবাহনের সংখ্যা
দুর্ঘটনায় সম্পৃক্ত যানবাহনের সংখ্যা ২৭৬টি। (ট্রাক ৪৬, বাস ২২, কাভার্ডভ্যান ৫, পিকআপ ২৪, ট্রলি ২, লরি ৪, ট্রাক্টর ২, মাইক্রোবাস ৫, প্রাইভেটকার ৮, এ্যাম্বুলেন্স ২, মোটরসাইকেল ৭৮, সিএনজি-ইজিবাইক-অটোরিকশা-অটোভ্যান-লেগুনা ৪৮, নসিমন-করিমন-ভটভটি-মাহিন্দ্র-চান্দেরগাড়ি ২৬ এবং বাইসাইকেল ৪টি।

দুর্ঘটনার সময় বিশ্লেষণ
সময় বিশ্লেষণে দেখা যায়, দুর্ঘটনাসমূহ ঘটেছে ভোরে ৬.৯৬ শতাংশ, সকালে ১৮.৩৫ শতাংশ, দুপুরে ২২.১৫ শতাংশ, বিকালে ২৪.৬৮ শতাংশ, সন্ধ্যায় ১১.৩৯ শতাংশ এবং রাতে ১৬.৪৫ শতাংশ।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশন এসব সড়ক দুর্ঘটনার জন্য ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন; বেপরোয়া গতি; চালকদের বেপরোয়া মানসিকতা, অদক্ষতা ও শারীরিক-মানসিক অসুস্থতা; বেতন ও কর্মঘন্টা নির্দিষ্ট না থাকা; মহাসড়কে স্বল্পগতির যানবাহন চলাচল; তরুণ ও যুবদের বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো; দুর্বল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি কারণ চিহ্নিত করেছে।

একই সময়ে সারাদেশে ৪টি নৌ-দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত এবং ২৬ জন আহত হয়েছে। ২টি রেলপথ দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত হয়েছে বলেও জানায় রোড সেফটি ফাউন্ডেশন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০২০ সালে ঈদুল আজহার আগে-পরে ১৪ দিনে ১৮৭টি দুর্ঘটনায় ২২৯ জন নিহত হয়েছিল। এবারের ঈদুল আজহার আগে-পরে ১১ দিনে নিহত হয়েছেন ২০৭ জন। প্রতিদিন গড়ে নিহত হয়েছে ১৮.৮১ জন। এই হিসেবে প্রাণহানি বেড়েছে ১৫.০৪ শতাংশ। দুর্ঘটনায় ১৮ থেকে ৬৫ বছর বয়সী কর্মক্ষম মানুষ নিহত হয়েছেন ১৬৯ জন, অর্থাৎ ৮১.৬৪ শতাংশ।



করোনার অতিমারিতে মানুষের যাতায়াত অনেকটা নিয়ন্ত্রিত। তারপরেও দুর্ঘটনার এই হার উদ্বেগজনক। অধিকাংশ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে সড়ক পরিবহন খাতের অব্যবস্থাপনার কারণে। এই পরিস্থিতিতে সড়ক পরিবহন আইনের বাধাহীন বাস্তবায়ন অতীব জরুরি বলে জানায় সংগঠনটি।



ভোরের পাতা/কে 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


আরও সংবাদ   বিষয়:  ঈদ   দুর্ঘটনা   আহত  







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/agrani.gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]