‘আমি ভুল করেছি, ক্ষমা করুন’

  • ২৮-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ণ
Ads

 

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

২০০৭ সালে তারেক জিয়া তার বিরুদ্ধে আনীত দুর্নীতির অভিযোগগুলো কবুল করেছিলেন। তিনি যেসব অপকর্ম করেছিলেন সেগুলোর উপর স্বীকারোক্তিমূলক একটি হলফনামা প্রদান করেছিলেন। এ তথ্য উঠে এসেছে এবারের বইমেলায় প্রকাশিত ‘এক এগারো’ শীর্ষক গ্রন্থে। গ্রন্থটি লিখেছেন মুক্তিযোদ্ধা ও দক্ষিণ কোরিয়ার সুংকোংহে বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘মাস্টার্স ইন এনজিও স্টাডিজ’ কোর্সের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও অধ্যাপক মহিউদ্দিন আহমদ।

‘এক এগারো’ বইয়ের ২০৮ ও ২০৯ পাতায় বলা হয়েছে, ২০ জুন দৈনিক মানবজমিন-এ তারেক রহমানের ১২ মার্চে সই করা একটি হলফনামা ছাপা হয়। হলফনামায় জেলে আটক তারেক তার বন্ধু গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের সঙ্গে অজান্তেই দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েন বলে কবুল করেন। হলফনামার বক্তব্য ছিল এ রকম:

আমি তারেক রহমান নিম্নে বর্ণিত ঘটনার জন্য আমার পরিবার, দেশের মানুষ এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের সকল শ্রেণির নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।

আমি গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের প্ররোচনায় তার বহু অবৈধ আয় সম্পর্কে জ্ঞাত হইলেও তা থেকে তাকে বিরত হইতে নিষেধ করি নাই, পরোক্ষভাবে তাকে সমর্থন দেওয়া হয়। তার ওয়ান গ্রুপ-এর সকল প্রতিষ্ঠানে সে আমাকে মৌখিকভাবে সাথে রাখে এবং ফলে এই প্রতিষ্ঠানগুলি গড়তে সে বিভিন্নভাবে অবৈধ আয় করে। এই অবৈধ আয় থেকে সে আমাকে আমার রাজনৈতিক খরচের নামে বিভিন্ন সময়ে অর্থ প্রদান করেছে, যা নীতিগতভাবে অন্যায়। কিন্তু আমি তাকে বারণ করি নাই।

গিয়াসউদ্দিন আল মামুন তার বৈধ ও অবৈধ উপার্জনের একটি অংশ বিদেশে গচ্ছিত করে একটি ব্যাংকে রাখে। যার সঠিক পরিমাণ আমার জানা নেই। সেখানে গচ্ছিত অর্থ সম্পর্কে যাতে আমি কোনো অনুসন্ধান না আপত্তি বা আপত্তি না করি তার জন্য সে আমাকে তার সেই ব্যাংক-এর একটি Supplementary Debit Card তৈরি করে দেয়, যা থেকে বিভিন্ন সময়ে আমি কিছু অর্থ নিজ প্রয়োজনে খরচ করেছি।

বিভিন্ন সময়ে এই ধরনের অবৈধ আয় সম্পর্কে জানলে আমি তাকে প্রশ্ন করি, কিন্তু সে অস্বীকার করে । সরল বিশ্বাসে আমি তার কথা বিশ্বাস। করেছি। যার ফলে তার এই দুর্নীতির একটি পরোক্ষ অংশে আমি পরিণত হয়েছি। পরিশেষে আমি আবারও দেশের সকল মানুষের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। আমি জ্ঞাতভাবে বা অজ্ঞাতভাবে মামুন এবং তার সহযোগীদের দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দিয়েছি। আমি আল্লাহর কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। আমি আমার পরিবার এবং দেশের মানুষের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।

আমার সর্বশেষ অনুরোধ দেশের মানুষের কাছে, আমি ভুল করেছি, আমাকে একটিবারের মতো আপনারা ক্ষমা করুন।

তারেক রহমান

পিতা-শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান

মাতা : বেগম খালেদা জিয়া

৬, শহীদ মঈনুল রোড

ঢাকা সেনানিবাস, ঢাকা-১২০৬

তারিখ : ১২ মার্চ, ২০০৭

সূত্র: বাংলা ইনসাইডার

Ads
Ads