ভূমিদস্যুদের দখল-দূষণ আগ্রাসনে বিলিন হতে চলেছে কপোতাক্ষনদ

  • ১৭-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ০২:২৯ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: রফিকুল ইসলাম, ঝিকরগাছা :: 

বাংলা সনেট কবিতার প্রবর্তক মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত’র প্রিয়নদ, যশোরের ঐতিহ্য ‘কপোতাক্ষনদ’ ভূমিদস্যুদের দখল-দূষণ আগ্রাসনে বিলিন হতে চলেছে। ঝিকরগাছা-চৌগাছা সংসদীয় আসনের ৫৭ কিলোমিটার সীমানা জুড়ে চলছে এই অবৈধ দখল দারিত্বের আগ্রাসন। ফলে একসময়ের খরস্রোতা যশোরের ঐতিহ্য কপোতাক্ষ নদ তার মানচিত্র থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে। অভিযোগ রয়েছে, বেআইনী দখলদার ভূমিদস্যুরা যথেচ্ছা ঘের, পুকুর জলাশয় নির্মাণের পাশাপাশি পাকা দালানঘর এমনকি বহুতল ভবন-মার্কেট নির্মান করে চলেছে। 

ঝিকরগাছা উপজেলার শেষ প্রান্ত নদের ভাটিঅঞ্চল বাঁকড়া ইউনিয়নের মাটশিয়া এলাকার দু’তীরবর্তী নদের জমি দখল করে মাছের ঘের-পুকুর তৈরির মচ্ছব লক্ষ্য করা গেছে। বাঁকড়া বাজার এলাকায় গড়ে উঠেছে বহুতল ভবন ও মার্কেট। ঘের পুকুর জলাশয় ও কয়েকটি ভবন নির্মাণ চোখে পড়েছে। 

সরেজমিন উপজেলার নির্বাসখোলা ইউনিয়নের হাজিরবাগ, বল্লা, নওয়ালী, রঘুনাথ নগর, মহিনীকাটি, ঝিকরগাছা সদর, হাড়িয়াদেয়ড়া, মি¯্রীদেয়ড়া, গঙ্গান্দপুর ইউনিয়নের ছুটিপুর বাজার এলাকায় ব্যাপক দখলদারিত্ব লক্ষ্য করা গেছে। ছুটিপুর বাজার এলাকায় গড়ে উঠেছে বহুতল ভবন, মার্কেট ও ঘেরপুকুর। নদের দু’তীর জুড়ে এমন দখলদারিত্ব চোখে পড়ে উপজেলার নদের শেষ প্রান্ত চৌগাছা উপজেলার মাসিলা পর্যন্ত। 

স্থানীয় প্রবীণদের মতে, কপোতাক্ষনদে দখল-দূষণ চলে আসছে মূলত ৬০’র দশক থেকে। শুষ্ক মৌসুমে একশ্রেণির দখলবাজ নদের তীরবর্তী জমির মালিকরা পর্যায় ক্রমে নদের জায়গা দখলকরে চাষাবাদ শুরু করে। এভাবেই দখল দারিত্বের সূত্রপাত। পরে ৬২ ও ৯০’র এর মাঠ জরিপ কালে জরিপকারীদের ভুল তথ্য দিয়ে ও প্রভাব খাটিয়ে নদের এসব জমি দখল স্বত্তে রেকর্ডভূক্ত করে নেয়।  এলাকাবাসির দাবি, দেশের সকল নদনদীকে ‘জীবন্ত স্বত্তা’ উল্লেখ করে মহামান্য হাইকোটের  দেওয়া আদেশ বাস্তবায়নের মধ্যেদিয়ে কপোতাক্ষ নদের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনাহোক। 

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাহিদুল ইসলাম ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মি. সাধন কুমার বিশ্বাসের  কাছে জানতে চাওয়া হলে তাঁরা বলেন, জাতীয় নদীরক্ষা কমিশন এব্যাপারে আমাদেরকে চিঠি দিয়েছেন। আমারা অবৈধ দখলদারদের তালিকা তৈরি করে জেলা প্রশাসক মহোদয়কে লিখিত ভাবে অবহিত করেছি। পরবর্তী নিদের্শনা পেলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্বে কার্যক্রম শুরু করবো। আমরা কোন মতেই কপোতাক্ষ নদের দখল-দূষণ মেনে নিতে পারিনা। যেকোন ধরণের দখল দূষণের ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করতে যাচ্ছি।

 

Ads
Ads