জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ছাড়াই ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান!

  • ২৭-জানুয়ারী-২০১৯ ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

ছাত্রলীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে জাতীয় ও সংগঠনটির দলীয় পতাকা উত্তোলন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নেতাকর্মীরা। এ ছাড়াও মঞ্চের ভিড় সামলাতে নেতাকর্মীর কিল, ঘুষি ও লাথি মারার অভিযোগ উঠেছে খোদ সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের বিরুদ্ধে।

ছাত্রলীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এসব ঘটনা ঘটে। শনিবার (২৬ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে এ অনুষ্ঠান শুরু হয়।

মূলত প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ৪ জানুয়ারি হলেও আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফের মৃত্যুতে কর্মসূচি স্থগিত রাখা হয়েছিল।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা ফেরাতে পারেননি শোভন-রাব্বানীর কমিটি। পূর্ণাঙ্গ কমিটি না করায় নেতাকর্মীদের অনেকেই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সক্রিয় অংশগ্রহণ থেকে বিরত ছিলেন। দায়সারা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রোগ্রাম ছিল বিশৃঙ্খলায়ও ভরপুর। ঘটেছে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও।

জানা গেছে, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন রেওয়াজ থাকলেও শোভন রাব্বানী এবার তা করেননি। পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান শুরু করেন তারা।

এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে গত কমিটির সম্পাদক পর্যায়ের এক নেতা নাম প্রকাশ না করা শর্তে বলেন, ‘প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রোগ্রামে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন হবে না- এটা মেনে নেয়া কষ্টকর।’

এ ছাড়াও বিশৃঙ্খলাপূর্ণ ছিল অনুষ্ঠান। মূল মঞ্চে ওঠা নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি ও তাদের মঞ্চ থেকে সরাতে কিল ঘুষি ও লাথি মারার অভিযোগ উঠেছে খোদ সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের বিরুদ্ধে।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে আরেক নেতা বলেন, ‘তিনি কোনো কর্মীকে লাথি দেয়ার অধিকার রাখেন না।’

এদিকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রা বের হলে তিন নেতার মাজারের সামনে আসলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় জহুরুল হক হলের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আমিরুল ইসলাম (তথ্য বিজ্ঞান ও গবেষণাগার) এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাহিম ও আশরাফি নামের তিনজন আহত হয়েছেন। তারা সবাই ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

গত কমিটিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি হল কমিটির সহ-সভাপতি বর্তমানে কেন্দ্রের পদপ্রত্যাশী এক নেতা বলেন, ‘এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রোগ্রাম দায়সারা ছিল। নেতাকর্মীদের কারো মধ্যে কোনো উৎসাহ উদ্দীপনা ছিল না। প্রোগ্রামের আয়োজন আরও ভালো হতে পারতো, যদি না কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হতো।’

এদিকে এসব অভিযোগের বিষয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তারা কল রিসিভ করেননি।

Ads
Ads