রোহিঙ্গাদের জীবনমান উন্নয়নে অর্থ দেবে বিশ্বব্যাংক: অর্থমন্ত্রী

  • ১৩-Oct-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

জাতিগত নিপীড়নের মুখে মিয়ানমার থেকে আসা বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ভরণ-পোষণে জন্য বিশ্বব্যাংক প্রয়োজনীয় অর্থ সহায়তা দেবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

শনিবার (১৩ অক্টোবর) ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপের ওয়েস্টিন হোটেলে বিশ্বব্যাংক-আইএমএফের সম্মেলনে বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিমের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ তথ্য জানান তিনি।

ইতোমধ্যে জার্মানি, সুইডেন, কুয়েত, সংযুক্ত আরব আমিরাতকে অনুরোধ জানিয়েছে সংস্থাটি। এই চারটি দেশকে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে বাংলাদেশ সফরে আমন্ত্রণ জানানো হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের সহযোগিতার ক্ষেত্রে অনুদান পাওয়া নিয়ে একটু সমস্যা আছে। বিশেষ করে, যুক্তরাজ্য বলছে, কেন সবার কাছ অনুদান চাওয়া হবে? এমন মন্তব্য অনাকাঙ্ক্ষিত। ঢাকায় গিয়ে বিষয়টি তাদের কাছে জানতে চাইব?

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিশ্বব্যাংক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়ে যেভাবে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছে তার জন্য বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট এবং অন্যদের ধন্যবাদ জানানো হয়েছে। তারাও রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশকে ধন্যবাদ জানিয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের ভরণ-পোষণের জন্য যে অর্থ খরচ হবে, তার ব্যবস্থা করবে বিশ্বব্যাংক। আমাদের সরকারের কোনো অর্থ খরচের প্রয়োজন পড়বে না।

মুহিত বলেন, বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্টের সঙ্গে রোহিঙ্গা নিয়েই সব আলোচনা হয়েছে। বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট বলেছেন, অসহায় এই মানুষগুলোর সহায়তার জন্য যে খরচ হবে, তার ব্যবস্থা বিশ্বব্যাংক করবে। বাংলাদেশ সরকারের কোনো অর্থ খরচের প্রয়োজন পড়বে না।

মুহিত আরও বলেন, আমরা হিসাব করে দেখেছি, আগামী দুই বছরে রোহিঙ্গাদের জন্য দুই বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন হবে। আর এ অর্থ কোনো প্রকার ঋণ হিসেবে নয় বরং অনুদান হিসেবে এসব অর্থের ব্যবস্থা করবে বিশ্বব্যাংক।

এক বিলিয়ন ডলার করে দুই বছরে দুই বিলিয়ন ডলারের এই অর্থের বেশির ভাগ দেবে বিশ্বব্যাংক। বাকি অর্থ অন্যান্য দাতা দেশ এবং সংস্থার কাছ থেকে নেয়া হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংকের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব কাজী শফিকুল আযম।

 

/কে 

Ads
Ads