মাশরাফি ও মেহেদীর ব্যাটিং নৈপুণ্যে দেড়শ বাংলাদেশের

  • ২১-Sep-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: স্পোর্টস ডেস্ক ::

সাত উইকেট পড়ে যাওয়ার পর অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মেহেদী হাসান মিরাজের ব্যাটিং নৈপুণ্যে বাংলাদেশ দেড়শ রান পেরোতে সক্ষম হয়। মেহেদী অন্য সব ব্যাটসম্যানদের থেকে সাবলীলভাবে ব্যাটিং করেন। মেহেদী ৩৯ রানে ও মাশরাফি ১২ রানে অপরাজিত রয়েছেন। 

এদিকে, টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। তামিমের বদলে আজও দলে সুযোগ পেয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। বাংলাদেশের দুই ওপেনার দেখে শুনেই ইনিংস শুরু করেন। দুই ওপেনার ওভার প্রতি প্রায় ৩ রান করে নিতে থাকেন।

ম্যাচের পঞ্চম ওভারেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ। দলীয় ১৫ রানে ভুবেনশর কুমারকে উড়িয়ে মারতে যেয়ে লিটন দাস বাউন্ডারিতে ক্যাচ আউট হন। লিটন ১৬ বলে ৭ রান করেন। দলের খাতায় আর এক রান যোগ হতেই বাংলাদেশের আরও একটি উইকেটের পতন ঘটে। এবার বুমরার বলে স্লিপ ক্যাচ দেন শান্ত। লিটনের মতো শান্তও মাত্র ৭ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরত যান।

দুই ওপেনার আউট হলে দলের হাল ধরেন সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহীম। কিন্তু সাকিব-মুশির জুটি বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে দেয়নি ভারতের বোলাররা। দলীয় ৪২ রানে সাকিব আউট হন। সাকিব পর পর দুই বলে দুইটি চার মেরে রবিন্দ্র জাদেজার বলে আউট হন। দুইটি চার মারার পরেও সাকিবের বেশি আক্রমণাত্মক ব্যাটিং বাংলাদেশকে আরও বিপদে ফেলে দেয়। সাকিব ১২ বলে ১৭ রান করেন। সাকিব আউট হলে ক্রিজে নামেন মোহাম্মদ মিথুন।

সাকিবের পর দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন মুশফিক ও মোহাম্মদ মিথুন। কিন্তু দলীয় ৬০ রানে রবীন্দ্র জাদেজার শিকার হন মিথুন। ১৯ বলে ৯ রান করে মিথুন আউট হয়ে যান। মিথুনের পর ক্রিজে আসেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

দ্রুতই চার উইকেট হারালে বাংলাদেশের তখন শেষ ভরসা ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’ মুশফিকুর ও ‘ফিনিশার’ রিয়াদ। এই দুইজনের হাত ধরেই বাংলাদেশ অনেক ম্যাচ বের করে নিয়ে আসে। বাংলাদেশের সব আশা-ভরসা এই জুটির ওপর। কিন্তু এই জুটিও ব্যর্থ হয়। দলীয় ৬৫ রানে ভালো খেলতে থাকা মুশফিকুর জাদেজার বল রিভার্স সুইপ খেলতে যেয়ে দীপক চাহারের হাতে ক্যাচ দেন। এতেই বাংলাদেশের সব আশা শেষ হয়ে যায়। মুশফিক ৪৫ বলে ২১ রান করেন।  

ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মোসাদ্দেক সৈকতের ৩৫ রানের পার্টনারশিপের ওপর ভর করে বাংলাদেশ ৩২ ওভারে শত রানের কোটায় পা রাখে।

বাংলাদেশ ১০০ রানে পা রাখতে না রাখতেই আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে রিয়াদ মাত্র ২৫ রান করে আউট হয়ে যান। ভুবেনশর কুমারের বল পায়ে লাগলে আম্পায়ার এলবি’র সিদ্ধান্ত দেন। কিন্তু টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল পায়ে লাগার আগে ব্যাটে লাগে। বাংলাদেশ আগেই রিভিউ নষ্ট করায় রিয়াদ আম্পায়ারের সিদ্ধান্তটি চ্যালেঞ্জ জানাতে পারেননি। ভারতের সঙ্গে ম্যাচ পড়লেই বাংলাদেশের বিপক্ষে আম্পায়ারের এমন সিদ্ধান্ত এখন নিয়মিত ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

রিয়াদ আউট হলে গেলে মোসাদ্দেকও বড় ভাইয়ের দেখানো পথেই হাঁটেন। মোসাদ্দেক দলীয় ১০১ রানে চাহারের বলে ধোনির হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরত যান। তিনি ৪৩ বলে ১২ রান করে।

Ads
Ads