বাংলাদেশি যুবতীকে ১১ পুরুষ মিলে ধর্ষণ

  • ২-Sep-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

খুলনার র‌্যাব-৬ অভিযান চালিয়ে বিদেশে নারী পাচার চক্রের হোতা আল-মামুন ওরফে কামরুজ্জামান ওরফে সোহাগ বাবুকে আটক করেছে। বৃহস্পতিবার নগরীর সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে আটক করেন র‌্যাব-৬ সদস্যরা। সে নগরীর টুটপাড়া জোড়াকল বাজার এলাকার আবদুল খালেকের ছেলে। তার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সদর থানায় গত ২৯শে আগস্ট মানবপাচার আইনে একটি মামলা হয়েছে (নং-৮০)। র‌্যাব-৬ এর স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. এনায়েত হোসেন মান্নান জানান, আসামি সোহাগ বাবু সাতক্ষীরা এলাকাসহ খুলনা বিভাগের বিভিন্ন স্থান থেকে সহজ সরল গরিব পরিবারের তরুণীদের বিদেশে ভালো চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে দেহব্যবসার জন্য বিক্রয় করে। তিনি আরো জানান, সাতক্ষীরার ওই মামলার বাদীর মেয়েকে সৌদি আরবের দালালদের নিকট বিক্রি করে দেয়।

সৌদি আরবের দালালরা আবার সেখানকার বিভিন্ন দালালের নিকট ওই যুবতীকে বিক্রি এবং আবাসিক হোটেলে ও বাসা বাড়িতে রেখে যৌন হয়রানি করেছে। এ নির্যাতনের কথা পাচারের শিকার যুবতী ইমোর মাধ্যমে তার স্বজনদের কাছে ভয়েস রেকর্ডিং পাঠায়। ভয়েস রেকর্ডিংয়ের সূত্রে জানা যায়, পাচার হওয়া যুবতীকে একই দিনে ১১ জন পুরুষ কর্তৃক ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। তার ওপরে ভয়াবহ যৌন হয়রানির পাশাপাশি মারপিট করা হচ্ছে। আঘাতের রক্তাক্ত ছবি ইমোতে প্রেরণ করেছে সেই যুবতী। 

Ads
Ads