হতাশার হারে সিরিজ শুরু টাইগারদের

  • ২৪-জানুয়ারী-২০২০ ০৬:৩৮ অপরাহ্ন
Ads

:: স্পোর্টস ডেস্ক ::

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে ৫ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ। টাইগারদের দেয়া ১৪২ রানের লক্ষ্য ৩ বল থাকতেই পেরিয়ে যায় স্বাগতিকরা। এই জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেলো বাবর আজমের দল।

শুরুতে ব্যাট করে মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায় ১৪১ রান করে বাংলাদেশ। মামুলি লক্ষ্য তাড়ায় পাকিস্তানের হয়ে ইনিংস উদ্বোধন করতে নামেন বাবর আজম ও আহসান আলী। শফিউলের করা দ্বিতীয় বল বুঝতেই পারেননি বাবর। তার ব্যাট ছুঁয়ে বল সোজা চলে যায় উইকেটকিপার লিটনের হাতে। রিভিউ নিয়েও রক্ষা পাননি টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়ের এক নম্বর ব্যাটসম্যান।

শুরুর ধাক্কা সামাল দিয়ে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন মোহাম্মদ হাফিজ ও আহসান আলি। পঞ্চম ওভারের শেষ বলে হাফিজকে বিপ্লবের ক্যাচে পরিণত করেন মুস্তাফিজুর রহমান। সাজঘরে ফেরার আগে ১৬ বলে ১৭ রান করেন তিনি।

এরপর শোয়েব মালিক ও আহসানের ৪৬ রানের জুটিতে ম্যাচ অনেকটাই নিজেদের দিকে টেনে নেয় পাকিস্তান। তবে আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের বলে আহসান ফিরলে আশা জাগে টাইগার শিবিরে। এর আগে ৩৬ রান করেন তিনি। 

ইফতিখার ও ইমাদ ওয়াসিম কেউই এদিন বড় স্কোর করতে পারেননি। দুজনে ফেরেন যথাক্রমে ১৬ ও ৬ রানে। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে অর্ধশতক তুলে নেন শোয়েব মালিক।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দলের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন তামিম ইকবাল ও নাইম শেখ। শুরু থেকেই দেখে খেলতে থাকে তারা। দুজনের ব্যাটে অষ্টম ওভারে দলীয় অর্ধশতক পূরণ করে টাইগাররা। 

উইকেটের খোঁজে থাকা পাকিস্তান সাফল্যের মুখ দেখে একাদশ ওভারে। দুই রান নিতে গিয়ে ব্যর্থ হন তামিম। তিনি ক্রিজে পৌঁছার আগেই পাকিস্তানী উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ান স্ট্যাম্প ভেঙে দেন। সাজঘরে ফেরার আগে ৩৪ বলে ৩৯ রান করেন তামিম।

এরপর নাঈম ও লিটন দাসের ব্যাটে বড় সংগ্রহের স্বপ্ন দেখছিল বাংলাদেশ। কিন্তু পরপর দুই বলে দুজনই সাজঘরে ফিরেছেন। ১৩ বলে ১২ করে রান আউট হন লিটন। ইফতেখার আহমেদের ক্যাচে পরিণত হওয়ার আগে নাঈম শেখ খেলেন ৪১ বলে ৪৩ রানের ইনিংস।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও আফিফ হোসেন মিলে বিপর্যয় সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন। তবে ১০ বলে ৯ রান করে হারিস রউফের বলে বোল্ড হন আফিফ। ব্যর্থদের ভীড় থেকে বেরোতে পারেননি সৌম্য সরকারও। শাহিন আফ্রিদীর বলে বোল্ড হওয়ার আগে তিনি করেন ৭ রান।

শেষ দিকে রিয়াদ ও মোহাম্মদ মিথুনের ব্যাটে দেড়শ'র কাছাকাছি যায় বাংলাদেশ। রিয়াদ ১৯ ও মিথুন ৫ রানে অপরাজিত থাকেন। পাকিস্তানের হয়ে একটি করে উইকেট নেন শাহিন আফ্রিদী, হারিস রউফ ও শাদাব খান।

Ads
Ads