বসুন্ধরায় এ বছরই হবে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় স্পোর্টস কমপ্লেক্স: আহমেদ আকবর সোবহান

  • ১৭-জানুয়ারী-২০২০ ০৮:১৩ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বর্ণাঢ্য চোখ-ধাঁধানো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় চালু হলো ‘ঢালী ফিটনেস সেন্টার’। বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বসুন্ধরা গ্রুপ চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান সহধর্মিণী আফরোজা সোবহানকে সঙ্গে নিয়ে ফিতা কেটে এ ফিটনেস সেন্টারের উদ্বোধন করেন। এ সময় বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান উপস্থিত ছিলেন।

ফিটনেস সেন্টারটি উদ্বোধন করে বসুন্ধরা গ্রুপ চেয়ারম্যান বলেন, মানসিকভাবে সুস্থতার পূর্বশর্ত শারীরিক সুস্থতা। এজন্য খেলাধুলা ও শরীরচর্চার বিকল্প নেই। বসুন্ধরা এলাকায় অনেক মাঠ হবে। এখানে সব ধরনের খেলার আয়োজন থাকবে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে বসুন্ধরায় ২৫০ বিঘা জমির ওপর চালু হতে যাচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় স্পোর্টস কমপ্লেক্স। বসুন্ধরা এলাকার সব বাসিন্দা ও আশপাশ এলাকার মানুষ এর সুফল পাবেন।

আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, এখানে অনেক বিদেশি ও আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হয়েছে। সবকিছু মিলিয়ে বাংলাদেশে যদি কোনো পূর্ণাঙ্গ ও পরিকল্পিত আবাসিক এলাকা থাকে সেটা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা। ঢাকা শহরের যেখানেই যাওয়া যায় সেখানেই দেখা যায় যত্রতত্র দোকান, হাসপাতাল, ক্লিনিক অপরিকল্পিতভাবে গড়ে উঠেছে। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় অপরিকল্পিত একটা দোকানও পাওয়া যাবে না। একজন হকারও পাওয়া যাবে না। বসুন্ধরা এলাকার বাসিন্দা ও আশপাশ এলাকার মানুষের সহযোগিতায় এ এলাকাটি দেশের সর্বশ্রেষ্ঠ আবাসিক এলাকায় পরিণত হয়েছে।

তিনি বলেন, একসময় বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ছিল ২৭ বছর। এখন ৭২ বছর। কারণ মানুষ স্বাস্থ্যসচেতন হয়েছে। আমাদের সমাজে মাদকের সমস্যা আছে। মাদক থেকে দূরে থাকতে খেলাধুলার বিকল্প নেই। এখন আমাদের মাঠের অনেক অভাব। শিশুদের খেলাধুলার সুযোগ নেই। এ সমস্যা দূর করতে সরকারের সঙ্গে সঙ্গে ধনীদের এগিয়ে আসতে হবে। বসুন্ধরাবাসী আজ গর্বিত। বসুন্ধরা কিংস ফুটবল ক্লাব গত বছর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে ও এ বছর ফেডারেশন কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আমি আশা করি বসুন্ধরায় আরও অনেক ক্লাব হবে। ক্রিকেট ক্লাব, হকি ক্লাব হবে, বাস্কেটবল ক্লাব হবে। ক্রিকেট একাডেমি হবে। অনেক মাঠ হচ্ছে। বিশ্বের বেশ কয়েকটি বিখ্যাত স্কুল এখানে এসেছে। আন্তর্জাতিক মানের এসব স্কুলে ২০-৩০ হাজার শিক্ষার্থী লেখাপড়া করবে। তখন এমন আরও অনেক ফিটনেস সেন্টারের প্রয়োজন হবে। ঢালী ফিটনেস সেন্টারের সাফল্য কামনা করে তিনি বলেন, এ ফিটনেস সেন্টার থেকে বসুন্ধরার সব বাসিন্দা উপকৃত হবেন। এখানে যে পরিমাণ টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে তা দিয়ে অন্য অনেক ব্যবসা করা যেত। তবু বসুন্ধরাবাসীর মঙ্গলে উনি ঢালী ফিটনেস সেন্টার করেছেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বসুন্ধরা গ্রুপের চিফ ফিন্যানশিয়াল অফিসার (সিএফও) ইমরুল হাসান ও ঢালী ফিটনেস সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আতাউর রহমান ঢালী। এ সময় বসুন্ধরা গ্রুপের উপদেষ্টা ময়নাল হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক এবং নিউজ টোয়েন্টিফোর ও রেডিও ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নঈম নিজাম, কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, ওয়ালটন গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান এস এম নূরুল আলম রিজভী ও বসুন্ধরা গ্রুপের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। সবশেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। শুরুতে আগত অতিথিদের নৃত্যের তালে মাতিয়ে তোলেন অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম। এরপর আতশবাজির আলোয় রঙিন হয়ে ওঠে আকাশ। পরে দর্শকদের একের পর গানে মাতিয়ে তোলেন লালনকন্যা বিউটি। ছিল নৈশভোজের ব্যবস্থা।

Ads
Ads