ডাক্তার তরুণীকে গণধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা: ৪ অভিযুক্তই পুলিশের গুলিতে নিহত

  • ৬-Dec-২০১৯ ১১:০১ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: সীমানা পেরিয়ে ডেস্ক ::

ভারতের তেলেঙ্গানা প্রদেশের রাজধানী হায়দারাবাদে প্রিয়াঙ্কা রেড্ডি নামে এক সুন্দরী ডাক্তার তরুণীকে গণধর্ষণের পর আগুনে পুড়িয়ে হত্যায় অভিযুক্ত ৪ জনই পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে হায়দারাবাদ থেকে আনুমানিক ৫০ কিলোমিটার দূরে শাদনগরের চাতনপালি এলাকায় পুলিশের হেফাজত থেকে পালানোর সময় পুলিশের গুলিতেই তারা নিহত হন।

নিহত ৪ অভিযুক্ত হলেন- আলিয়াস আরিফ, জল্লু শিবা, জল্লু নবীন ও চেন্নাকেসাভুলু। অভিযুক্তদের প্রত্যেকের বয়স ২০ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে।

এর আগে গত ২৯ নভেম্বর তরুণী পশু-চিকিৎসককে ধর্ষণপূর্বক পুড়িয়ে হত্যার মামলায় তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, তদন্তের জন্য অভিযুক্ত চারজনকে ঘটনাস্থলে নিয়ে গিয়েছিল পুলিশ। সেখান থেকেই তারা পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশের গুলিতে তাদের মৃত্যু হয়। 

তাদের নিহতের বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো না হলেও হায়দারাবাদ পুলিশের একজন উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‍দ্রুতই এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে গেল ২৭ নভেম্বর রাতে হায়দারাবাদের সামশাবাদ টোল প্লাজা এলাকায় ওই চিকিৎসক তরুণীকে ধর্ষণ করে চার যুবক। ধর্ষণের পর তরুণীকে হত্যা করে তার মরদেহ পুড়িয়ে ফেলা হয়।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হয়েছে, ২৭ নভেম্বর সকালে সামশাবাদ টোলপ্লাজার সামনে স্কুটি রেখে এক চিকিৎসকের সঙ্গে দেখা করতে যান ওই চিকিৎসক তরুণী। রাত সাড়ে ৯টার দিকে ফিরে দেখেন তার স্কুটির চাকা পাংচার হয়ে আছে। এসময় দুজন লরিচালক ও খালাসি তরুণীর কাছে আসে এবং তার স্কুটির চাকা সারিয়ে দেয়ার কথা বলে। 

তরুণী তাদের কথায় বিশ্বাস করেন। তখন তারা স্কুটি সারাতে নিয়ে যান। পরক্ষণেই গ্যারেজ বন্ধ থাকার কথা বলে স্কুটি নিয়ে ফিরে আসেন। ওই সময়টাতে বোনের সঙ্গে ফোনে কথা বলছিলেন ওই তরুণী। তিনি শেষবারের মতো তার বোনকে বলেন- ‘আমার খুব ভয় লাগছে’।

ঘটনা আঁচ করার আগেই ধর্ষকরা তরুণীকে টেনেহিঁচড়ে অন্য জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানে একে একে চারজন তাকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ফলেই তরুণীর মৃত্যু হয়। মৃত্যু নিশ্চিত হলে তরুণীর লাশ লরির কেবিনে তুলে নিয়ে গিয়ে স্থানীয় একটি ব্রিজের নিচে পেট্রোল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয়। 

ধর্ষণকারীরা রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানিয়েছে, লরিতে তুলে নেয়ার সময় মৃত জেনেও আবারও একে একে চারজনে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে। 

Ads
Ads