মুন্সীগঞ্জে নিহতদের ৪ জন একই পরিবারের

  • ২২-Nov-২০১৯ ০৬:১৯ অপরাহ্ন
Ads

 

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষে এক পরিবারের ৫ জনসহ ৯ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার ষোলঘর এলাকার ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা থেকে মাওয়ামুখী স্বাধীন পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো ব ১৪-৮১৯৪) বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসের (ঢাকা মেট্রো চ ১৫-৫৫৬৬) মুখমুখি সংঘর্ষে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে বাসের বেশ কয়েকজন যাত্রীও আহত হন। এর মধ্যে চারজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

নিহতরা হলেন, বর রুবেলের বাবা আবদুর রশিদ বেপারী (৭০), বোন লিজা (২৪) ভাগনী তাবাসসুম (৬) ও রেনু (১২), মাইক্রোবাস চালক বিল্লাল (২৮), যাত্রী কেরামত বেপারী (৭১), মফিজুল মোল্লা (৬০) ও তাহসান (৫)। অপর অজ্ঞাত ২ জন ঢাকায় নেয়ার পথে মারা যান।

জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বলেন, এ ঘটনায় মাইক্রোবাসের চালকসহ ১০ জন নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে ৬ জন দুর্ঘটনাস্থলে, দুই জন ষোলঘর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও দুই জন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। গুরুতর আহত আছেন আরও দুইজন। এছাড়া আরও কয়েকজন আহত রয়েছেন।

তিনি আরো জানান, মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলা থেকে মাইক্রোবাসটি ঢাকা অভিমুখে যাচ্ছিল। মাইক্রোবাসের সবাই ছিল বরযাত্রী। তবে, তারা সবাই একই পরিবারের ছিল কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

হাঁসাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আব্দুল বাসেদ বলেন, মাওয়াগামী স্বাধীন পরিবহনের বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঢাকাগামী মাইক্রোবাসের ওপরে গিয়ে পড়লে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মাইক্রোবাসের আরোহীরা সবাই আত্মীয়-স্বজন ছিল। কিন্তু একই পরিবারের ছিল কিনা জানা যায়নি। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। তারা লৌহজংয়ের কনকসার ইউনিয়নের বাসিন্দা ছিল বলে প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি।

শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হেদায়েতুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, আট জনের মরদেহ শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আছে। আর দুইজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন বলে জানা গেছে। মাইক্রোবাসে কতজন যাত্রী ছিল তাও এখনো সঠিক জানা যায়নি।

তারা সবাই বিয়ের অনুষ্ঠানে ঢাকার কামরাঙ্গীরচরে যাচ্ছিলেন বলে জানা গেছে। বরের নাম রুবেল বেপারী। তিনি পেছনের গাড়িতে ছিলেন।

Ads
Ads