প্রধানমন্ত্রীর বিবাহ বার্ষিকী আজ

  • ১৮-Nov-২০১৯ ০২:৩২ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা ও আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৫৩ তম বিবাহ বার্ষিকী আজ।

১৯৬৭ সালের ১৭ ই নভেম্বর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন প্রচার বিমুখ বিজ্ঞানী মরহুম ডঃ এম এ ওয়াজেদ আলী মিয়া (সুধা মিয়া) এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের তনয়া আজকের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।

তাই আজকের এইদিনে আমরা শ্রদ্ধাভরে স্মরন করছি, প্রচার বিমুখ বিজ্ঞানী মরহুম ডঃ এম এ ওয়াজেদ আলী মিয়াকে (সুধা মিয়া) যিনি সুখে-দুখে আগলে রেখেছিলেন বঙ্গবন্ধু পরিবারকে। আজকের এই দিনটিতে বিবার্তা পরিবারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানাই শুভেচ্ছা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়াজেদ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠা কন্যা। তিনি জন্ম গ্রহণ করেন ২৮ সেপ্টেম্বর, ১৯৪৭ সালে। তাঁর মাতার নাম বেগম ফজিলাতুন নেসা।

শেখ হাসিনা ওয়াজেদ বর্তমানে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের সরকারদলীয় প্রধান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী।

তিনি ১৯৭৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। স্নাতকের ছাত্রী থাকা অবস্থাতেই ১৯৬৭ সাথে তাঁর বিয়ে হয়। ২০১১ সালে বিশ্বের সেরা প্রভাবশালী নারী নেতাদের তালিকায় ৭ম স্থানে রয়েছেন আমাদের বর্তমান এই প্রধানমন্ত্রী।

অপরদিকে ডঃ এম.এ ওয়াজেদ মিয়া ডাক নাম সুধা মিয়া। তিনি ১৬ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪২ খ্রিষ্টাব্দে রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার ফতেহপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা আব্দুল কাদের মিয়া এবং মাতা ময়েজুন্নেসা। তিন বোন ও চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি সর্বকনিষ্ঠ।

মানসম্মত লেখাপড়ার জন্য ওয়াজেদ মিয়াকে রংপুর জিলা স্কুলে ভর্তি করানো হয়। সেখান থেকেই তিনি ডিসটিনকশনসহ প্রথম বিভাগে মেট্রিকুলেশন পাশ করেন।

গত ১৯৫৬ সালে রংপুর জিলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাশ করার পর ১৯৫৮ সালে রাজশাহী সরকারি কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করেন তিনি। এরপর ১৯৬২ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে এমএসসি পাশ করেন এবং ১৯৬৭ সালে লন্ডনের ডারহাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন।

ডক্টরেট ডিগ্রি লাভের পর, দেশে ফিরে একই বছর ১৭ নভেম্বর শেখ হাসিনা ও তিনি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। সজীব ওয়াজেদ জয় (পুত্র) ও সায়মা ওয়াজেদ পুতুল (কন্যা) নামে এই দম্পতির দু’টি সন্তান রয়েছে।

ডঃ এম.এ ওয়াজেদ মিয়া দীর্ঘদিন কিডনি সমস্যাসহ হৃদরোগ ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। ২০০৯ সালের ৯ই মে বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটে তিনি ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ৬৭ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

Ads
Ads