ট্রেন দুর্ঘটনা ও পেঁয়াজের দাম নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী

  • ১৫-Nov-২০১৯ ০২:০১ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

পরপর দুটো ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে কোনো ষড়যন্ত্র আছে কি না তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, একটা ঘটনা ঘটলে দেখা যায় এর পুনরাবৃত্তি ঘটে। সেটা কেন হয়, ভেবে দেখতে হবে। ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে অন্য কোনো দুরভিসন্ধি বা চক্রান্ত আছে কি না, তা তদন্ত করা হবে এবং যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) একাদশ জাতীয় সংসদের পঞ্চম অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় দুটি ট্রেনের সংঘর্ষে ১৬ জনের মৃত্যুর দুদিন না যেতেই আজ সিরাজগঞ্জে ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে আগুন ধরার ঘটনার পর প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এ বক্তব্য এলো।

বক্তব্যে দেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি সাম্প্রতিক বিভিন্ন বিষয় নিয়েও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় যে দুর্ঘটনা ঘটেছে, সেখানে চালক কুয়াশার কারণে সিগন্যাল দেখতে পাননি। এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে তিনি বলেন, আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সরকার ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর পাশে আছে। আজ রংপুর এক্সপ্রেস সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় দুর্ঘটনা কবলিত হয়েছে। এতে কেউ নিহত হননি। কয়েকজন আহত হয়েছেন। শীত এলে ট্রেন দুর্ঘটনা বেড়ে যায়, এ বিষয়ে কী করা যায় সরকার তা দেখবে।

প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, বিএনপি রেল যোগাযোগ বন্ধ করে দিতে চেয়েছিল। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে রেল সম্প্রসারিত করছে। পুরোনো রেল লাইনগুলো মেরামত করা হচ্ছে। নতুন লাইন করা হচ্ছে।

এর আগে বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ তাঁর বক্তব্যে রেল দুর্ঘটনার প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, যেখানে সাধারণ ট্রেন চালানো যাচ্ছে না, সেখানে পাতাল রেল, মেট্রোরেল কীভাবে চলবে?

এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ট্রেনের একটা দুটা দুর্ঘটনা হয়েছে, সে জন্য ট্রেন বন্ধ করে দিতে হবে? গাড়িতেও দুর্ঘটনা হয় সে জন্য কী গাড়ি বন্ধ করে দিতে হবে? তাহলে বিরোধী দলীয় নেতা কি গাড়িতে চড়া বন্ধ করে দেবেন? প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাথা ব্যথার কারণে মাথা কেটে ফেলা যাবে না। দুর্ঘটনা রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর কোন দেশে পেঁয়াজ পাওয়া যায় সেটা খোঁজ নিয়ে আমরা নিয়ে আসার ব্যবস্থা নিচ্ছি। ইতোমধ্যেই পাঁচ হাজার মেট্রিকটন এলসি খোলা হয়েছে। সেখানে লোক চলে গেছে। কিছু দিনের মধ্যেই চলে আসবে।

মুজিবুল হক চুন্নুর বক্তব্যের জবাবে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের এক সংসদ সদস্য বলেছেন- ইন্ডিয়ায় নাকি পেঁয়াজের কেজি আট টাকা। মাননীয় স্পিকার এটা ইন্ডিয়ার একটি স্টেটে। অন্য কোনো স্টেটে তারা সেই পেঁয়াজ যেতে দিচ্ছে না। অন্যান্য জায়গায় ১০০ টাকা রুপি।

তিনি বলেন, তাদেরই পেঁয়াজের অভাব এবং তারা আমদানি করছে। তারপরও আমার অনুরোধে যেসব এলসি খোলা হয়েছিল সে পেঁয়াজগুলো আমরা আনতে পেরেছিলাম। কিন্তু আমাদের দেশে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। পেঁয়াজ কিন্তু আছে তা দেখা যাচ্ছে। আমরা টানা অভিযান চালিয়েছি। দেখা যাচ্ছে পেঁয়াজ পচে যাচ্ছে। কিন্তু পেঁয়াজ বাজারে ছাড়ছে না। এ জন্য আমরা টিসিবির মাধ্যমে বিভিন্ন অঞ্চলে পেঁয়াজ বিক্রি করছি। পাশাপাশি আমরা বিদেশ যেমন তুরস্ক ও মিশর থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু করেছি। সেখানে আমাদের কর্মকর্তারা চলে গেছেন।

তিনি আরও বলেন, আমি নির্দেশ দিয়েছি আসার সাথে সাথেই জেলায় জেলায় ট্রাকে করে চলে যাবে। এ ব্যাপারে আমরা যথেষ্ট সচেতন আছি যাতে এই সমস্যাটা না হয়।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে আসলে শুধুমাত্র একটি মৌসুমে পেঁয়াজ উৎপাদন হয়। ১২ মাস যাতে হতে পারে সেভাবে উদ্ভাবন করেছেন আমাদের বিজ্ঞানীরা। আমরা ভবিষ্যতে এই পেঁয়াজের বীজ বাজারজাত করব। সে সময় আর কারও মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হবে না। আমাদের নিজের চাহিদা আমরা নিজেরাই উৎপাদন করতে পারব।

Ads
Ads