রোহিঙ্গার জন্য প্রস্তুত ভাসানচর: ত্রাণমন্ত্রী

  • ১১-Oct-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

নোয়াখালীর ভাসান চরে ২৫ হাজার রোহিঙ্গা পরিবারকে নেওয়ার প্রস্তুতি শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, সেখানে ২৫ হাজার হাজার পরিবারকে নিতে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ত্রাণমন্ত্রী বলেন, সব রেডি, প্রধানমন্ত্রী যেদিন বলবেন, সেদিনই। আমরা প্রস্তুত।

এত অল্প সময়ের মধ্যে রোহিঙ্গাদের আবাসন নির্মাণ করায় নৌবাহিনীকে ধন্যবাদ জানান মায়া।

ত্রাণমন্ত্রী বলেন, ভাসানচরে এক লাখ রোহিঙ্গাকে ‘অস্থায়ীভাবে’ রাখা হবে। তারা মিয়ানমারের নাগরিক। ওই দেশের নাগরিক হিসেবে সম্মানের সঙ্গে দেশে ফিরে যাবে, এটাই আমরা চাই।

তিনি বলেন, যখন রোহিঙ্গারা আসে তখন ছিল হাড্ডিসার, কাপড় ছিল না, চেহারা ছিল না, …বস্ত্র নেই, কিচ্ছু নেই। ওদের দেখলে … এখন যদি যান দেখেন কী অবস্থা, হৃষ্টপুষ্ট আছে।

এক লাখ রোহিঙ্গার জন্য তৈরি ভাসানচরে অবকাঠামো নির্মাণসহ যে আশ্রয়ণ প্রকল্প সরকার বাস্তবায়ন করছে তা গত ৪ অক্টোবর উদ্বোধন করার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রীর। কিন্তু সময়স্বল্পতায় তিনি এখনো ভাসানচরে যাননি।

গত বছরের শেষ দিকে একনেকে ২৩১২ কোটি টাকার প্রকল্প পাস হয়। এর আওতায় মোটামুটি ১০ হাজার একর আয়তনের ওই চরে এক লাখের বেশি মানুষের বসবাসের জন্য ১২০টি গুচ্ছ গ্রামে ১ হাজার ৪৪০টি ব্যারাক হাউস ও ১২০টি আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের কাজ শুরু হয়।

হাতিয়া থানাধীন চর ঈশ্বর ইউনিয়নের ভাসানচরে এই আশ্রয়ণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। পুরোপুরি সরকারি অর্থায়নের এ প্রকল্পের কাজ ২০১৯ সালের নভেম্বরের মধ্যে শেষ করার লক্ষ্য নির্ধারিত আছে।

 

/কে 

Ads
Ads