নয়াপল্টনে খোকার জানাজায় মানুষের ঢল

  • ৭-Nov-২০১৯ ০৩:২৫ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

একাত্তরের রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার দেশে দ্বিতীয় জানাজায় হাজার হাজার মানুষের ঢল নেমেছে। বাদ জোহর রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে দলের ভাইস চেয়ারম্যানের মরদেহে দলীয় পতাকা ও ফুল দিয়ে বিএনপির ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা শেষ শ্রদ্ধা জানান।

বৃহস্পতিবার বাদ যোহর রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কার্যালয়ের সামনে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের শেষ মেয়র মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার লাশবাহী কফিন রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নেয়া হলে সেখানে কান্নায় ভেঙে পড়েন তার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মীরা। এ সময় সেখানে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। প্রিয় নেতাকে শেষ বিদায় জানাতে ঢাকা ও আশপাশের এলাকা থেকে জড়ো হন কয়েক হাজার মানুষ। লোকে লোকারণ্য হয়ে ওঠে নয়াপল্টন এলাকা।

রাজধানীর নয়াপল্টন, ফকিরাপুল, কাকরাইল এলাকার সড়কে ছড়িয়ে পড়ে মানুষের সমাগম। এ সময় ওই এলাকার সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

জানাজায় বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মো. শাহজাহান, শামসুজ্জামান দুদু, নিতাই রায় চৌধুরী, রুহুল কবির রিজভী, মাহবুব উদ্দিন খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, ফজলুল হক মিলন, এমরান সালেহ প্রিন্স, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীসহ দলটির অঙ্গ-সহযোগি সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জানাজার নামাজের আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সাদেক হোসেন খোকা যে সময় মারা গেলেন তখন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া মিথ্যা মামলায় কারাগারে। খোকাবে শেষ দেখা তিনি দেখতে পেলেন না। আর আমরা খোকার এই অকালে চলে যাওয়ার বহু দু:খ প্রকাশ করছি।

ফখরুল বলেন, সাদেক হোসেন খোকা চলে যাওয়ায় বিএনপিতে শুন্যতা সৃষ্টি হলো তা পূরণ হওয়ার নয়।

এর আগে খোকার প্রথম জানাজা জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়। পরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষ শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন একাত্তরের এই গেরিলা যোদ্ধাকে।

 

/কে 

Ads
Ads