কনফারেন্স সিস্টেম কি? কোথায় ব্যাবহার হয়

  • ৩-Nov-২০১৯ ০৬:২৮ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

কনফারেন্স সিস্টেম হলো এমন এক ধরনের সিস্টেম যা কোন কক্ষের জন্য বিশেষ ভাবে ডিজাইন করা আরামদায়ক ভাবে একাধিক মানুষের সাথে আলোচনা করার জন্য একটি সিস্টেম। কনফারেন্স সিস্টেমে অডিও, ভিডিও, মাল্টিমিডিয়া ও ভোটিং সিস্টেম যুক্ত থাকে, যার ফলে আলোচনা সভা হয় আরো সহজ ও আরামদায়ক। তাই কনফারেন্স সিস্টেমকে আলোচনা সিস্টেমও বলা হয়। যাকে আমরা অফিসিয়াল ভাষায় মিটিং বলে থাকি। এই মিটিং বা আলোচনা সভাকে আরো সহজ ও আরামদায়ক করার জন্যই কনফারেন্স সিস্টেমের ব্যবহার হয়।

যে সকল স্থানে কনফারেন্স সিস্টেমগুলো ব্যবহার হয়

বর্তমানে আমরা সাধারণত ভালো মানসম্মত সরকারী অফিস বা সরকারি কাজে , ব্যবসায়িক অফিস, ব্যাংক , শিক্ষা ও চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে কনফারেন্স সিস্টেম ব্যবহার করতে দেখি। এছাড়াও আরো কিছু স্থানে কনফারেন্স সিস্টেমের ব্যবহার হলো:-

  • সম্মেলন কক্ষে
  • অফিস বা অন্য কোন সভা কক্ষে
  • শ্রেণি কক্ষে
  • প্রেস সেন্টারে

কনফারেন্স সিস্টেমের সক্ষমতা সুবিধা

  • সকল অংশগ্রহণকারীদের সনাক্ত করার সক্ষমতা।
  • অংশগ্রহণকারীদের ভোট গ্রহনের সুবিধা।
  • মাইক্রোফোন ও স্পিকার থাকায় অনেক সদস্য বিশিষ্ট আলোচনা সভা হলেও সবাই খুব সহজেই সবার কথা শুনতে পায় এবং বলতে পারে।
  • ভিডিও কনফারেন্সের সুবিধা রয়েছে।
  • একাধিক স্থানে বা কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হলেও সবাই একসাথে শুনতে ও বলতে পারবে। এছাড়াও ভিডিও কনফারেন্স যুক্ত করে দিলে দেখতেও পারবে।

কনফারেন্স সিস্টেমের প্রকারভেদ

কনফারেন্স সিস্টেম সাধারণত দুই প্রকার যেগুলো হলো :- তারযুক্ত কনফারেন্স ও তারবিহীন কনফারেন্স বা ওয়ারলেস কনফারেন্স।

/ তার যুক্ত কনফারেন্স : যে কনফারেন্সে প্রতিটি ডিভাইস (যেমন: মাইক্রোফোন, স্পিকার, প্রজেক্টর সিস্টেম ইত্যাদি) যদি তারের মাধ্যমে সংযুক্ত থাকে তাহলে তাকে তারযুক্ত কনফারেন্স বলে। এটি সাধারণত কোন অফিস বা কোন প্রতিষ্ঠানের স্থায়ী কনফারেন্স রুমের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত। তারযুক্ত কনফারেন্সের কিছু বৈশিষ্ট্য :-

  • স্থায়ীত্ব বেশি ।
  • তুলনামূলক ব্যয় কম।
  • এটি সঠিকভাবে ইনস্টল করতে হলে পেশাদার সহযোগিতা দরকার।
  • মূল কনফারেন্স সিস্টেম হিসেবে ব্যবহারীত হয়।

/ তাবিহীন কনফারেন্স বা ওয়ারলেস কনফারেন্স : যে কনফারেন্সে প্রতিট ডিভাইস তারবিহীন ভাবে ওয়াইফাই বা বুটুথ এর মাধ্যমে সংযুক্ত থাকে তাকে তারবিহীন বা ওয়ারলেস কনফারেন্স বলে। এই কনফারেন্স সিস্টেম সাধারণত ভাড়া দান কারী সংস্থার কাছে সবচেয়ে বেশি দেখতে পাওয়া যায়। এর কিছু বৈশিষ্ট্য হলো:-

  • তুলনামূলক স্থায়ীত্ব কম।
  • তারযুক্ত কনফারেন্স এর তুলনায় খরচ বেশি।
  • এটা সাধারণত মূল কনফারেন্স সিস্টেমটি নষ্ট বা খারাপ হয়ে গেলে অস্থায়ীভাবে ব্যবহারীত হয়

বাংলাদেশে বর্তমানে অনলাইন শপ গুলোতে কনফারেন্স সিস্টেম পাওয়া যাচ্ছে। কনফারেন্স সিস্টেম এর মূল্য ২১ হাজার টাকা থেকে শুরু।

তথ্যসূত্রঃ বিডিস্টল, লিটার

Ads
Ads