ভয় শব্দটি আমার অভিধানে নেই: প্রধানমন্ত্রী

  • ২৯-Oct-২০১৯ ০৫:১৫ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

‘ভয় শব্দটি আমার অভিধানে নেই’ বলে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সব কথা শুনলে রাষ্ট্র চালাবো কখন। ভয় শব্দটা আমার অভিধানে নেই। আমি যখন এ দেশে পা দিয়েছি তখন আমি ভেবেছি আমার পরিবারের হত্যাকারীরা এ দেশের ভালো ভালো যায়গায় আছে। আমাকে যে কোনো সময় হত্যা করতে পারে। আর সব ভেবেই আমি এ পর্যন্ত এসেছি। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর দেশের মানুষ উন্নয়নের ছোঁয়া পাচ্ছেন।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সম্প্রতি আজারবাইজান সফর নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

চলমান দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে বিরোধী দলের বিষয়টি কিভাবে দেখছেন এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভয় পেলে আমি এই অভিযানে নামতাম না। অপরাধী কোন দলের তা বিষয় না। অপরাধী অপরাধীই। কোন দল কি বলল সেটা বিবেচ্য না। যারা বলছেন তারাই তো দুর্নীতির খনি। বিএনপির কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সে দলের চেয়ারম্যান দুর্নীতির দায়ে কারাগারে। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানও দুর্নীতির দায়ে পলাতক। যে দলে এতো দুর্নীতিবাজ রয়েছে তারা আবার কি বলবে। তারা কোন সাহসে কথা বলে?

দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলমান অভিযানকে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এ অভিযান করে আইওয়াশ করা হচ্ছে, আসলে বিষয়টা কি এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আইওয়াশের ব্যবসা বিএনপি ভালো জানে। যারা অপরাধী আমরা তাকেই ধরছি। এটা আইওয়াশ হয় কেমন করে। জিয়াউর রহমানের সময় এসব হতো। আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর তারা অত্যাচার করতো। এরশাদ সাহেব আরো একধাপ এগিয়ে ছিলেন। আমরা আসার পর দুর্নীতি কমছে।

তিনি বলেন, সকল জনগণ আমাদের সমর্থন দিয়েছেন। আমরা দেশ চালাতে এসেছি। আমরা কাউকে ধরে কারো থেকে কমিশন আদায় করি না।

এ সময় তিনি বলেন, খেলার সাথে ক্যাসিনোর কোনো সম্পর্ক নেই। যারা জড়িত তাদের ধরা হয়েছে। আগে কোনো সংবাদে দেখিনি দেশে ক্যাসিনো খেলা হয়। কোথাও কোনো নিউজ পাইনি আমি। আপনারা (সাংবাদিকরা) এত খবর রাখেন কিন্তু ক্যাসিনো নিয়ে কোনো কিছু লিখেননি কেন। আপনারা জাতিকে কি জবাব দেবেন।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, বেসরকারি চ্যানেল প্রায় ৩৪ টা চালু আছে। কোনো সংবাদ মাধ্যমে কখনো ক্যাসিনোর সংবাদ দেখিনি। দেশে ক্যাসিনোর মতো একটা ঘটনা ঘটে গেলো কেউ জানে না! এটা কোনো কথা হলো। তাই বলি কে কখন ধরা পড়ে তাতো বলা যায় না। খেলার সাথে ক্যাসিনোর কোনো সম্পর্ক নেই।

সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্যদের পাশাপাশি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত আছেন।

শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী এবারের ন্যাম সম্মেলনে তার অভিজ্ঞতার কথা সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন।

১২০টি উন্নয়নশীল দেশের ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে ২৪ থেকে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত আজারবাইজান সফর করেন প্রধানমন্ত্রী। আজারবাইজানের রাজধানী বাকুর বাকু 'কংগ্রেস সেন্টার'-এ ২৫ ও ২৬ অক্টোবর দুই দিনব্যাপী এ ন্যাম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

 

/কে 

Ads
Ads