ফেনীতে ছাত্রলীগ ও ময়মনসিংহে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

  • ১-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

ফেনীতে ইফতি নামে এক ছাত্রলীগ নেতা এবং ময়মনসিংহে শেখ আজাদ নামে মহানগর যুবলীগের এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

আমাদের প্রতিনিধির পাঠানো খবর অনুযায়ী:

ফেনী: ফেনীতে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে ইফতি নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

বুধবার (০১ আগস্ট) ভোরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়। নিহত ইফতি ফেনী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ কমিটির নেতা।

ফেনী মডেল থানা পুলিশ ও কলেজ ছাত্রলীগ নেতাদের সূত্রে জানা যায়, রোববার দুপুরে ফেনী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ কমিটির নেতা ইফতির সঙ্গে স্থানীয় কয়েক যুবকের বাকবিতণ্ডা হয়।

বিকালে ফেনী পৌরসভা ক্যাম্পে পৌর ছাত্রলীগের ২নং ওয়ার্ড কমিটির সম্মেলন শেষে বাসায় ফিরছিলেন ছাত্রলীগ নেতা ইফতি। পথে পৌরসভার গেটে শহরের নাজির রোডে রায়হানের নেতৃত্বে চার যুবক তার পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। ইফতি মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।
 
পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন এবং অবস্থার অবনতি হলে রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। বুধবার ভোরে চট্টগ্রামে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়।

ফেনী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তোফায়েল আহম্মদ তপু ও সাধারণ সম্পাদক রবিউল হক রবিন জানান, হামলাকারীরা ফেনী সরকারি কলেজের কোনো ছাত্র নয়। তাদের ভাড়া করে এনে এ হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনায় ফেনী মডেল থানায় মামলা করা হলেও পুলিশ এখনও কোনো অপরাধীকে গ্রেফতার করতে পারেনি। তারা অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

ফেনী মডেল থানার ওসি রাশেদ খান চৌধুরী জানান, ঘটনার পর থেকে পুলিশ অপরাধীকে গ্রেফতারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহে শেখ আজাদ নামে মহানগর যুবলীগের এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) বেলা ৩টার দিকে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। শেখ আজাদকে কুপিয়ে হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) খন্দকার শাকের আহমেদ।

তিনি জানান, বেলা ৩টার দিকে মহানগরীর আকুয়া নাজিরবাড়ি মসজিদের পেছনে আগে থেকেই দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকজন দুর্বৃত্ত শেখ আজাদকে একা পেয়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় শেখ আজাদকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, যুবলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল এবং এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে শেখ আজাদ ও যুবলীগ নেতা শেখ ফরিদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল।

ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম জানান, শেখ আজাদ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের গ্রেফতার করতে পুলিশ মাঠে নেমেছে।

/ই

Ads
Ads