‘ভ্যাকসিন হিরো’ প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন

  • ২৫-Sep-২০১৯ ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ড. কাজী এরতেজা হাসান :: 

বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার শুধু অবকাঠমগত ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে নিরলস কাজ করে চলেছে তা নয়, বরং একটি যুগোপযোগী, আধুনিক স্বাস্থ্যনীতির মাধ্যমে দেশবাসীকে সুরক্ষা দিয়ে চলেছে। শিশুস্বাস্থ্য খাতে বিশেষ নজরদারিতে কমেছে শিশুমৃত্যুর হার। সুস্থ রয়েছেন মায়েরাও। টিকাদান কর্মসূচির মাধ্যমে শিশুর বিশেষ রোগবালাই থেকে মুক্ত রাখতে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা এই সরকারের সব সময়ই আছে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে শিশুদের টিকাদান কর্মসূচিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মর্যাদাপূর্ণ ‘ভ্যাকসিন হিরো’ পুরস্কার পেয়েছেন। জাতিসংঘ সদর দফতরে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক বিশ্বব্যাপী টিকাদান সংস্থা গ্লোবাল-দ্য ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স’-এর চেয়ারম্যান ড. এনগোজি ওকনজো-আইওয়েলা স্থানীয় সময় সোমবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘ভ্যাকসিন হিরো’ পুরস্কারটি প্রদান করেন। 

বিশ্বব্যাপী কোটি কোটি শিশুর সুরক্ষায় জিএভিআইকে সহযোগিতা এবং এর অংশীদার হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের মাধ্যমে যারা ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স মিশনে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করেছেন সেই বৈশ্বিক ব্যক্তিত্বদের মর্যাদার স্বীকৃতি প্রদানে জিএভিআই ‘ভ্যাকসিন হিরো’ এওয়ার্ড প্রবর্তন করেছে। এই এওয়ার্ড তাদের জন্য যাদের সুস্পষ্ট লক্ষ্য রয়েছে এবং যারা জরুরিভিত্তিতে শিশুর জীবন রক্ষাকারী ভ্যাকসিন কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন এবং কোনো শিশু ভ্যাকসিনেশন থেকে বাদ না পড়ে সেটি নিশ্চিত করেছেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শিশু অধিকার রক্ষা এবং নারীর ক্ষমতায়নের পাশাপাশি টিকাদান কার্যক্রমে শেখ হাসিনা সত্যিকার একজন সফল ব্যক্তিত্ব। এই কথা ‘গ্লোবাল-দ্য ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স’ও বলেছে। শিশুদের টিকাদান পরিস্থিতির উন্নয়নে অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ এর আগে ২০০৯ ও ২০১২ সালে জিএভিআই অ্যালায়েন্সের এওয়ার্ডে ভূষিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ভ্যাকসিন হিরো’ পুরস্কারপ্রাপ্তিতে অভিনন্দন জানিয়েছে আওয়ামী লীগ। এছাড়া বাংলাদেশের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিষ্ঠান প্রধান, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও বেসরকারি সংস্থার নেতৃবৃন্দও তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে শিশুদের টিকাদান কর্মসূচিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মর্যাদাপূর্ণ ‘ভ্যাকসিন হিরো’ পুরস্কারপ্রাপ্তিতে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানিয়েছেন। বর্তমান সরকার একটি যুগোপযোগী, আধুনিক স্বাস্থ্যনীতি প্রণয়ন করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেছেন, ‘এই নীতির আওতায় দেশের সকল শিশুদের জন্য শতভাগ টিকাদান কর্মসূচি সাফল্যের সঙ্গে সম্পন্ন করেছে। ফলে বাংলাদেশে আজ মা ও শিশু মৃত্যুহার উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পেয়েছে।’ 

জিএভিআই বোর্ড সভাপতি ড. এনগোজি অকোনজো ইবিলার কাছ থেকে এই পুরস্কার গ্রহণ করেই প্রধানমন্ত্রী তা বাংলাদেশের জনগণের জন্য উৎসর্গ করেন। জনদরদি প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘আজ যে পুরস্কার গ্রহণ করলাম সে পুরস্কার আমার নয়। এটা বাংলাদেশের জনগণের এবং আমি তাদেরকেই এই পুরস্কার উৎসর্গ করলাম।’ প্রধানমন্ত্রী একইসঙ্গে দেশবাসীর প্রতি তাদের শিশুদের সুস্বাস্থ্যের জন্য টিকা দান কর্মসূচি অব্যাহত রাখার আহবান জানান। তিনি বলেন, ‘আগামীর শিশুরা সুস্বাস্থের অধিকারী হয়ে দেশ পরিচালনা করবে এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। একটি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য সুস্বাস্থ্যের অধিকারী প্রজন্মের অত্যন্ত প্রয়োজন।’ তিনি আরও বলেন, ‘সুস্বাস্থ্যের অধিকারী নতুন প্রজন্মই কেবল পারে জাতির পিতার স্বপ্নের উন্নত-সমুদ্ধ সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণ করতে।’ দেশ থেকে পোলিও, কলেরা সহ বিভিন্ন সংক্রামক ব্যাধি দূর করা হয়েছে এবং এই বিষয়ে ‘জিএভিআই’র সহযোগিতা পাওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি রূপকল্প ২০২১ এবং ২০৪১ অনুযায়ী সকলের জন্য মৌলিক স্বাস্থ্যসেবা ও পরিপূর্ণ পুষ্টি নিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। 
‘ভ্যাকসিন হিরো’ বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমরা জানাই আন্তরিক অভিনন্দন।  

Ads
Ads