ঢাবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ

  • ২৩-Sep-২০১৯ ০২:৩০ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ছাত্রদলের সঙ্গে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়েছে। সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে টিএসসির ডাসের সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্রদলের ৩০-৪০ জন কর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে ছাত্রদল। এর মধ্যে ৮ জনের অবস্থা গুরুতর। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (এসএমএমইউ) ও ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই দলের সহঅবস্থানের ঘোষণা দেওয়ার পর দিনই এ ঘটনা ঘটলো। তবে ছাত্রলীগ হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

ছাত্রদলের অভিযোগ, সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তারা মধুর ক্যান্টিন থেকে বের হয়ে হাকিম চত্বরে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে কথা বলছিল। এসময় ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস এসে তাদের ক্যাম্পাস থেকে দ্রুত চলে যেতে বলেন এবং তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। পরে তারা ডাসের সামনে গিয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন। এসময় সেখানে প্রায় ২০০ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলা শেষে ৪০-৫০ নেতাকর্মী সেখানে ছিলেন। তখন ২০-২৫ ‘জয়বাংলা’ স্লোগান দিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়ে। তাদের হাতে রড, স্ট্যাম্প ও লাঠি ছিল।

সঞ্জিতের অনুসারীরা এ হামলা চালিয়েছে বলে তারা অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে সঞ্জিত বলেন, ‘আমরা কাউকে হামলার নির্দেশ দেইনি। এ হামলার সঙ্গে ছাত্রলীগ জড়িত না। বিষয়টি আমি ফোনে জানতে পেরেছি।’

হামলার সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল। ঢামেকে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমরা স্পষ্ট দেখেছি জয়বাংলা বলে আমাদের ওপর হামলা করা হয়েছে। আমাদের ৩০-৪০ জন কর্মী আহত হয়েছেন।’

দুপুর ১টার দিকে হামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা হাসপাতালে এসে ভিড় করেছে।   

হামলার ঘটনায় তিনজন সাংবাদিকদের লাঞ্ছিত হয়েছেন। তাদের ফোন কেড়ে নেওয়া হয়েছে। তারা হলেন, আনিসুর রহমান, রাহাতুল ইসলাম রাফি ও আফসার মুন্না।

Ads
Ads