শনিবার ২ মার্চ ২০২৪ ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

শিরোনাম: বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডে সংবাদকর্মীর মৃত্যু    স্মরণকালের শ্রেষ্ঠ দাবানলে জ্বলছে টেক্সাস    ছাত্রদলেরে নয়া কমিটি ঘোষণা    বেইলী রোডে অগ্নিকান্ডে নিহতদের মধ্যে যাদের পরিচয় পাওয়া গেছে     নতুন মন্ত্রিসভায় ডাক পেলেন যারা    বেইলি রোডের আগুনে দগ্ধদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী    বেইলি রোডে আগুন: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৫ জন   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
বন্ধুবর ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী কাছে থেকে দেখা এক আলোর ফোয়ারা
সৈয়দ আনোয়ার আবদুল্লাহ
প্রকাশ: রোববার, ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১২:০৩ এএম | অনলাইন সংস্করণ

মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী। আগামি কাল যার দুআ'য় আমিন আমিন ধ্বনিতে মূখরিত হয়ে উঠবে তুরাগ তীর। মুসলিম উম্মাহ যার সাথে হাত তুলে ফরিয়াদ করবেন মহাম মালিকের কাছে। গোটা দুনিয়তে লাইভ প্রচার হবে তার হৃদয়গ্রাহী আখেরী মোনাজাত। 

ইউসুফ  মুসলিম উম্মাহর সম্পদ। তাবলীগ জামাতের প্রতিষ্ঠাতা হযরতজী মাওলানা মুহাম্মদ ইলিয়াস রহ এর রেখে যাওয়া আমানত সিদ্দিকী খান্দানের উজ্জল চেরাগ। বিশ্ব ইজতেমার ময়দান যার রুহানী ও গভীর ইলমি বয়ানে প্রাণ ফিরে পেয়েছে নববী পথ ও পদ্ধতির। সীরাত ভিত্তিক দাওয়াতি কাজের উসুল বর্ণনায় যার তুলনা নেই। গভীর ইলমি যোগ্যতা আর হৃদয়কাড়া বয়ানে যিনি ইতোমধ্যে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছেন।

ইউসুফ বিন সাদ এখন এক নামে সবাই চিনেন। গোটা দুনিয়া ও মুসলিম উম্মাহর কাছে এক আইডল তিনি। যে তরুন এখন কামরা (রুম) থেকে বের হলেই সাদাকালে আরব আজম ইউরোপ রাশিয়া আমেরিকাসহ গোটা দুনিয়ার মানুষজন তার পেছনে ছুটে। কেউ একটু পরশ পেতে, মুসাফাহ করতে, সালাম দিতে ভীর জমায় তার পাশে উম্মাহর আবেগ ও ভালোবাসার যেন এক কেন্দ্রস্থল।

 দেশ বিদেশে এই মুহুর্তে তার চেয়ে আলোচিত কোন তরুণ আলেমের নাম জানা নেই। ইজতেমার মগে বিব মঞ্চে যার সারগর্ভ বয়ান এখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সমাদৃত। বিশ্বের ৬০টির বেশি অধিক ভাষায় যার বয়ানের তরজমা হয়।

গেল দুই বছর ধরে মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম জামায়েত বিশ্ব ইজতেমার হেদায়তি কথা ও আখেরী মোনাজাত তিনি পরিচালনা করে আসছেন। যার হৃদয়গাহী মোনাজাত ও উম্মাহর দরদিয়ালা দুআ আর তাকওয়ালা ফরিয়াদ পাথর দীলেও কান্নার বাঁধভাঙ্গা 
ঢেউ তৈরী হয়।  

বাংলাদেশ সহ বিশ্ব মিডিয়া তার দুআ ও হেদায়তি কথাকে আলাদাভাবে কাভার করে। এই বয়েসে ইলম আমল আর বয়ানের দ্বারা বিশ্বকে মাতোয়ারা করা তরুণ আলেমের সংখ্যা বিরল। বয়েসে আমার চেয়ে অনেক ছোট। কিন্তু সম্পর্ক বন্ধুসুলভ। আমি তাকে অনেকটা শায়খের মতোই মান্য করি। তার খান্দানী শরাফত, ইলমি যোগ্যতা, দাওয়াতের বুঝ, মেহনতের ফিকির, উম্মাহ দরদ এক কথায় অতুলনীয়।  ফলে এক অনন্য উচ্চতায় আল্লাহ তাকে  কবুল করেছেন।

যখন কথা বলেন হাস্যোজ্জল অবয়বে নুরের ঝলক ছেয়ে যায়, যখন ফিকির করেন কপালে চিন্তার ভাজ পরে। যখন বয়ানে তখন ইলম ও দাওয়াতের ফেয়ারা বয়ে চলে। যখন মাশওয়ারা তখন উচা ফিকির ও রায় সবাইকে বিমোহোহিত করে। 

মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ একাধারে আলেম, হাফেজ,  মুফতী ও মুবাল্লীগ। তিনি জামিয়া কাশিফুল উলুম দিল্লীর হাদীসের উস্তাদ। নিজামুদ্দীন বিশ্ব মারকাজের আহলে শূরা। গোটা দুনিয়ায় দায়ওয়াতের কাজে চষে বেড়ান। ছোট বেলা থেকেই বড়দের কোলেপিঠে বেড়ে ওঠা৷ নিজামুদ্দিন মারকাজের আলো বাতাসেই কেটেছে যাদের শৈশব কৈশোর থেকে তারুণ্য। সারা দুনিয়ার বুজুর্গদের সোহবতে তারা তৈরী হয়েছেন উম্মাহর জন্য।

পিতা, তাবলীগ জামাতের বিশ্ব আমীর হযরতজী মাওলানা মুহাম্মদ সাদ কান্ধলভীর হাত ধরেই শৈশব থেকে এই দাওয়াতের কাজের সাথে জড়িত। পিতার সাথে আজ থেকে আরো ১০বছর পূর্ব থেকেই টঙ্গির বিশ্ব ইজতেমা সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জোড় ও ইজতেমায় বয়ান করে আসছেন।

মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী ছাড়া তার ছোট দুইভাই মাওলানা সাঈদ বিন সাদ কান্ধলভী ও মুফতী ইলিয়াস বিন সাদ কান্ধলভী বিশ্ব ইজতেমায় বয়ান করে আলোকিত করছেন মুসলিম উম্মাহকে। তাদের ইলমি বয়ান আর মেহনতের গভীরতা বিশ্ব ইজতেমায় আসা লাখ লাখ মানুষের আত্মার খোরাক যোগায়।

একই পিতার সকল সন্তান একই সাথে এতো ইলমি, আমলি ফিকিরি যোগ্যতায় গড়ে উঠা বিরল ঘটনা৷ হযরতজী মাওলানা সাদ কান্ধলভী সৌভাগ্যবান পিতা, যিনি ইউসুফ,  সাঈদ ও ইলিয়াসের মতো যোগ্য সন্তান গড়ে তুলতে পেরেছেন। যারা পিতার জিবদ্দশায়ই পূবপুরুষদের রেখে যাওয়া মকবুল এই আমনতের হাল ধরতে পেরেছেন যথাযথ যোগ্যতার সাথে। নিজের জীবদ্দশায় দেখে যেতে পেরেছেন সন্তানদের উম্মাহকে সামলানোর যোগ্যতা। হযরতজীকে বাংলাদেশে না এনে আল্লাহ তার সন্তানদের দ্বারা কাজকে আগামি শত বছরের জন্য গুছিয়ে ও নিরাপদ করে নিয়েছেন বলে আমার মনে হয়। আল্লাহর হেকমত বুঝা অনেক কঠিন!  পিতার অবর্তমানে তার তাদের যোগ্যতার বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে পেরেছেন সফলতার সাথে আলহামদুলিল্লাহ। 



হযরতজী মাওলানা মুহাম্মদ ইলিয়াস রহ এই দাওয়াতের মোবারক মেহনতকে যেভাবে আল্লাহর কাছে নিজ ইখলাশের দ্বারা কবুল করিয়েছিলেন, ঠিক তেমনি নিজ খান্দাকেও কবুল করিয়েছেন, যারা উজ্জল অনুপম দৃষ্টান্ত মাওলানা ইউসুফ ভ্রাতৃদ্বয়।

মাযাহেরুল উলুম সাহরানপুর থেকে ইফতা সম্পন্ন  করেন আপনানা সাহরানপুরের মুহতামিম মাওলানা সাইয়্যেদ সালমান মাযাহেরীর তত্বাবধানে।  পিতা ও নানার সাথে থেকেই ইলম ও দাওয়াতের লাইনে এক অনন্য যোগ্যতায় পৌছেন তিনি। তার কথা বলার ধরন, চলাফেরা, আমল আখলাক, তরবিয়ত, ব্যাক্তিত্ব, প্রভাব, ফিকির, উম্মাহর দরদ, ব্যাথা,  উলামায়ে কেরামের প্রতি তাজিম ও একরাম, বড়দের মান্যতা, বিনয়, সদাচারণ, উত্তম আখলাক দেখে প্রবীণরা এটি বলে থাকেন মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ পরদাদা আল্লাহর পথের অমর দাঈ হযরতজী মাওলানা মুহাম্মদ ইউসুফ রহ প্রতিচ্ছবি।

ভালোবাসা অবিরাম ইউসুফ তেমার জন্য...

হে আল্লাহ, মাওলানা ইউসুফ, সাঈদ, ইলিয়াস সহ আমাদের হযরতজীর নেক হয়াত দান করুন। গোটা উম্মতে মুসলিমার হেদায়তের জড়িয়া হিসাবে ও মিল্লতের রাহবার হিসাবে কবুল করুন। আমাদের মাথার উপর তাদের ছায়াকে দীর্ঘ করুন।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Vorer-pata-23-12-23.gif
http://www.dailyvorerpata.com/ad/bb.jpg
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Screenshot_1.jpg
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]