সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

শিরোনাম: প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল ১৪ ডিসেম্বর    বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন ধর্মঘট না ডাকার আহ্বান কাদেরের    শতভাগ পাস ২৯৭৫ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে, ৫০টিতে সবাই ফেল    সংঘাত-দুর্যোগের সময় নারীদের দুর্দশা বহুগুণ বেড়ে যায়: প্রধানমন্ত্রী    এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেলো ২ লাখ ৬৯ হাজার শিক্ষার্থী    এসএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮৭.৪৪ শতাংশ    এসএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
পাউবো’র ৫ কোটি টাকার স্লুইস গেট আসছে না কোন কাজে!
উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৫:৪৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

কুড়িগ্রামের উলিপুরে অপরিকল্পিতভাবে ২৩বছর আগে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত স্লুইস গেটটি বর্তমানে কোন কাজে আসছে না। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায় তা ধীরে ধীরে অকার্যকর হয়ে পড়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, তিস্তার ভাঙ্গনে বুড়িতিস্তা নদীর উৎসমুখে নির্মিত স্লুইস গেটটি নদী গর্ভে চলে যায়। পরে পাউবো কর্তৃপক্ষ অপরিকল্পিত ভাবে বুড়িতিস্তা নদীর মুখে বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ দিয়ে বন্ধ করে দেয়। অপর অংশের থেতরাই ইউনিয়নের গোড়াইপিয়ার নামক স্থানে নতুন করে স্লুইস গেটটি নির্মান করে। ইতিমধ্যে স্লুইস গেটের অনেক যন্ত্রাংশ চুরি হয়ে গেছে। কিন্তু পাউবো কর্তৃপক্ষের নজরদারী ও সংস্কারের অভাবে বর্তমানে স্লুইস গেটটি অকার্যকর হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, তিস্তার নদীর ভাঙ্গনে বুড়িতিস্তা নদীর উৎসমূখে নির্মিত স্লুইজ গেটটি নদী গর্ভে চলে গেলে বুড়িতিস্তা নদীর এক পার্শ্বে বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ নির্মান করে তা বন্ধ করেন দেয়া হয়। অপর অংশে ১৯৯৯ সালে পানি উন্নয়ন বোর্ড অপরিকল্পিতভাবে উপজেলার থেতরাই ইউনিয়নের গোড়াইপিয়ার নামক স্থানে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ২৪ গেট বিশিষ্ট একটি ¯ুøইস গেট নির্মাণ করেন। কিন্তু নির্মানের কয়েক বছরের মধ্যে ২৪ টি গেটের ১৬ টি অকেজো হয়ে পড়ে। ইতিমধ্যে সব গেট গুলোর ছোট পেনিয়াম, শেপ, ৭টি গেটের বড় পেনিয়াম কভার, ৪টি গেটের বড় পেনিয়াম এবং অনেক গেটের নাট-বোল্ড চুরি হয়ে গেছে। 



এদিকে, স্লুইস গেটের উৎসমূখে তিস্তা নদী থেকে পলি মাটি জমে তা ভরাট হয়ে যাওয়ায় কোন দিক থেকেই পানি নিষ্কাশন হয় না। এ পরিস্থিতিতে বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টিতে বুড়িতিস্তা নদীর দক্ষিন অংশে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। ফলে বুড়িতিস্তা নদীর দুই পাড়ের কয়েক হাজার হেক্টর ফসলি জমি ও শত শত পরিবারকে দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

বুড়িতিস্তা নদীর প্রায় ২২ কিলোমিটার উলিপুর উপজেলার দলদলিয়া ইউনিয়ন থেকে চিলমারী উপজেলার রানীগঞ্জ পর্যন্ত ভরাট হয়ে নাব্যতা হারিয়ে ফেললে নদী দখল করে নেন দখলদার। সম্প্রতি উপজেলার দলদলিয়া ইউনিয়নের অর্জুনে স্লইস গেট নির্মানসহ চিলমারী উপজেলার কাঁচকোল পর্যন্ত বুড়িতিস্তা নদী খনন ও দখলমুক্ত করার জন্য উলিপুর প্রেসক্লাব ও রেল, নৌ যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণকমিটি আন্দোলন শুরু করেন। এরই প্রেক্ষিতে সরকার বুড়িতিস্তা খননের উদ্যোগ নেয়। কিন্তু দক্ষিন অংশের দলদলিয়া ইউনিয়নের দেবত্তর থেকে নাজিমখাঁন পর্যন্ত প্রায় ১৭ কিলোমিটার খনন না করায় এ অ লের মানুষকে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দেবত্তর গ্রামের আব্দুল জলিল, মজিদ মিয়া, সাহেব আলীসহ অনেকেই জানান,বর্তমানে স্লুইস গেটটি সংস্কারসহ দক্ষিন অংশের বুড়িতিস্তা খনন ও সম্মুখভাগে পলি অপসারন না করলে এ অ লের মানুষকে আরো দূর্ভোগ পোহাতে হবে।

স্লইস গেটের দায়িত্বে থাকা গেটম্যান আব্দুল বাতেন জানান, ২৪টি গেটের ৮টি গেট কোন রকমে চলে। বাকি ১৬টি গেট সংস্কার করে পানি নিষ্কাষণের ব্যবস্থা না করলে স্লুইস গেট মানুষের কোন কাজে আসবে না।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, স্লইস গেট সংস্কারের জন্য বরাদ্দ চেয়ে চাহিদা পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ পেলেই গেট গুলো সংস্কার করে পানি প্রবাহ স্বাভাবিক করা হবে। দলদলিয়া ইউনিয়নের দেবত্তর থেকে নাজিমখাঁন পর্যন্ত খনন করার প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/dd.jpg
http://dailyvorerpata.com/ad/apon.jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]