শুক্রবার ১২ আগস্ট ২০২২ ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯

শিরোনাম: ক্রিকেট নাকি বেটিং, সাকিবকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে: পাপন    জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে মন্ত্রণালয়কে বিস্তারিত ব্যাখ্যার নির্দেশ    ডলারের কারণে ভোজ্যতেলের দামে সুফল পাওয়া যাচ্ছে না: বাণিজ্যমন্ত্রী    রাজধানীতে হোটেলে মিলল নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ    সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশিদের টাকা সম্পর্কে সরকার কেন তথ্য চায়নি: হাইকোর্ট    জম্মু-কাশ্মীরে সেনা ক্যাম্পে হামলা, ৩ সেনাসহ নিহত ৫    বিশ্বব্যাপী বেড়েছে মৃত্যু-শনাক্ত   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
বশেমুরবিপ্রবিতে ব্যবহারের অযোগ্য বেশিরভাগ টয়লেট
সাজ্জাতুজ জামান সুজন, বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ২৫ জুন, ২০২২, ৯:৩৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জের একাডেমিক ভবন হিসেবে ব্যবহৃত বিশাল ভবনটি সাধারণত দুটি অংশে পরিচিত। নতুন একাডেমিক ভবন এবং পুরাতন একাডেমিক ভবন।

এই ভবনটিতেই ক্লাস করে প্রায় ১০ সহস্রাধিক শিক্ষার্থী। তবে, এই ভবনটির বেশিরভাগ টয়লেটই ব্যবহারের একদম অনুপযোগী। 

সরেজমিনে দেখা যায়, একাডেমিক ভবনের প্রথম ফ্লোর এর বেশ কিছু টয়লেটের খোদ দরজাটাই ভাঙা। এছাড়া, পানির ট্যাপ ভাঙা বা কাঠি গুঁজে রাখাও দেখা যায় বেশ কয়েকটিতে। পাশাপাশি উৎকট গন্ধ এতোটাই তীব্র যে সামনের করিডর ধরে হেঁটে গেলেও অনেক সময় গন্ধে বেগ পেতে হয় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের।

ভবনের নিচের এই ফ্লোরের ১১৫,১১৬,১১৭ এবং ১১৮ নং রুমগুলো ব্যবহার করে যথাক্রমে সমাজবিজ্ঞান, এএসভিএম এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ। এমন অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ব্যবহারেই করেই ক্লাস-পরিক্ষা দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা।



এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী শাহাদাত হোসেন রাজীব বলেন, এটা একদম নিচের ফ্লোর হওয়ায় দেখা যায়,  সিড়ি দিয়ে উপরে ওঠার সময়ও অন্যদের এই টয়লেটটা ব্যবহারের প্রয়োজন পড়ে। সুতরাং স্বাভাবিকভাবেই এটাতে চাপ বেশি পড়ে। একারণে এটার অবস্থা সবচেয়ে বেশি খারাপ। আমি প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, সবচেয়ে আগে যেনো এই বাথরুমটা সংস্কার করা হয়।

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সুমাইয়া আশা বলেন, আমরা ক্লাসের জন্য দীর্ঘক্ষণ ওখানে অবস্থান করি, এক্ষেত্রে টয়লেট এমন নোংরা এবং দূরাবস্থা থাকায় প্রয়োজনে আমরা খুবই বিব্রত হই। এছাড়া, মেয়েদের জন্য বরাদ্দ টয়লেটটি পরিত্যক্ত এবং স্টোররুম হিসেবে ব্যবহৃত হওয়ায় ছেলে-মেয়েদের একই টয়লেট ব্যবহার করতে হয় যা আমাদের জন্য খুবই বিড়ম্বনার। এরপরও আবার দরজাগুলোর লক ঠিক নেই এবং পানি ব্যবস্থার খারাপ অবস্থা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এই সমস্যাগুলোর প্রতি নজর দিয়ে  যত দ্রুত সম্ভব সমাধানের জোর দাবি জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য, নতুন একাডেমিক ভবন নির্মান কাজ প্রায় শেষ এবং বেশিরভাগই ইতোমধ্যে ক্লাস হিসেবে ব্যবহৃত হলেও নতুন টয়লেটগুলো এতোমাসেও কোনো এক অজানা কারণে খোলা হয়নি।

এছাড়াও, বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক এবং প্রশাসনিক ভবনের বেশিরভাগ বাথরুমই নোংরা অথবা উৎকট গন্ধযুক্ত এবং অনেকসময়ই পানি থাকে না উল্লেখ করে এবিষয়ে কথা জানতে চাইলে বশেমুরবিপ্রবি রেজিস্ট্রার মো.মোরাদ হোসেন ভোরের পাতাকে বলেন, আমি অতিদ্রুত সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে এবিষয়ে অবহিত করে যথাযথ ব্যবস্থা নিবো।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://dailyvorerpata.com/ad/apon.jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]