বৃহস্পতিবার ৯ ডিসেম্বর ২০২১ ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

শিরোনাম: অবশেষে উদ্ধার হলো নালায় নিখোঁজ শিশুর মরদেহ    বেগম রোকেয়া পদক পেলেন ৫ বিশিষ্ট নারী    মালিতে বোমা বিস্ফোরণে জাতিসংঘের ৭ শান্তিরক্ষী নিহত    করোনায় বেড়েছে প্রাণহানি    কুয়াশার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে শীত    জনতার রায়ে ১৫১ রাজাকারের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছিল    দরপত্রের নিয়ম ভেঙে ৪১ হাজার ল্যাপটপ ক্রয়ের চেষ্টা   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
কাঁচা সড়কের বেহাল দশা: দূর্ভোগে চার গ্রামের মানুষ
নোয়াখালী প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ৮:৫০ পিএম আপডেট: ২৩.১০.২০২১ ৮:৫৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়ার্ডের নুরুজ্জামান পন্ডিত ও হাজী আজিজুল হক সড়কে ২০ বছরেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। দীর্ঘ সময়ে রাস্তাটি কাঁচা থাকায় চার গ্রামের কয়েক হাজার বাসিন্দাদের ভোগান্তির শেষ নেই। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নির্বচনী এলাকা হলেও বর্তমান সরকারের প্রায় তের বছরের মধ্যেও সড়কটি পাকা না হওয়ায় দূর্ভোগে আছেন এ এলাকার বাসিন্দারা।

বর্তমানে রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে ওই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী কয়েক হাজার মানুষ। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার বেহাল দশা থাকলেও এখন পর্যন্ত সংস্কারের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি কর্তৃপক্ষ।

সড়কটি পাকা করার জন্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন স্থানীয়রা। 

জানা গেছে, এক কিলোমিটারের বেশি দীর্ঘ এই সড়কে প্রতিদিন হাজারো মানুষ যাতায়াত করে। সড়কটি কাঁচা হওয়ায় কেউ অসুস্থ হলে অনেক কষ্ট করে তাকে চিকিৎসা কেন্দ্রে নিতে হয়।
এই সড়কের আশপাশে চারটি  গ্রাম। এসব গ্রাম হচ্ছে- শান্তিপাড়া, উকিলপাড়া, বিজয়নগর ও সিদ্দিকীয়া বাজার। এ গ্রামগুলোতে কয়েক হাজার মানুষের বসবাস। সড়কটি চরকাঁকড়া ইউনিয়ন ও বসুরহাট পৌরসভার সীমান্তঘেঁষা।

স্থানীয় বাসিন্দা মাসুদ আলম বলেন, এই সড়ক পাকা করা এখন সময়ের দাবি। গত বছর সড়কটি পরিদর্শন করেছেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন। তিনি একাধিকবার আশ্বাস দেয়ার পরও সড়কটি পাকা হয়নি।

জয়নাল নামে একজন বলেন, সামান্য বৃষ্টি হলেই রাস্তা দিয়ে যানবাহন তো দূরের কথা হেঁটেও চলাচল করা কষ্টদায়ক। শুকনো মৌসুমেও ভোগান্তির শেষ নেই। মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নির্বাচনী এলাকা এটি। উনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি সড়কটির অগ্রগতির জন্য।

আরেক বাসিন্দা নজরুল ইসলাম বলেন, এই সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে কাঁচা। আমাদের এখানে কেউ অসুস্থ্য হলে অ্যাম্বুলেন্স আসতে পারে না। বৃষ্টির মৌসুমে আমাদের সন্তানরা এই সড়ক দিয়ে স্কুল কলেজে যেতে খুবই সমস্যায় পড়ে। সড়কটির জন্য আমাদের কষ্টের শেষ নেই। এমনকি সড়কের কারণে মেয়েদের ভালো বিয়ের প্রস্তাব ফিরে যাচ্ছে।

চড়কাঁকড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সফি উল্যা বলেন, এ সড়কটি পাকা করার জন্য কয়েকবার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। কে বা কারা এই সড়কটির নাম কেটে দিচ্ছে। তাই সড়কটি পাকা করা হচ্ছে না।



কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন বলেন, এই রাস্তাটি করে দেওয়ার জন্য আমি উপজেলা প্রকৌশলীকে বলেছি। আশা করছি, শিগগির রাস্তাটি পাকাকরণের কাজ হাতে নেয়া হবে।



ভোরের পাতা/কে 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]