বৃহস্পতিবার ৯ ডিসেম্বর ২০২১ ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

শিরোনাম: বিএনপির এমপি হারুনের ৫ বছরের সাজা বহাল    অবশেষে উদ্ধার হলো নালায় নিখোঁজ শিশুর মরদেহ    বেগম রোকেয়া পদক পেলেন ৫ বিশিষ্ট নারী    মালিতে বোমা বিস্ফোরণে জাতিসংঘের ৭ শান্তিরক্ষী নিহত    করোনায় বেড়েছে প্রাণহানি    কুয়াশার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে শীত    জনতার রায়ে ১৫১ রাজাকারের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছিল   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
ফেসবুক লাইভে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
ফেনী প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর, ২০২১, ৪:১৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ফেনীর বারাহিপুর এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রী তাহমিনা আক্তারকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় স্বামী ওবায়দুল হক টুটুলকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া ৫০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকালে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ড. বেগম জেবুন্নেছা এ রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে, মামলার একমাত্র আসামি ওবায়দুল হক টুটুলকে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আদালতে তোলা হয়।

মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হাফেজ আহমদ ও বাদীর আইনজীবী শাহজাহান সাজু।



তারা বলেন, এই রায়ে দৃষ্টান্তমূলক সাজা হয়েছে। আর কেউ দ্বিতীয়বার এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটানোর সাহস পাবে না।

আদালত সূত্র জানায়, পারিবারিক অশান্তি এবং স্ত্রীর পরিবার থেকে ‘ব্ল্যাকমেইল’র অজুহাত দেখিয়ে ফেসবুক লাইভে এসে ২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল তাহমিনাকে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করেন স্বামী ওবায়দুল হক টুটুল। ঘটনার দিন তাহমিনার বাবা সাহাব উদ্দিন বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. ইমরান হোসেন গত বছরের ১১ নভেম্বর টুটুলকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এর আগে, মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) তাহমিনা হত্যা মামলায় টুটুলের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে ২১ অক্টোবর রায়ের দিন ধার্য করেন আদালত। গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর একমাত্র আসামি টুটুলকে অভিযুক্ত করে অভিযোগ গঠন করা হয়। চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। মামলায় ১৩ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়। ২০ জানুয়ারি বিচার কার্য শুরু হয়।

পরিবার সূত্র জানায়, ২০১৫ সালে ফেনী পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড বারাহিপুর এলাকার গোলাম মাওলা ভুঁইয়ার ছেলে টুটুল কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আকদিয়া গ্রামের সাহাব উদ্দিনের মেয়ে তাহমিনা আক্তারকে বিয়ে করেন। তাদের তাফান্নুন আরোয়া মায়োস নামের দেড় বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। স্ত্রীকে হত্যার আগে ফেসবুক লাইভে এসে টুটুল সবার কাছে মাফ চান এবং ঘটনার জন্য নিজেই দায় স্বীকার করেন। ওই ভিডিওতে তার মেয়েকে দেখভালের জন্য সবার কাছে অনুরোধ করেন।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]