রোববার ২৪ অক্টোবর ২০২১ ৭ কার্তিক ১৪২৮

শিরোনাম: দ. কোরিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান    বিএফইউজের নেতৃত্বে ওমর ফারুক-দীপ আজাদ    দেশে ৬ কোটির বেশি করোনার টিকা প্রয়োগ    শক্তিশালী ও অন্তর্ভুক্তিমূলক জাতিসংঘ গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর    ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট: ইবি শিক্ষার্থী গ্রেফতার    ওয়েস্ট ইন্ডিজদের লজ্জায় ডোবালো ইংল্যান্ড    রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের পর অস্ট্রেলিয়ার জয়   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
বাংলাদেশের উন্নয়নে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই
#‘মিরাকিউলাস’ উন্নয়নের জাদুকর শেখ হাসিনা: মে. জে. (অব.) আব্দুর রশিদ। #বাংলাদেশের উন্নয়ন ও শেখ হাসিনা একই সূত্রে গাঁথা: ড. শাহিনূর রহমান। #শেখ হাসিনাকে নিয়ে এখন সারা বিশ্ববাসী গর্ব করে: ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল।
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বুধবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২১, ১১:১১ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ একটি দেশ যা অতি অল্প সময়ে তাঁর নেতৃত্বে থাকাকালীন উন্নয়নের একটা রোল মডেলে রূপান্তরিত হয়েছে এবং সেখানে আমরা দেখছি বাংলাদেশ এই মুহূর্তে বিদেশি সাহায্য নির্ভর নয়। এই যে দেশকে স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য আমাদের প্রধানমন্ত্রী যে বিনির্মিত কৌশলটি পৃথিবীকে অবাক করেছে এবং অবাক করেছে বলেই জাতিসংঘের মহাসচিব একটি মন্তব্য করেছেন যে একটি মিরাকিউলাস উন্নয়ন হয়েছে দেশে। আসলে প্রতি মাসেই তিনি এতো অজস্র সাফল্যগাথা অর্জন করেছেন যে এটা এতো অল্প সময়ে বলে শেষ করা সম্ভব নয়। তিনি এখন দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিশ্ব নেতৃত্বের কাতারে চলে গেছেন। তাকে নিয়ে শুধু আমরা না সারা বিশ্ববাসী গর্ব করতে পারে এই জন্য যে, গত কিছুদিন আগে যে পানামা পেপারস অনুসন্ধান রিপোর্ট বের হয়েছে সেখানে তাকে নিয়ে কোন ধরনের অভিযোগ দেখাতে পারেননি। পৃথিবীর ৩ জন শীর্ষস্থানীয় সৎ সরকার প্রধানের তালিকায় তার নাম উঠে এসেছে।



দৈনিক ভোরের পাতার নিয়মিত আয়োজন ভোরের পাতা সংলাপের ৪৯১তম পর্বে বুধবার (১৩ অক্টোবর) এসব কথা বলেন আলোচকরা। ভোরের পাতা সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসানের নির্দেশনা ও পরিকল্পনায় অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও সামরিক গবেষক মে. জে. (অব.) আব্দুর রশিদ, কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহিনূর রহমান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে লিভার বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাবেক তথ্য সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ।

মে. জে. (অব.) আব্দুর রশিদ বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরেছেন সেখানে কতগুলো বিষয় সবার চোখে পড়েছে। সেই চোখে পড়ার বিষয় নিয়ে আমি প্রথমে যেটা বলতে চাচ্ছি সেটা হলো বাংলাদেশ একটি রাষ্ট্র এবং এই রাষ্ট্রের একটি সুস্পষ্ট মানবিক দর্শন নিয়ে পৃথিবীর কাছে উপস্থাপিত হয়েছে এবং সেটি সবার কাছে খুবই গ্রহণযোগ্য দর্শন। বঙ্গবন্ধু যে মুক্তিযুদ্ধের দর্শন দিয়ে গেছেন সেটা তিনি সেখানে উপস্থাপন করেছেন। দ্বিতীয় যে বিষয়টি হচ্ছে সেটা হলো বাংলাদেশ একটি দেশ যা অতি অল্প সময়ে তার নেতৃত্বে থাকাকালীন উন্নয়নের একটা রোল মডেলে রূপান্তরিত হয়েেেছ এবং সেখানে আমরা দেখছি বাংলাদেশ এখন এই মুহূর্তে বিদেশি সাহায্য নির্ভর নয়। এই যে দেশকে স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য আমাদের প্রধানমন্ত্রী যে বিনির্মিত কৌশলটি পৃথিবীকে অবাক করেছে এবং অবাক করেছে বলেই জাতিসংঘের মহাসচিব একটি মন্তব্য করেছেন যে একটি মিরাকিউলাস উন্নয়ন হয়েছে দেশে। এই যে মিরাকিউলাস বা জাদুকরী উন্নয়ন তিনি করতে সক্ষম হয়েছেন এই জাদুকরী উন্নয়নের জাদুকর তিনি। এটি আজ সবার কাছে স্বীকৃতি পেয়েছে বলেই সবাই আজ চিন্তা করছে একটি দরিদ্র দেশ কেমন করে সব বাধা বিপত্তি অতিক্রম করে ধীরে ধীরে মানুষের জীবন যাত্রার মান বাড়িয়ে আজকের এই অবস্থানে এসে দাঁড়িয়েছে এবং আগামীর যে উন্নতির ধারা আছে সেটা দেখলে বুঝা যায় এটি আরও এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। আগামীতে এশিয়ার মধ্যে ক্রমবর্ধমান বর্ধিষ্ণু অর্থনীতির অঞ্চল হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে। সেখানে শেখ হাসিনা এই যে নেতৃত্বের গুণাবলী বিশ্বের কাছে একটা চমকপ্রদ বিষয় হিসেবে দাঁড়িয়েছে। 

ড. শাহিনূর রহমান বলেন, আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শেখ হাসিনার পিতা এটাতো অনেক বড় প্রাপ্তি এর বাইরেও জননেত্রী শেখ হাসিনা এমনি একজন সৌভাগ্যবান রক্তের উত্তরাধিকারী যিনি এতো কাছ থেকে জাতির পিতার যে আদর্শ তিনি গ্রহণ করতে পেরেছেন এবং যা শিখেছেন এটাতো আর অন্য কারও পক্ষে শিখা সম্ভব হয়নি। বঙ্গবন্ধু কন্যা, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এবং বিশ্বনেতা শেখ হাসিনা বাঙালি জাতির অনুপ্রেরণার উৎস। বঙ্গবন্ধু আওয়ামী লীগকে তৃণমূলের জনপ্রিয় রাজনৈতিক দলে পরিণত করেছিলেন। জাতির পিতার নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর তার নির্বাসিত কন্যা শেখ হাসিনা সবচেয়ে খারাপ সময়ে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব গ্রহণ করেছেন। তিনি গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে অনেক এগিয়ে এসেছেন। তিনি বার বার মৃত্যুর দ্বার থেকে ফিরে এসেছেন। ১৯৯৬ সালে ২১ বছর পর আওয়ামী লীগকে জনপ্রিয় দল হিসেবে ক্ষমতায় এনেছেন। বাংলাদেশে গণতন্ত্র বিকাশের জন্য তার বিকল্প নেই। তার সততা, নিষ্ঠা, যুক্তিবাদী মানসিকতা, দৃঢ়তা, মনোবল, প্রজ্ঞা এবং অসাধারণ নেতৃত্ব বাংলাদেশকে বিশ্ব অঙ্গনে এক ভিন্ন উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করেছে। দেশকে আরও গতিশীল করতে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। তিনি দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে তুলেছেন। ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করা এখন প্রধান লক্ষ্য তাঁর। সেটির জন্য দেশের মানুষের উচিত সরকারের সফলতার পথে সহযোগিতা করা। যেন আওয়ামী লীগ সরকার দেশ ও জাতির উন্নয়নে আরও বেশি কাজ করতে পারে।

অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল বলেন, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক জীবনের যে অর্জন সেগুলো বাদই দিলাম, তার গত ১৩ বছরের যে অর্জন সেগুলোও বাদ দিলাম, তার গত মাস থেকে এই মাস পর্যন্ত যে সকল অর্জন তিনি অর্জিত করেছেন সেগুলোও আমরা পূর্ণাঙ্গভাবে তালিকাবদ্ধ করতে পারবো না। জাতিসংঘে এসডিজি অর্জনে তিনি একটি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন, আমাদের এখানে প্রথম নিউক্লিয়ার রিয়েক্টার স্থাপন হয়েছে, আমরা দেখছি বাংলাদেশ পারমাণবিক যুগে পদার্পণ করতে যাচ্ছে এবং একই সাথে রাশিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়া আমাদের এখানে দ্বিতীয় একটি পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আমরা দেখছি পদ্মার নিচে দিয়ে একটি টানেল তৈরি করার জন্য একটা পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে। আসলে প্রতি মাসেই তিনি এতো অজস্র সাফল্যগাথা অর্জন করেছেন যে এটা এতো অল্প সময়ে বলে শেষ করা সম্ভব নয়। তিনি এখন দেশের সীমানা ছারিয়ে বিশ্ব নেতৃত্বের কাতারে চলে গেছেন। তাকে নিয়ে শুধু আমরা না সারা বিশ্ববাসী গর্ব করতে পারে এই জন্য যে, গত কিছু দিন আগে যে পানামা পেপারস অনুসন্ধান রিপোর্ট বের হয়েছে সেখানে তাকে নিয়ে কোন ধরনের অভিযোগ দেখাতে পারেননি। পৃথিবীর ৩ জন শীর্ষস্থানীয় সৎ সরকার প্রধানের তালিকায় তার নাম উঠে এসেছে। আমরা এখন এমন প্রত্যাশা করছি যে তিনি যদি আগামী নির্বাচনে পুনরায় নির্বাচিত হন সেক্ষেত্রে তিনি পৃথিবীর সব থেকে দীর্ঘমেয়াদী নারী প্রধানমন্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে যাচ্ছেন।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]