রোববার ২৪ অক্টোবর ২০২১ ৭ কার্তিক ১৪২৮

শিরোনাম: আজ জাতিসংঘ দিবস    দ. কোরিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান    বিএফইউজের নেতৃত্বে ওমর ফারুক-দীপ আজাদ    দেশে ৬ কোটির বেশি করোনার টিকা প্রয়োগ    শক্তিশালী ও অন্তর্ভুক্তিমূলক জাতিসংঘ গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর    ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট: ইবি শিক্ষার্থী গ্রেফতার    ওয়েস্ট ইন্ডিজদের লজ্জায় ডোবালো ইংল্যান্ড   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
বনানীতে সমাহিত অভিনেতা ড. ইনামুল হক
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১, ৫:৩০ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

কিংবদন্তি অভিনেতা এবং শিক্ষক ড. ইনামুল হককে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দুপুর ২টা ২০ মিনিটে তাকে সেখানে দাফন করা হয়। গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন মরহুমের ছোট জামাই অভিনেতা ও সঞ্চালক সাজু খাদেম।

ইনামুল হককে দাফনের সময় সেখানে তার দুই মেয়ে হৃদি হক ও প্রৈতি হক এবং বড় জামাই অভিনেতা লিটু আনামও উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বেলা ১১ টায় ঢাকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সদ্য প্রয়াত অভিনেতা ইনামুল হককে শ্রদ্ধা জানায় সর্বস্তরের জনগণ। 

সেসময় উপস্থিত ছিলেন- তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ, ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডাক্তার জাফরুল্লাহ, অভিনেত্রী শাহনাজ খুশি, বৃন্দাবন দাস, মীর সাব্বির, নির্মাতা অরণ্য আনোয়ার এবং ইনামুল হকের দীর্ঘদিনের বন্ধু প্রবীণ অভিনেতা আবুল হায়াতসহ অনেকে।

গত সোমবার সকালে নিজ বাসায় বর্ষীয়ান অভিনেতা ড. ইনামুল হক অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর বেলা তিনটার দিকে রাজধানীর কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। জানা যায়, তিনি হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন।

ড. ইনামুল হক ১৯৪৩ সালের ২৯ মে ফেনী সদরের মটবী এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন। পড়াশোনা করেছেন ফেনীর পাইলট হাই স্কুলে। 

এরপর ঢাকার নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি এবং পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগ থেকে অনার্স ও এমএসসি। 

এছাড়া তিনি মানচেস্টার ইউনিভার্সিটি থেকে পিএইচডি ডিগ্রিধারী।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘ ৪৩ বছর শিক্ষকতা করেছেন ইনামুল হক। 

এর মধ্যে তিনি ১৫ বছর রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান এবং দুই বছর ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ডিনের দায়িত্ব পালন করেন।

প্রবীণ এই অভিনেতার অভিনয়ে হাতেখড়ি নটরডেম কলেজে পড়াকালীন সময়ে। 

ওই সময় ফাদার গাঙ্গুলীর নির্দেশনায় তিনি ভাড়াটে চাই নামে একটি নাটকে প্রথম অভিনয় করেন। 

১৯৬৮ সালে বুয়েট ক্যাম্পাসেই নাগরিক নাট্যসম্প্রদায়-এর যাত্রা শুরু হয়। এই দলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন তিনি।

নাগরিক নাট্যসম্প্রদায়-এর হয়ে প্রথম তিনি মঞ্চে অভিনয় করেন। নাটকটি ছিল আতাউর রহমানের নির্দেশনায় বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রো। 

এরপর এই দলের হয়ে দেওয়ান গাজীর কিসসা ও নূরুল দীনের সারা জীবনসহ আরো বহু নাটকে তিনি অভিনয় করেন।



১৯৯৫ সালের এই দল থেকে বের হয়ে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন নাগরিক নাট্যাঙ্গন। ছোটপর্দায় বহু দর্শকপ্রিয় নাটকে দেখা গেছে ড. ইনামুল হককে।



ভোরের পাতা/অ

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


আরও সংবাদ   বিষয়:  ড. ইনামুল হক   মৃত্যু  







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]