রোববার ২৪ অক্টোবর ২০২১ ৭ কার্তিক ১৪২৮

শিরোনাম: আজ জাতিসংঘ দিবস    দ. কোরিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান    বিএফইউজের নেতৃত্বে ওমর ফারুক-দীপ আজাদ    দেশে ৬ কোটির বেশি করোনার টিকা প্রয়োগ    শক্তিশালী ও অন্তর্ভুক্তিমূলক জাতিসংঘ গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর    ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট: ইবি শিক্ষার্থী গ্রেফতার    ওয়েস্ট ইন্ডিজদের লজ্জায় ডোবালো ইংল্যান্ড   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
জমজ সন্তান বুকে নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন রুমানা!
শেরপুর জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮:১৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

বেকার স্বামী, চায়ের দোকানের আড্ডায় দিন কাটে, বেশ ফুরাফুরা। কোন কাজকর্ম নেই। জমজ দুটি কন্যাসন্তান দুনিয়াতে এনে ছেড়ে দিয়েছে মায়ের কোলে। মা এখন কোথায় যায়। বুকের ধন। তাদের তো বাচাঁতে হবে। দিন শেষে নিত্য দিন বাচ্চার  দুধ ও নিজের খাদ্য এবং বাকি আরো ২জনের খাবার যোগাতে ভিক্ষা বৃত্তিতে নেমেছেন রুমানা খাতুন। ১০ মাসের জমজ ২টি শিশুকন্যা বুকে নিয়ে ঘুরছেন মানুষের দ্বারে দ্বারে। লক্ষ্য একটাই মেঘ, বৃষ্টি, রোদ যাই থাকুক না কেন আজকের দিনটিতে অনন্ত দুবেলা দুমোঠো ভাত ও বাচ্চা দুটির দুধ যোগাড় করতেই হবে। ভিটে বাড়ীহীন এই হতভাগ্য মা হচ্ছেন, শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার মরিচপুরান ইউনিয়নের গোজাকুড়া শীলপাড়া গ্রামের রুমানা খাতুন (৩০)। এই রুমানা স্বামী মোশারফ হোসেন (৩৮) কে নিয়ে থাকেন খালার বাড়ীতে। নিজেদের জমিজমা বলতে কিছুই নেই।

রুমানার সাথে কথা বলে জানা গেছে, সাড়ে তিন বছর হয়েছে বিয়ে হয়েছে। দাম্পত্য জীবনে স্বামী, আড়াই বছরের ছেলে রুমান ও ১০ মাসের জমজ কন্যাসন্তান মারিয়া, ফারিয়া নিয়ে ৫জনের সংসার। বেকার স্বামী মোশারফ হোসেন ইতি পূর্বে ইট খলায় কাজ করতো ও মাঝে মাঝে রিকশাও চালাত। বর্তমানে বছর খানি যাবৎ সে কোন কাজকর্ম করে না। স্বামী বলে কথা, শুধু চায়ের দোকানে বসে টিভি দেখা আর বাজে আড্ডায় মেতে থাকাই যেন তার কাজ। এদিকে সংসার জীবন কিভাবে চলবে তার কোন খেয়াল নেই। 



এদিকে স্ত্রী রুমানা প্রতিদিন জমজ দুটি পুষ্টিহীন কন্যাসন্তান বুকে নিয়ে বুকের রক্ত পানি করে ক্লান্ত শরীল নিয়ে, মাথার ঘাম পায়ে ফেলে সারা বাজার ঘুরে ভিক্ষা করে চাল, ডাল, বাচ্চার দুধসহ যে টুকু বাজার করে আনে তা আবার দিন শেষে সে নিজেই রান্না করে খাবার তৈরি করে পরিবারের সবাই খায়। এখন সংসারের একমাত্র অবলম্বনই এই রুমানা। আর এভাবেই রোজ সকালে উঠে খাদ্যের সন্ধানে হন্ন্যে হয়ে ঘুরছে। কোন কোন দিন তো মেঘ বৃষ্টির কারণে কিছুই যোগাড় করতে পাড়েনা।  সে দিন তাদের থাকতে হয় উপোষ। তার এই বেঁেচ থাকার কঠিন জীবন সংগ্রাম, বাচ্চাঁর মুখে তুলে দেওয়া দুধ কিনতে ও নিজের খাবার জোগাড়ে নিজের জীবন সাথী স্বামী মোশারফ সহযোদ্ধা হয়নি।  স্বামী মোশারফ হোসেন তার করা তৈরি খাবার খেয়েই ফুরফুরে মেজাজে থাকছেন  আনায়াসে। আর রুমানার বুকে দুটি সন্তান তুলে দিয়ে ভিক্ষা বৃত্তিতে ঠেলে দিয়ে পথে পথে শহরের অলিতে গলিতে ঘুরাচ্ছেন স্বামী মোশারফ। এবস্থায় কিন্তু নিজের ভাগ্য পরিবর্তনে নিরন্তর ছুটে চলা কষ্টের পথ যেন শেষ হচ্ছে না রুমানার। রুমানার ইচ্ছে এত কষ্টের মধ্যেও বাচ্চা তিনটি একুট বড় হলেই কিছুটা চিন্তা মুক্ত হতে পারবে। এদিকে সরকারী কোন সাহায্য-সহযোগীতা ও সে পা”েছ না। অপর দিকে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা  হেলেনা পারভিন অবশ্য তার খোঁজ নিয়েছেন কিš‘ু পায়নি কোন সাহায্য-সহযোগীতা। 

রুমানা বলেন, আমাকে প্রতিদিন বাচ্চার দুধ কিনতে হয় এবং পরিবারের খাদ্য যোগাতে  ভিক্ষা করে যা পাই তাই দিয়ে বাজার করে পরিবারের সবার খাবারের ব্যবস্থা করি। এই ছোট ২টি জমজ সন্তান বুকে নিয়ে সারাদিন ঘুরতে আমার খুব কষ্ট হয়। প্রতিটি দোকানে যাই কেউ দেয় কেউ দেয় না। প্রতিদিন মানুষ ভিক্ষা দিতেও চায় না। এবস্থায় এই দুধের বাচ্চা কার কাছে রেখে আসবো। আর এদিকে দাম্পত্য জীবন নিয়ে স্বামীর সাথে তো নানা কথা হয়ই। কি করবো। বাচ্চার মা তো আমি। কে নেবে এই দায় ভার! আজ স্বামী থেকেও নেই। দেখি আল্লাহ ভাগ্যে কি রেখেছেন। আমি আপনাদের সবার সহযোগিতা চাই। 

নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হেলেনা পারভীন জমজ কন্যা সন্তানের মা রুমানার ব্যাপারে কথা হলে তিনি বলেন, আমি তার অবস্থা জানতে তাদের বাড়ীতে গিয়েছিলাম। রুমানা সেদিন বাইরে ছিল। তার বেকার স্বামীর সাথে কথা হয়। তাকে কর্ম জীবনে ফেরার জন্য বলা হয়েছে। তাদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করা হবে।
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Comp 1_3.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]