রোববার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ৪ আশ্বিন ১৪২৮

শিরোনাম: ই-কমার্স গ্রাহকদের নিয়ে পরামর্শ দিলেন হাইকোর্ট    আদালতে জেমস    খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও বাড়ল    জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান হলেন শাফিন আহমেদ    বিএনপি দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে: ওবায়দুল কাদের    ইভ্যালির রাসেল দম্পতির বিরুদ্ধে আরেক মামলা    ডিআইজি প্রিজন্স পার্থ গোপাল কারাগারে   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
সীমান্ত সজলের টেলিফিল্ম ‘তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে’
রাকিবুল হাসান
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:৫৮ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

শুকনো মৌসুমে যে তেপান্তরের মাঠের সবুজ ধান ক্ষেতের আল ধরে কাকতাড়ুয়ার পিছে ছুটে বেড়াতো শফিক আর আয়েশা। বর্ষাকালে বৃষ্টির পানিতে ডুবে সে তেপান্তরের মাঠ জলে টইটম্বুর হলে শাপলা ফুলের গয়না পরিয়ে জামাই বৌ বৌ খেলতো সে শফিক আর আয়েশা। পুতুল খেলার বয়স থেকে যৌবন কালে এসেও তারা দু'জন জামাই বৌ বৌ খেলতো। তখন থেকে আয়েশা স্বপ্ন দেখে কোন একদিন শফিকের হাত ধরে ভালোবেসে সে তেপান্তরের মাঠ পেরোবে। 

ভালোবাসার আকুতি ভরা ভিন্ন ধাঁচের গল্পের বৈচিত্র নিয়ে তরুণ গুণী নির্মাতা সীমান্ত সজল এর গল্প, চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় নির্মিত হলো বিশেষ টেলিফিল্ম তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে। গল্পের মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন  মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া, শিপন মিত্র, আবুল হায়াত ও দিলারা জামান। আজ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ বুধবার বিকেল ৩ টায় চ্যানেল আই তে এই বিশেষ টেলিফিল্ম টি প্রচারিত হবে। 

 তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে নিয়ে এই সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী টয়া বলেন, নির্মাতা সীমান্ত সজল এর সাথে এটা আমার ১ম কাজ। হোয়াটসঅ্যাপে গল্প পড়েই আমার ভালো লেগে যায়। ভালো লাগা থেকেই ভিন্ন চরিত্রে নিজেকে উপস্থাপন করার ইচ্ছা নিয়ে কাজটা করতে আসি। শুটিং সেটে কাজ করতে এসে নতুন এক সীমান্ত সজল কে খুঁজে পাই আমি। এত যত্ন নিয়ে ভদ্রলোক কাজ করেন যা আমাকে সত্যি মুগ্ধ করেছেন। তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে গল্পের সময়কে নির্মাতা দুই ভাগে ভাগ করেছেন।  মুক্তিযুদ্ধের আগের গল্প আর দেশ স্বাধীনের পর বর্তমান প্রেক্ষাপটে এই সময়ের গল্প। আমার ভাগে পড়ে দেশ স্বাধীনের আগে ষাট দশকের প্রেক্ষাপট। সময়কে সঠিকভাবে তুলে ধরার জন্য পোশাক পরিকল্পনা নিয়ে নিখুঁত গবেষণা করেই কাজটি করা হয়। গল্পটা আমি আগে থেকেই বলে দিতে চাই না। চমক থাকুক দর্শকদের জন্য। তবে এক কথায় বলবো অনেকদিন পরে একটা ভালো স্ক্রিপ্টে কাজ করে তৃপ্তি পেলাম।আশা করি দর্শকদের অনেক ভালো লাগবে।

নির্মাতা সীমান্ত সজল বলেন, তেপান্তরের মাঠ পেরিয়ে আমার অনেক যত্ন, অনেক ভালোলাগা, ভালোবাসার কাজ। স্ক্রিপ্ট লিখতে গিয়ে রাতে আমি যেমন কেঁদেছি, শুটিং করতে গিয়েও মনিটরে বসে আমি কেঁদেছি।আশা করি টেলিফিল্মটি দেখতে গিয়ে বাংলাদেশের প্রতিটি দর্শকও চোখের জলে ভাসবেন।আমি চিরকৃতজ্ঞ চ্যানেল আই এর প্রতি। কাজটা সুন্দর করে করার জন্য আমাকে সর্বাত্মক সমর্থন করার জন্য।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/agrani.gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]