শুক্রবার ৬ আগস্ট ২০২১ ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

শিরোনাম: মেসির বার্সা ত্যাগ, আনুষ্ঠানিক ঘোষণা    প্রযোজক রাজ মাদক মামলায় রিমান্ডে    পরীমনিকে রিমান্ডে পেল পুলিশ    রাতেই আদালতে পরীমনি-রাজ, রিমান্ড আবেদন     ভারতকে বাদ দিয়ে ব্রিটেনের লাল তালিকায় বাংলাদেশ    সিনোফার্মের সাড়ে ৭ কোটি টিকা কিনছে বাংলাদেশ    ভ্যাট দিল গুগল   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
'কেউ যদি নিজের ইউনিফর্মকে ভালবাসে তাহলে সে পুলিশকে কলংকিত করবেনা'
মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান
প্রকাশ: শনিবার, ৩ জুলাই, ২০২১, ৫:১৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

২রা জুলাই, ২০২১। চাকরীর ১৭ বছরে পদার্পন করলাম আজ। আমি পুলিশ ‘বাই চয়েস নট বাই চান্স‘। স্কুল জীবন থেকেই ইউনিফরমের প্রতি টানটাই পুলিশে আসার প্রথম কারন, গত ১৬ টি বছর পেশাদারীত্বের সাথে দায়িত্ব পালনের করতে চেয়েছি, জানিনা কতটা পেরেছি; পুলিশের চাকরীতে নানারকম এক্সটারনাল ও ইনটারনাল চাপ থাকে যা মাঝেমাঝে স্ট্রেস তৈরী করে, মনে হয় ধূত কি এক চাকরী; পরক্ষনেই অনেক অসহায়ের মুখে হাসি ফোটানোর যে অনুভূতি, তার মূল্য কোটি টাকার বেশী, মনে হয় এটাই তো জীবনের উদ্দেশ্য হওযআ উচিত। আমি সবসময় মনে করি মানুষের সেবা করার নত কোন পেশা থাকলে সেটা ডাক্তার , পুলিশ আর সবচেয়ে ভাল পারেন রাজনীতিবিদরা; আর মানুষের ভালবাসা পাওয়ার জন্য সবচেয়ে কাঙ্খিত পেশাগুলোও এগুলো।

গত ১৬ বছরের চাকরী জীবনের কত শত স্মৃতি। কত শত অপরাধীর সাথে কথা বলার সূযোগ, তাদের অপরাধ ইতিহাস, অপরাধে জড়িয়ে পরার কাহিনী, অপরাধী মনস্তত্ব বোঝার চেষ্টা করেছি; কতজনকে দেখলাম, জানলাম এই বছরগুলোতে; চোর ডাকাত ধর্ষক খুনী মাদক ব্যবসায়ী টেররিস্ট প্রতারক হোযাইট কলার ক্রিমিনাল,ইয়ত্তা নেই। আমি ভাগ্যবান যে পুলিশের চাকরীতে এসে পুলিশিংটা করার সূযোগ পেয়েছি, অনেকের  ক্ষেত্রে যেটা ডেস্ক জবেই সীমাবদ্ধ; ইউএন মিশন, ১৩ টি দেশে প্রশিক্ষনের সূযোগ সাথে উন্নত দেশের পুলিশিং, পুলিশ কালচার, প্রাকটিস, ট্যাকটিস দেখার সূযোগ, কত দেশের পুলিশ সদস্যদের সাথে পরিচয়, ফেসবুকের সূত্রে সে পরিচয় বন্ধুত্বে পরিনত হওয়া, এগুলো নিশ্চয়ই এই জীবনের বড় এক প্রাপ্তি।

এসপি হওযার আগ পর্যন্ত মাঠপর্যায়ে অভিযান, মামলার রহস্য উদঘাটনের যে তৃপ্তি তা এখন মিস করি; এখন  নিজ ইউনিটে কোন ঘটনা ঘটলে সহকর্মীদের নির্দেশনা দেয়া, তাদের লেগে থাকার ফলে সফলতা তৃপ্ত করে, কাঙ্খিত ফললাভে ব্য্রথ হলে আবার একইভাবে মন খারাপ হয়;সবচেয়ে আনন্দ পাই সাধারন মানুষের মুখে একটু হাসি ফোটাতে পারলে; এতদিনে আমি বুঝি পুলিশের কাছে মানুষের চাওয়া খুব কম; একটু ভাল করে তাদের সমস্যা শোনা, সমাধানের উদ্যোাগ নেয়াত্ই তারা খুশী, যাদের নিজেদের কআন সমস্যা নেই তারা চায় নিরাপদে চলতে, এলাকাটা মাদকমুক্ত থাকুক, সন্ত্রাসী চাদাবাজরা আইনের আওতায় আসুক; সারা পর্থিবীতেই পুলিশিং একটি থ্যাংকসলেস জব; তাই  যখন কেউ উপকারের বিনিময়ে একটু  কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তখন মনটা ভরে যায়; ইদানি ভাবি এ জীবনের কি আদৌ কোন মূল্য আছে; কয়জন চেনে, জানে আমাকে, মনেই রাখবে কতজন, কি করতে পারলাম সাধারন মানুষের জন্য; এই করোনায় কত কোটিপতি ডাকসাইটে হোমরা চোমরা ক্ষমতাশীল মরে গেলেন , তাদের কবরেও কেউ সচরাচর যায়না, একসময় যারা ক্ষমতাশীল দাপুটে আমলা এখন তাদের সময় কাটেনা;বন্ধুবিহীন দিন পার করেন, হয়ত সরকারী অফিসে যান, বসে থাকেন; এগুলো দেখে উপলদ্ধি করি ক্ষমতা কত ক্ষনস্থায়ী, তাই ক্ষমতার চর্চা বাদ দিয়ে মানুষকে ভালবাসার, তাদের  জন্য কিছু করার চেষ্টা করা উচিত, আর প্রয়োজন  কিছু ভাল বন্ধু, যারা স্রেফ আড্ডার সঙ্গী হবে, তথাকথিত নেটওয়ার্ক এর অংশ হবেনা, শুধুমাত্র নিজ স্বার্থসিদ্ধির  জন্য মিশবে না। চাকরীর এই পর্যায়ে এসে আরেকটা জিনিস টের পাই,  আশেপাশের পন্কিলতা; স্রোতের বিপরীতে চলা যে কত কঠিন তা টের পাই; আশেপাশে কত ষড়যন্ত্রের জাল, অন্যায়ে বাধা পেলে ঐ জাল দিয়ে বেধে ফেলতে চায় অন্যায় কাজে জড়িতরা; কখনও রক্তচক্ষু প্রদর্শন, তাতে কাজ না হলে প্রলোভন, তা না হলে কুটকৌশল, কান ভারী করা।

মান্যবর আইজিপি স্যার প্রায়শই একটা কথা বলেন আমাদের নিজেদের চাকরীর প্রতি প্রাইড; ইউনিফরমের প্রতি ভালবাসা থাকতে হবে; আসলেই তাই, কেউ যদি নিজের ইউনিফর্মকে ভালবাসে তাহলে সে নিজেকে কলংকিত করতে পারবেনা; পুলিশকে কলংকিত করবেনা। আমার কাছে একটা বোনাস বা ইনক্রিমেন্টের চেয়ে ইউনিফর্মের শার্টের বাম পকেটের উপরে আরেকটা রিবন যোগ হওযা অনেক বেশী গৌরবের ও আকাঙ্খার। 

আইজিপি স্যার পুলিশ সদস্যদের হ্যামিলিয়নের বাশিওয়ালা হতে বলেন, যার ডাকে ছুটে আসবে সকলে একযোগে, যার পেছনে লাইন ধরবে সকলে; আর আমি আমি আমার সহকর্মীদের শোনাই রবীন্দ্রনাথের কবিতা

"চিত্ত যেখা ভয়শূন্য, উচ্চ যেথা শির"



পুলিশকে হতে হবে এমনই।

সামনের দিনগুলোতে যেন এই লাইনটা ধারন করে চাকরী করতে পারি মাথা উচু করে, আজকের দিনে মহান আল্লাহতায়ালার কাছে সেটাই চাওয়া।

সকলের প্রার্থনায় থাকতে চাই।

মহিবুল
পুলিশ সুপার পাবনা

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/agrani.gif
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]