বৃহস্পতিবার ২২ এপ্রিল ২০২১ ৯ বৈশাখ ১৪২৮

শিরোনাম: ফর্মুলা গোপন রাখার শর্তে রাশিয়ার টিকা উৎপাদন করবে বাংলাদেশ    সেই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে বরিশালে বদলি    তালিকা পাঠান, অভিযুক্ত সকলকে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে জেলে যাব: বাবুনগরী    ব্যাংককে হেফাজত-বিএনপি গোপন বৈঠকে ষড়যন্ত্র, নেপথ্যে ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজ হান্নান    হেফাজত নেতা ইহতেশামুল হক গ্রেফতার    জলবায়ু পরিবর্তন: বিশ্বনেতাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ৪ পরামর্শ    ভাঙলো মুমিনুল-শান্তর ২৪২ রানের জুটি   
জাকারবার্গসহ ৫৩ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস!
প্রযুক্তি ডেস্ক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১, ২:১৪ পিএম আপডেট: ০৬.০৪.২০২১ ২:৩৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

খুব বাজে সময় যাচ্ছে ফেসবুকের। সম্প্রতি বিশ্বের ৫৩ কোটি ৩০ লাখেরও বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস করেছে হ্যাকাররা, যার মধ্যে বাংলাদেশি রয়েছেন ৩৮ লাখেরও বেশি। হ্যাকারদের কাছ থেকে রেহাই পাননি ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গও।

জানা গেছে, এসব তথ্যের মধ্যে রয়েছে ফেসবুক আইডি নম্বর, প্রফাইলে দেওয়া নাম, ই-মেইল অ্যাড্রেস, বসবাসের ঠিকানা, ব্যবহারকারী পুরুষ না নারী, পেশাসহ বেশ কিছু তথ্য। একজন ব্যবহারকারী ফেসবুক প্রফাইল তৈরি করার সময় যেসব তথ্য দিয়ে থাকেন মূলত সেগুলোই হ্যাক করা হয়েছে।

সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ডেভ ওয়াকার বলেছেন, জাকারবার্গ ছাড়াও ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ক্রিস হিউজেস এবং ডাস্টিন মোসকোভিটস ওই কোটি কোটি ব্যবহারকারীদের মধ্যে ছিলেন, যাদের ফেসবুক তথ্য ফাঁস হয়েছে।

ওয়াকার টুইটারে লিখেছেন, পরিহাসের বিষয় হলো ৫৩৩ মিলিয়ন মানুষের ফেসবুক ফাঁসের বিড়ম্বনায় জাকারবার্গ নিজেও রয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, আফগানিস্তানের ৫ লাখ ৫০ হাজার, অস্ট্রেলিয়ার ১২ লাখ, বাংলাদেশের ৩৮ লাখ, ব্রাজিলের ৮০ লাখ এবং ভারতের ৬১ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য ফাঁস হয়েছে।

অন্যদিকে মার্কিন সংবাদ মাধ্যম বিজনেস ইনসাইডারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বের ১০৬টি দেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়েছে। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ৩ কোটি ২০ লাখ, যুক্তরাজ্যের ১ কোটি ১০ লাখ এবং ভারতের ৬০ লাখেরও বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারী তথ্য ফাঁসের তালিকায় রয়েছেন।

এ বিষয়ে ফেসবুকের একজন মুখপাত্র বলছেন, এটা এখনের নয়, এসব তথ্য ২০১৯ সালের আগস্টে ফাঁস হয়েছিল। কিন্তু তা তখনই ঠিকঠাক করে ফেলা হয়েছিল। কোম্পানির দুর্বলতার কারণে ডাটা ফাঁস করা হয়েছিল বলেও জানান তিনি।

সাইবার ক্রাইম গোয়েন্দা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান হাডসন রকের সিটিও, যিনি প্রথম আবিষ্কার করেছেন তথ্য ফাঁস হয়ে যাওয়ার বিষয়টি, সেই অ্যালন গাল বলেন, কয়েক বছর হলেও ফাঁস হওয়া তথ্যগুলো সাইবার অপরাধীদের কাছে মূল্যবান তথ্য সরবরাহ করতে পারে। যারা লোকেদের ব্যক্তিগত তথ্য ব্যবহার করে কেলেঙ্কারী করে দিতে পারেন। এমনকি ঘটতে বড় ধরনের সাইবার অপরাধও। সাইবার অপরাধীরা এসব তথ্য ব্যবহার করে যেকোনো ব্যক্তির কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিতে পারেন।

ভোরের পাতা/ই

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  

সারাদেশ

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]