শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১ ১০ বৈশাখ ১৪২৮

শিরোনাম: শপিংমল ও দোকানপাট খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত    মুন্সিগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ধান কাটা কার্যক্রমের শুভ সূচনা    ৫৪১ রানে বাংলাদেশের ইনিংস ঘোষণা    বিএনপি ছাড়ছেন মির্জা আব্বাস দম্পত্তি!    ইলিয়াস আলী ইস্যু: মির্জা আব্বাসের বক্তব্যের ব্যাখ্যা চেয়েছে বিএনপি    পিআইবির ডিজি পদে ফের নিয়োগ পেলেন জাফর ওয়াজেদ    সাম্প্রদায়িক উগ্রগোষ্ঠীকে কঠোর হস্তে দমন করতে হবে: এম এ লিংকন মোল্লা   
ফিরোজায় যেভাবে সময় কাটছে খালেদার!
উৎপল দাস
প্রকাশ: শনিবার, ৬ মার্চ, ২০২১, ৩:২৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

দুর্নীতি-সন্ত্রাসের মাধ্যমে অর্জন করেছেন অঢেল সম্পত্তি। জীবনযাপন নিয়ে তাই নেই বিন্দুমাত্র চিন্তা। গত বছরের ২৫ মার্চ শেখ হাসিনার সরকারের মহানুভবতায় মুক্তির পর আছেন বহাল তবিয়তে। ঘুম থেকে ওঠেন আগের মত দেরিতে, বাকি অধিকাংশ সময় কাটান টেলিভিশন দেখেই। বিশেষ করে শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন দেখে তিনি মুগ্ধ হয়ে গেছেন বলেও নিশ্চিত হয়েছে ভোরের পাতার এ প্রতিবেদক। এছাড়া পাকিস্তানি সিনেমা ও হিন্দি সিরিয়ালও নিয়মিত দেখছেন বলে খালেদা জিয়ার সঙ্গে থাকা নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র বিষয়গুলো নিশ্চিত করেছে।

দায়িত্বশীল সূত্রের তথ্যমতে, দুর্নীতির মামলায় দুই বছরের বেশি সময় কারাভোগের পর ২০২০ সালের ২৫ মার্চ শর্তসাপেক্ষে সরকারের নির্বাহী আদেশে ছয় মাসের জন্য মুক্তি পান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সেপ্টেম্বরে বাড়ানো হয় আরও ছয় মাস মেয়াদ। মুক্তির পর থেকে গত ১১ মাস ধরে তিনি অবস্থান করছেন গুলশানের বাসভবন ‘ফিরোজায়’। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে বড় ছেলে তারেক রহমানের স্ত্রী জোবাইদা রহমানের তত্ত্বাবধানে। আর দেখভাল করছেন গৃহকর্মী ফাতেমা। গোসল থেকে শুরু করে সব কাজে তিনি খালেদাকে সহায়তা করেন। সবমিলিয়ে নিশ্চিন্ত জীবন বিএনপির। তাই, পূর্বের ন্যায় বেপরোয়া জীবনযাপনে ফিরে গেছেন তিনি। ঘুম থেকে উঠছেন দেরিতে। নাস্তা সেরে বসছেন টেলিভিশন দেখতে। সেই যে বসছেন, এরপর গোসল, দলীয় নেতা কিংবা পরিজনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং মোবাইলে গল্প করা ছাড়া তিনি উঠছেন না। সারাটি দিন হিন্দি সিরিয়াল ও পাকিস্তানি সিনেমা দেখে সময় পার করছেন।

এ ব্যাপারে খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম জানান, গৃহকর্মী ফাতেমা সার্বক্ষণিক খালেদার সঙ্গে থাকেন। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে তিনি এবং তার ভাইয়ের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা বেশি দেখা করতে যান। এছাড়া ভাই শামীম এস্কান্দার, ভাতিজা শাফিন এস্কান্দার, তার স্ত্রী অরনী এস্কান্দার, তারেক রহমানের শাশুড়িসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের পাশাপাশি দলীয় নেতারাও যান তার সঙ্গে দেখা করতে। বাকীটা সময় টেলিভিশন দেখে আর ফোনে কথা বলেই কাটান তিনি। মাঝেমধ্যে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা আসেন। চেকআপ শেষে আবার চলে যান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক নেতা এই প্রতিবেদককে বলেন, পছন্দের কিছু নেতাকর্মী ছাড়া অন্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন না খালেদা। শুধু তাই নয়, ‘ফিরোজা’র দারোয়ানকেও সাফ দিয়েছেন, প্রদত্ত তালিকার বাইরে অন্য কেউ যেন অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে না পারে। করলেই তার চাকরি থাকবে না। এ কারণে শতভাগ ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও আমরা তার সঙ্গে দেখা করতে পারি না।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ভাষ্য, দেশ ও দশের কোন চিন্তাভাবনা বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার অতীতেও ছিলো না। এখনও নেই। বরাবরই তার ধ্যান-ধারণা ছিলো আত্মকেন্দ্রিক। যার কারণে তিনি ‘গরীবের হক মেরে’ বানিয়েছেন নিজের সাম্রাজ্য। তারই দেখানো পথে হেঁটেছেন জ্যেষ্ঠপুত্র তারেক রহমানও। এখন তাই সরকারের অনুকম্পায় মুক্তি নিয়ে ‘নিশ্চিন্ত সুখী’ জীবন কাটাচ্ছেন তিনি। অবসর কাটাচ্ছেন টেলিভিশন দেখে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


আরও সংবাদ   বিষয়:   প্রতিবেদক   ফিরোজা   খালেদা   সূত্র   শেখ হাসিনা   সরকার   সম্পত্তি   জীবনযাপন  







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  

সারাদেশ

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]