সোমবার ● ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ● ৪ মাঘ ১৪২৭ ● ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
ঝিকরগাছায় ভূট্টার বাম্পার ফলন
রফিকুল ইসলাম, ঝিকরগাছা
প্রকাশ: বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:০২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ঝিকরগাছায় ভূট্টার বাম্পার ফলন
যশোরের ঝিকরগাছায চলতি মৌসুমে ভুট্টার আবাদে বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের মতে, ১০৫০জন ভুট্টাচাষি ৯০হেক্টর জমিতে ভূট্টার আবাদ করেছেন। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হযেছে ৯৫মেট্রিক টন। গেলবার ৮০হেক্টর জমিতে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিলো। এবছর ১০হেক্টর জমিতে বেশি উৎপান করা হয়েছে। 

এবছর উপজেলার নাভারণ, পানিসারা ও গদখালী ইউনিয়নের কৃষকেরা ভুট্টা চাষে এগিয়ে রয়েছেন। অন্যান্য ইউনিয়নেও ভুট্টাচাষ কমবেশি লক্ষ্য করা গেছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ মাসুদ হোসেন পলাশ জানিযেছেন, ভুট্টার আবাদ লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছি। তিনি বলেন, ‘সুপার সাইন-২৭৬০ জাতের ভূট্টা উন্নত জাতের ও উৎপাদন বর্ধনশীল। বোরো আবাদের চেয়ে তিনগুণ লাভজনক হওয়ায় কৃষকেরা এই জাতের ভূট্টার আবাদের আগ্রহী হয়ে উঠছেন বলে দাবী এই কৃষিবিদের।

তিনি জানান, ঝিকরগাছা উপজেলার নাভারণ ইউনিয়নের কলাগাছি গ্রামের সোহরাব আলী ১২বিঘা, পানিসারা ইউনিয়নের নারাঙ্গালি গ্রামের জামাল সরদার ১৫বিঘা, গাদখালী ইউনিয়নের বরাবাকপুর গ্রামের আলী হোসেন ১০বিঘা, ঝিকরগাছা সদর ইউনিয়নের হাড়িয়াদেয়াড়া গ্রামের আরাফাত মল্লিক সাড়ে ৪বিঘা জমিতে ভূট্টার আবাদ করে লাভজনক অবস্থানে রয়েছেন।

তাদের দেখাদেখি আরও অনেক কৃষক ভূট্টার আবাদে উৎসাহিত হচ্ছেন। কৃষক আরাফাত মল্লিক জানিয়েছেন তার সাড়ে ৪বিঘা জমিতে প্রতি বিঘায় সুপার সাইন জাতের ভূট্টার বীজ ৪কেজি বপণ করা হয়। যার প্রতি কেজি ৩২০-৩৩০ টাকা দরে মোট ১৮/১৯কেজি বীজ বপণ করি। এরপর বীজতলা প্রস্তুত করতে ৪জনের মজুর বাবদ ১২০০টাকা হারে ৪৮০০টাকা, সেচ, সার টিএসপি প্রতি বিঘায় ২ কেজি, পটাশ ১০কেজি, ইউরিয়া ১৫কেজি, ক্যালসিয়াম জিপসাম ১কেজি, দস্তা ২কেজি, সালফেট ১০কেজি, বোরন ১কেজি সর্বমোট মিলিয়ে ২৮/৩০ হাজার টাকা ব্যয় হয়।

তিনি আশা করছেন তার সাড়ে ৪ বিঘা জমিতে প্রতি বিঘায় ৫০মণ করে ভ্ট্টূা পাবেন। তার ভ্ট্টূাক্ষেতের প্রতিটি গাছে ৩/৪টি করে মোঁচা ধরতে দেখা গেছে। আনুমানিক প্রতিটি ভূট্টা মোঁচা ৭/৮’শ গ্রাম হতে পারে। উৎপাদন খরচ অপেক্ষা তিনগুণ লাভের আশার করছেন তিনি। ১২বিঘা দুধ সাগর জাতের কলার আবাদ করে তাক লাগিয়ে দেয়া আদর্শ এই কৃষক আরাফাত মল্লিকের ভূট্টার ক্ষেত দেখতে ছুটে আসছেন আশপাশ এলাকার অনেক কৃষক।

প্রতিমণ কাঁচাভূট্টার ৭৫০টাকা ও শুকনা ভূট্টা ৮৫০ টাকা দরে বিক্রি করতে পারবেন বলে আশা করছেন আরাফাত মল্লিক। বাজারে প্রতিমণ দানা ভুট্টা সাড়ে ৭ থেকে ৮শ টাকা ও খুচরা গুড়াভুট্টা বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ২২/২৩ টাকা। ভুট্টা মাছ ও গো-খাদ্যের প্রযোজন মেটাতে সহায়ক ভূমিকা রাখে। উদ্যোক্তা খামারিদের কাছে তাই ভুট্টার গুরুত্ব রয়েছে।







আরও সংবাদ
https://www.dailyvorerpata.com/ad/BHousing_Investment_Press_6colX6in20200324140555 (1).jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/431205536-ezgif.com-optimize.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/agrani.gif
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]