সোমবার ● ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ● ৪ মাঘ ১৪২৭ ● ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
বেরোবি সাবেক ভিসি জলিলের প্রেতাত্নারা সক্রিয়: পর্ব ০৩
বেরোবিতে একচেটিয়া নিয়োগ বাণিজ্য করেছে অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার!
উৎপল দাস
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০, ৪:০৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

বেরোবিতে একচেটিয়া নিয়োগ বাণিজ্য করেছে অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার!

বেরোবিতে একচেটিয়া নিয়োগ বাণিজ্য করেছে অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ার!

উত্তরবঙ্গের দীর্ঘ দিনের আন্দোলনের ফসল বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠার একযুগেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের, এখানকার অনেক শিক্ষার্থীরা নিজ যোগ্যতা বলে বাংলাদেশ বিভিন্ন প্রান্তরে বিশ্ববিদ্যালয়র সুনাম অক্ষুন্ন রাখার করার চেষ্টা করলেও সাবেক ভিসি জলিল মিয়ার পেতাত্নারা এখনো সক্রিয় রয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিকে ঘিরে নানামূখী বিতর্ক এবং ষড়যন্ত্র নিয়ে দৈনিক ভোরের পাতার ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজ থাকছে তৃতীয় পর্ব।

উচ্চ শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে অগ্রসরমান বিশ্বের সাথে সঙ্গতি রক্ষা ও সমতা রক্ষা সমতা অর্জন এবং জাতীয় পর্যায়ে উচ্চশিক্ষা, গবেষণা আধুনিক  জ্ঞানচর্চা পঠন পাঠনের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্য বেগম রোকেয়া  বিশ্ববিদ্যালয়ের সুচনা হলেও প্রফেসর ড.গাজী মাযহারুল আনোয়ারের মতো কিছু শিক্ষকের কারণে পিছেয়ে  যাচ্ছে উত্তরাঞ্চালের মানুষের স্বপ্নের বিশ্ববিদ্যালয়টি। বেরোবির দ্বিতীয় উপাচার্য জলিল মিয়া কর্তৃক নিয়োগদানের পর তার সকল অন্যায় অপকর্মের দোসর ছিলেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার। নিয়োগ বাণিজ্য ছিল তার একচেটিয়া আধিপত্য। তিনি তার বিভিন্ন আত্মীয়স্বজনকে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ দিয়েছেন। 

ভোরের পাতার অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে, বিশ্ববিদ্যালয়টিতে শুধু পরিবারের লোকজনকেই চাকরি দেননি গাজী মাজহারুল আনোয়ার এবং তার সহযোগীরা। টাকার বিনিময়ে অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারীর যোগ্যতা না থাকার পরও তারা চাকরি বাগিয়ে নিয়েছে। এমনকি তার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে শিক্ষক হিসেবে আছেন ইতিহাস বিভাগের আরা তানজিয়া শালিকার মেয়ে, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শরিফুল ইসলাম ভগ্নীজামাই, মার্কেটিং বিভাগের শাহজালাল।

কর্মকর্তা হিসেবে গাজী মাজহারুল আনোয়ার তার ভাইরার মেয়ে  রুমানা ফেরদৌসি জলিল রিচার্স অফিসার হিসাবে, ভাইরা রেজাউল করিম শাহ্ সহকারী পরিচালক অর্থ ও হিসাব, সুভেনির সেকশন অফিসার হিসাবে ভাইরার ভাই মাহবুবুর রহমান, হিসাবরক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন কম্পিউটার অপারেটর সীমা আক্তার, মনিরা খাতুন, তাহমিনা আফরোজ লিপিকে। এসব নিয়োগের সময় কোনো ধরণের নিয়ম নীতির তোয়াক্কাও করা হয়নি বলে অভিযোগ রযেছে। 

এম এল এস হিসেবে আছে আব্দুল মান্নান মন্ডল ও তার স্ত্রী। অফিস সহকারী হিসেবে আছে  হুমায়ন কবীর , ওবায়দুর রহমান  তারা সবাই বিতর্কিত শিক্ষক গাজী মাজহারুল আনোয়ারের নিকটাত্মীয়।

এক্ষেত্রে একজন শিক্ষককের পরিবারের এতজন সদস্যদের নিয়োগ বাণিজ্যের মাধ্যমে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি দেয়ার কারণে প্রশাসন থেকে শুরু করে কর্মচারীরা নিজেদের খুব শক্তিশালী ভাব দেখায়। এমনকি অনেক সিনিয়র অধ্যাপকের সাথেও খুব বাজে ব্যবহার করে তারা। এক্ষেত্রে তাদের প্রথম খুটি হিসাবে কাজ করতেন সাবেক উপাচার্য আব্দুল জলিল মিয়া। দুর্নীতির দায়ে জলিলের কারাগারে যাওয়ার পর অনেকটা চুপ থাকার পর আবারো শিক্ষক সমিতির সভাপতি হন তারই ভায়রা ভাই অধ্যাপক গাজী মাজহারুল আনোয়ার। গোপনে জামায়াত বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এখন আত্নীয়দের সাথে নিয়ে আবারো বিশ্ববিদ্যালয়টি সার্বিক পরিস্থিতি ঘোলাটে করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন এই অধ্যাপক। 

চলবে...







আরও সংবাদ
https://www.dailyvorerpata.com/ad/BHousing_Investment_Press_6colX6in20200324140555 (1).jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/431205536-ezgif.com-optimize.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/agrani.gif
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]