শুক্রবার ● ২৭ নভেম্বর ২০২০ ● ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ ● ১০ রবিউস সানি ১৪৪২
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
বেরোবি সাবেক ভিসি জলিলের প্রেতাত্নারা সক্রিয়: পর্ব ০২
ক্ষমতালোভী, জামায়াত পৃষ্ঠপোষক বেরোবি অধ্যাপক গাজী মাজহারুল আনোয়ারের বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই!
উৎপল দাস
প্রকাশ: রোববার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০, ৭:৪৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ক্ষমতালোভী, জামায়াত পৃষ্ঠপোষক বেরোবি অধ্যাপক গাজী মাজহারুল আনোয়ারের বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই!

ক্ষমতালোভী, জামায়াত পৃষ্ঠপোষক বেরোবি অধ্যাপক গাজী মাজহারুল আনোয়ারের বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই!

উত্তরবঙ্গের দীর্ঘ দিনের আন্দোলনের ফসল বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠার একযুগেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের, এখানকার অনেক শিক্ষার্থীরা নিজ যোগ্যতা বলে বাংলাদেশ বিভিন্ন প্রান্তরে বিশ্ববিদ্যালয়র সুনাম অক্ষুন্ন রাখার করার চেষ্টা করলেও সাবেক ভিসি জলিল মিয়ার পেতাত্নারা এখনো সক্রিয় রয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিকে ঘিরে নানামূখী বিতর্ক এবং ষড়যন্ত্র নিয়ে দৈনিক ভোরের পাতার ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজ থাকছে দ্বিতীয় পর্ব।

সূত্র জানিয়েছে, উচ্চ শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে  অগ্রসরমান বিশ্বের সাথে সঙ্গতি রক্ষা ও সমতা রক্ষা সমতা অর্জন এবং জাতীয় পর্যায়ে উচ্চশিক্ষা, গবেষণা আধুনিক  জ্ঞানচর্চা পঠন পাঠনের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্য বেগম রোকেয়া  বিশ্ববিদ্যালয়ের সুচনা হলেও প্রফেসর ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ারের মতো কিছু শিক্ষকের কারণে পিছেয়ে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চালের মানুষের স্বপ্নের বিশ্ববিদ্যালয়টি। সাবেক উপাচার্য জলিল মিয়া কর্তৃক নিয়োগদানের পর তার সকল অন্যায় অপকর্মের দোসর ছিলেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার। নিয়োগদানের পর থেকেই ক্ষমতা লোভ পেয়ে বসেছিল তার। তাইতো তিনি তার আপন ভাইরা জলিল মিয়াকে দিয়ে জৈষ্ঠ্যতা লংঘন করে আর এম হাফিজুর রহমানকে টপকিয়ে বিজ্ঞান অনুষদের ডিন পদটি তিনি তার নিজের কব্জায় নেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপাচার্য আসার পর তার সাথে সুবিধা  করতে না পারায় আন্দোলনে জড়িয়ে পরেন। এজন্য ব্যাহত হয় শিক্ষা কার্যক্রম। তার নেতৃত্বে লাগাতার আন্দোলন চলতে থাকলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ শিক্ষার্থীদের পড়তে হয় ভয়াবহ সেশনজটে। উল্লেখ্য তার ভায়রা ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য শিক্ষার্থীদের কোনো দাবির তোয়াক্কা না করলে সেশনজটের সৃষ্টি হয় । এমনকি জামায়াত শিবিরকে পৃষ্ঠপোষকতা করারও অভিযোগ রযেছে অধ্যাপক গাজী মাজহারুল আনোয়ারের বিরুদ্ধে। বেরোবি ছাত্রলীগের নেতারা অভিযোগ করে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদাসীনতার কারণে রাতের আধারে ক্যাম্পাসে সরকার বিরোধী পোস্টার লাগায় স্বাধীনতা বিরোধী চক্র। এছাড়া ক্যাম্পাসে জামায়াত-শিবির ও অন্যদের তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে অতীতে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি এবং পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. গাজী মাজহারুল আনোয়ারের নেপথ্য পৃষ্ঠপোষকতার কারণে বারবার বেরোবিতে জামায়াত-বিএনপির গোপন রাজনীতি প্রকাশ্যেও এসেছে। 

সূত্র দাবি করেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ উপাচার্য যোগদানের পর তিনি কিছু বুঝে উঠার আগেই চতুরতার সাথে তার প্রশাসনের সাথে মিশে যান ক্ষমতালোভী এই মানুষ গাজী মাজহারুল আনোয়ার। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদ নিজের কব্জায় নিয়ে নেন তিনি। উপাচার্য আসার পর শিক্ষার্থীরা দাবি জানায় দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা ক্যাফেটেরিয়া নিয়ে শিক্ষার্থীবান্ধব উপাচার্য প্রফেসর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ তাদের কথা আমলে নিয়ে ক্যাফেটেরিয়া চালু করার দায়িত্ব দেন গাজী মাজহারুল আনোয়ারের উপর। উপাচার্য তার উপর আস্থা রেখে দায়িত্ব দিলেও তিনি তার ক্যাটারিং ব্যাবসা থাকার কারণে ক্যাফেটেরিয়া চালু করতে গড়িমসি করতে থাকেন। উপাচার্যের কাছে বিভিন্ন জনের নিয়োগ নিয়ে তদবির করলে উপাচার্য তার কথা আমলে নেননি। 

সর্বশেষ তার এক নিকটাত্মীয়কে একটি বিভাগের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগদানের জন্য উঠেপড়ে লাগে। পরে সেখানে ব্যর্থ হয়ে তিনি বর্তমান উপাচার্যের প্রশাসনের বিরুদ্ধে কাজ করতে থাকেন। তার নেতৃত্বে আবার উপাচার্য বিরোধী আন্দোলন শুরু হয়। তিনি বিভিন্ন জায়গায় উপাচার্য বিরোধী বিভিন্ন কথা বলতে শুরু করেন যদিও প্রথমদিকে তিনি উপাচার্যের জয়গানই করতেন। অর্থাৎ একই মানুষের ভিন্ন রুপ। তার নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়কে অস্থিতিশীল করতে বিভিন্ন পরিকল্পনা করা হয়। এর ফলে আবারো সৃষ্টি হয় সেশনজটের। উপাচার্যের দক্ষ নেতৃত্বে তার পরিকল্পনা সব ভেস্তে যায়। 

এসব অভিযোগের বিষয়ে ফোন করা হলেও অধ্যাপক ড. গাজী মাজহরুল আনোয়ারের ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেছে। 

চলবে...

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






আরও সংবাদ
https://www.dailyvorerpata.com/ad/BHousing_Investment_Press_6colX6in20200324140555 (1).jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/431205536-ezgif.com-optimize.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/agrani.gif
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com