মঙ্গলবার ● ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ● ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ ● ১০ সফর ১৪৪২
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
করোনাকালে শেখ হাসিনার কারণে অর্থনীতি স্থবির হয়ে যায়নি: সিদ্দিকুর রহমান
সিনিয়র প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:৪৮ পিএম আপডেট: ১৬.০৯.২০২০ ৩:০৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

করোনাকালে শেখ হাসিনার কারণে অর্থনীতি স্থবির হয়ে যায়নি: সিদ্দিকুর রহমান

করোনাকালে শেখ হাসিনার কারণে অর্থনীতি স্থবির হয়ে যায়নি: সিদ্দিকুর রহমান

শেখ হাসিনা এখন একটি আদর্শের নাম। একাধারে তিনি মমতাময়ী মা, কঠোর প্রশাসক। বাংলাদেশের মাটি ও মানুষের বিরুদ্ধে যায় এমন কোনো সিদ্ধান্ত কোনোদিন তিনি গ্রহণ করেননি। তিনি মাতৃস্নেহে বাংলাদেশের গরীব-দুঃখী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তার হাতেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা, গণতন্ত্র সবচে নিরাপদ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই বাংলাদেশ অনেক ভালো অবস্থানে আছে। দৈনিক ভোরের পাতার নিয়মিত আয়োজন ভোরের পাতা সংলাপে এসব কথা বলেন আলোচকরা। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ভাইস প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিল্প-বাণিজ্য সম্পাদক এবং এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি ও বিজিএমই’র সাবেক প্রেসিডেন্ট সিদ্দিকুর রহমান, সুইডেন আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম জাহাঙ্গীর কবির। দৈনিক ভোরের পাতার সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসানের পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন সাবেক তথ্য সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমি আমার বক্তব্যের শুরুতেই গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি সেই ব্যক্তিকে, যিনি আমাদেরকে একটি পতাকা এনে দিয়েছেন, যার জন্ম না হলে আমরা এই স্বাধীন বাংলাদেশ পেতামনা। সেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। এই মাসে ২৮শে সেপ্টেম্বর আমাদের প্রিয় নেত্রী ৭৪ বছরে পদার্পণ করতে যাচ্ছেন, এর জন্য আমি তাকে আগাম মোবারকবাদ জানাচ্ছি।  শেখ হাসিনার জীবনটা কখনোই মসৃণ ছিলনা। ১৫ই আগস্টের কালো রাত্রি থেকে আল্লাহর রহমতে সেদিন আমাদের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহানা আপা ব্রাসেলে থাকায় বেঁচে যান। ১৫ই আগস্টের ঘটনার পর উনাকে জার্মানি যেতে হয় সেখান থেকে তাকে ভারতে চলে আসতে হয়েছিল। ভারতে তাকে নাম পরিবর্তন করে সেখানে থাকতে হয়েছিল। একটা পর্যায়ে রেহানা আপা লন্ডনে চলে যান। এরপর শেখ হাসিনা দেশে আসতে চাইলেন তখন তাকে দেশে আসার জন্য বাধা সৃষ্টি করা হয়েছিল। যার জন্ম এইদেশে, যে দেশে তার পুরো পরিবার নিহত হয়েছিলেন সেই দেশেই তিনি ফিরে আসতে পারবেন না; এইরকম একটা পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছিল তখন। উনি তখন এই নিয়ত করেই দেশে ফিরেছিলেন যে, আমার যাই হোক, আমি আমার দেশে ফিরে যাবোই যাবো। এই যে সাহস, এই সাহসটাই বা কয়জনের মধ্যে আছে। তার এই সাহসিকতার কারনেই বাংলাদেশ আজ এই অবস্থানে এসেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্র এখনো অব্যাহত রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা হয়েছিল। এই করোনাকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি এখনো পুরোপুরি থমকে যায়নি। আমি দীর্ঘদিন বিজিএমই’র প্রেসিডেন্ট ছিলাম। আমি অনেক সমস্যার সমাধানের জন্য তার বাসায় অনেক রাত্রে গিয়ে তার কাছ সমাধান চেয়েছিলাম, তিনি এত রাত্রেও তখন সেই সমস্যার সমাধান দিয়েছিলেন। এই যে এত ধৈর্য্য আর সাহসিকতার কারণে আজ আমাদের রিজার্ভ দাঁড়িয়েছে ৩৯ বিলিয়ন ডলার। এই যে করোনাকালে তিনি যেসব প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন সেটা রপ্তানি খাতে এই সময়ে ব্যাপক ভূমিকা পালন করেছে। আমাদের অর্থনীতি তার নেতৃত্বে করোনা পরবর্তী সময়ে অচিরেই আরও ঘুরে দাঁড়াবে বলেও আমি বিশ্বাস করি।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






https://www.dailyvorerpata.com/ad/BHousing_Investment_Press_6colX6in20200324140555 (1).jpg
https://www.dailyvorerpata.com/ad/last (2).gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/431205536-ezgif.com-optimize.gif
https://www.dailyvorerpata.com/ad/agrani.gif
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com