মঙ্গলবার ● ১১ আগস্ট ২০২০ ● ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭ ● ২০ জিলহজ্জ ১৪৪১
‘কমনওয়েলথ ক্লিন এনার্জি কনভারসেশন’ শীর্ষক ওয়েবিনার
নবায়নযোগ্য জ্বালানি অর্থায়নে বহুপক্ষীয় সহযোগিতায় জোর দিলেন শেখ ফজলে ফাহিম
ভোরের পাতা ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০, ৭:১৮ পিএম আপডেট: ২৯.০৭.২০২০ ৭:৩১ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

নবায়নযোগ্য জ্বালানি অর্থায়নে বহুপক্ষীয় সহযোগিতায় জোর দিলেন শেখ ফজলে ফাহিম

নবায়নযোগ্য জ্বালানি অর্থায়নে বহুপক্ষীয় সহযোগিতায় জোর দিলেন শেখ ফজলে ফাহিম

কমনওয়েলথ প্লাটফর্মের মাধ্যমে স্থানীয় নবায়নযোগ্য জ্বালানি উদ্যোগগুলোর অর্থায়নের ক্ষেত্রে বহুপাক্ষিক সহযোগিতা ও রিসোর্স শেয়ারিংয়ের ওপর জোর দিয়েছেন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম।

সম্প্রতি কমনওয়েলথ এন্টারপ্রাইজ এবং ইনভেস্টমেন্ট কাউন্সিল আয়োজিত ‘কমনওয়েলথ ক্লিন এনার্জি কনভারসেশন’ শীর্ষক ওয়েবিনারে এ বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন তিনি। চলমান এই প্রতিযোগিতামূলক বাজারে নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎসগুলোর জন্য সুষম ও সাশ্রয়ী ট্রানজিশন তৈরির বিষয়ে এ ওয়েবিনারে আলোচনা হয়।

ওয়েবিনারের আলোচনায় বলা হয়, কমনওয়েলথ দেশগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে তাদের কার্বন-ডাই-অক্সাইড নির্গমনকে উল্লেখযোগ্যভাবে কমাতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে। এখন, জীবাশ্ম জ্বালানির সীমাবদ্ধ সরবরাহ এবং তাদের ক্ষতিকারক পরিবেশগত প্রভাব প্রমাণের জন্য ক্রমবর্ধমান প্রমাণদিসহ দেশগুলো একটি বৃহৎ পরিসরে বায়ু, হাইড্রো এবং সোলারের মতো নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎসের ব্যবহারের দিকে রূপান্তরিত হচ্ছে।

বিনিয়োগের সুযোগসমূহের চ্যালেঞ্জ এবং জ্ঞান বিনিময় ও গ্রিন ইকোনোমিতে রূপান্তরের ক্ষেত্রে কীভাবে কমনওয়েলথ একটি প্লাটফর্মের ভূমিকা পালন করতে পারে এই সংক্রান্ত আলোচনায় অংশ নিয়ে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, জ্বালানি খাত এবং আগামী দিনের বিদ্যমান বিষয়গুলোকে ৬০-এর দশকের প্রথম দিকেই আলোচনায় আনা হয়েছিল। তবে এটি বাস্তবায়েনের জন্য বহুপক্ষীয় উদ্যোগে অর্থায়ন করা হলে আমরা আরো সম্পৃক্ত হতে পারি। নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রকার এবং ব্যবসায়ের মডেল খুব একটা পরিচিত নয় এবং স্থানীয় সরকার ও ব্যাংকগুলোও পর্যাপ্ত নয়। তবে কমনওয়েলথের মতো বিশ্বব্যাপী প্লাটফর্ম এবং সংস্থার মাধ্যমে এই বিষয়গুলো মোকাবেলা করা যেতে পারে।

জার্মানি এবং বিএমডব্লিউর বৈদ্যুতিক যানবাহনের জন্য অবকাঠামো গড়ার বিষয়টি তুলে ধরে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, সবুজ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানির ক্ষেত্রে একটি সহজ রূপান্তর প্রক্রিয়ার জন্য দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সরকারি বা বেসরকারি প্লাটফর্মগুলোতে মালামাল ও দক্ষতা বা জ্ঞান প্রেরণ কঠিন হয়ে দাঁড়াবে।

এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি ছাড়াও, আরইইইপির মহাপরিচালক ম্যাগডালেনা কাউনেভা, ড. টনি জুনিপার (সিবিই, বোর্ড সদস্য, কুল আর্থ) এবং যুক্তরাজ্যের জলবায়ু বিনিয়োগ এলএলপি ম্যাককুয়েরি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রিচার্ড আবেলসহ অন্যান্য বড় জ্বালানি বিশেষজ্ঞরা ওয়েবিনারে অংশ নেন। 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com