বৃহস্পতিবার ● ৬ আগস্ট ২০২০ ● ২২ শ্রাবণ ১৪২৭ ● ১৫ জিলহজ্জ ১৪৪১
রিজেন্ট হাসপাতালের অফিস সিলগালা: বাতিল হতে পারে চুক্তি
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৭ জুলাই, ২০২০, ৬:১৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

রিজেন্ট হাসপাতালের অফিস সিলগালা: বাতিল হতে পারে চুক্তি

রিজেন্ট হাসপাতালের অফিস সিলগালা: বাতিল হতে পারে চুক্তি

মেয়াদোর্ত্তীণ লাইসেন্সসহ নানা ধরণের প্রতারণা ও অনিয়মের অভিযোগের রিজেন্ট হাসপাতালের সঙ্গে করা সমঝোতা চুক্তি বাতিল করতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। একইসঙ্গে এই হাসপাতালের অনুমোদনও বাতিল করা হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে,লাইসেন্সের মেয়াদ না থাকা, ভুয়া করোনা টেস্ট ও অন্যান্য অভিযোগে রাজধানীর রিজেন্ট হাসপাতালের অফিস সিলগালা করা হয়েছে। কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড এই হাসপাতালে রোগীদের চিকিৎসা চলছে। এজন্য হাসপাতালটি সিলগালা করা হয়নি। মঙ্গলবার (৭ জুলাই) দুপুরে র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শফিউল্লাহ বুলবুল এই তথ্য জানান।

শফিউল্লাহ বুলবুল বলেন, আমরা হাসপাতালটির মিরপুর ও উত্তরা শাখায় অভিযান চালিয়েছি। উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরে হাসপাতালটির কাছের একটি ভবনের দোতলা ও তৃতীয় তলায় তাদের অফিস। আমরা সেখান থেকে ডকুমেন্টস উদ্ধার করেছি। তাদের লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ। এছাড়া টেস্ট না করে করোনা রোগীদের পজিটিভ ও নেগেটিভ রেজাল্ট দেওয়া হতো। এসব কারণে হাসপাতালটির অফিস সিলগালা করা হয়েছে। তবে হাসপাতালে রোগী রয়েছে। তাই আমরা হাসপাতাল বন্ধ করিনি। সেখানে চিকিৎসা চলবে। অনিয়ম ও প্রতারণার জন্য কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম বলেন, হাসপাতালটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাসুদসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

সোমবার বিকাল থেকে র‌্যাব রাজধানীর উত্তরা ও মিরপুরের কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায়। অভিযানে র‌্যাব জাল সনদ দেওয়ার প্রমাণ পায়। এছাড়া হাসপাতালটির লাইসেন্সের মেয়াদ ছয় মাস আগেই শেষ হয়ে যায় বলে প্রমাণ পেয়েছে র‌্যাব। রোগীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার নির্দেশ না থাকলেও রিজেন্টে করোনা টেস্ট এবং ভর্তি রোগীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে আসা নানারকম অনিয়মের অভিযোগে প্রেক্ষিতে এই সমঝোতা চুক্তি বাতিল করা হচ্ছে। গত ২১ মার্চ স্বাস্থ্য অধিদফতরের সঙ্গে চুক্তিতে রিজেন্ট হাসপাতালের দুটি শাখায় ৫০টি শয্যাকে আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে ব্যবহার করার চুক্তি হয়। একই সঙ্গে এই হাসপাতালের ৩টি আইসিইউ বেডকে কোভিড-১৯ শনাক্ত হওয়া ঝুঁকিপূর্ণ রোগীর চিকিৎসা দেওয়ার জন্য ব্যবহার হবে বলেও চুক্তিতে উল্লেখ করা হয়। একই সঙ্গে এই হাসপাতালের তিনটি অ্যাম্বুলেন্স ব্যবহার করার কথাও উল্লেখ করা হয় চুক্তিতে।

কিন্তু প্রথম থেকেই হাসপাতালে টাকা নিয়ে চিকিৎসাসেবা দিয়ে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে রিজেন্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও নানা রকমের অনিয়মের অভিযোগে হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদকে বারবার বলা হয়। একইসঙ্গে যদি টাকা নিয়েই চিকিৎসা করতে হয় তবে সমঝোতা চুক্তি পরিবর্তন করার কথাও বলা হয়। কিন্তু প্রতিবারই নানারকম অজুহাতে সেটি করতে রাজি হয়নি রিজেন্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এমন অবস্থায় রিজেন্টের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।খুব দ্রুতই এই চুক্তি বাতিল বিষয়ে গণমাধ্যমে জানানো হবে বলেও জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের এই নির্ভরযোগ্য সূত্র।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com