মঙ্গলবার ● ১১ আগস্ট ২০২০ ● ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭ ● ২০ জিলহজ্জ ১৪৪১
স্বাস্থ্যখাতে অর্থছাড় দেয়ার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয়বার ভাবেননি: ইকবাল আর্সেনাল
সিনিয়র প্রতিবেদক
প্রকাশ: সোমবার, ৬ জুলাই, ২০২০, ১১:০৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

স্বাস্থ্যখাতে অর্থছাড় দেয়ার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয়বার ভাবেননি: ইকবাল আর্সেনাল

স্বাস্থ্যখাতে অর্থছাড় দেয়ার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয়বার ভাবেননি: ইকবাল আর্সেনাল

মরণব্যাধি করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় অধিনায়ক হিসাবে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে আমাদেরও উচিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং স্বাস্থ্যখাতের সবাই সহযোগিতা করা। তাহলেই এই করোনাকে মোকাবিলা করে দেশের অর্থনীতিতে আরো এগিয়ে নেয়া সম্ভব হবে। এছাড়া করোনা পরবর্তী সময়ে আমাদের যে সুযোগ আসছে তা কাজে লাগাতে হবে। 

সোমবার দৈনিক ভোরের পাতার নিয়মিত আয়োজন ভোরের পাতা সংলাপে এসব কথা বলেন আলোচকরা। আলোচনায় অংশ নেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম এবং স্বাধীনতা চিকিৎসা পরিষদ (স্বাচিপ)’র সভাপতি এম ইকবাল আর্সেনাল। দৈনিক ভোরের পাতার সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসানের নির্দেশনা ও পরিকল্পনায় অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন সাবেক তথ্য সচিব নাসির উদ্দিন। 

ইকবাল আর্সেনাল বলেন, একটা জিনিস বলা যায়, আমাদের প্রধানমন্ত্রী যতক্ষণ না পর্যন্ত সরাসরি হস্তক্ষেপ করলেন, ততক্ষণ পর্যন্ত চিকিৎসা সেবায় যারা জড়িত ছিলেন তারা হতম্বভ ছিলেন। তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টা যখন প্রধানমন্ত্রী নিশ্চিত করলেন, তখন তারা মনোবল ফিরে পেলেন এবং কাজ শুরু করলেন। স্বাস্থ্যসেবায় আমাদের প্রধানমন্ত্রীর যে অনুপ্রেরণা সেটা আমাদের জন্য অনেক কাজে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই তৃণমূল পর্যায়ে কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় হাসপাতালও নির্মাণ করেছেন। একটা কথা বলতেই হয়, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে গতিতে চলছেন, অন্যরা তা করছেন না। আমাদের উচিত ছিল, তার কাছে পরিকল্পনা নিয়ে যাওয়ার। কিন্তু আমরা সেখানে যেতে পারি নাই। শুরুতেই প্রধানমন্ত্রীকে ভুল তথ্যও দেয়া হয়েছিল। স্বাস্থ্যখাতে অর্থছাড় দেয়ার বিষয়ে তিনি দ্বিতীয়বার ভাবেননি। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই ৫ হাজারের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। করোনার ভ্যাকসিন আনার জন্য তিনি চীন সরকারের সাথেও আলোচনা করেছেন। চীন সরকারও রাজি হয়েছে প্রথমেই আমাদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। এছাড়া করোনার সময় ঘূর্ণিঝড় আম্পান নিয়ে খুবই ভয়ে ছিলাম। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে পরিস্থিতি সামাল দেয়া হয়েছিল। করোনায় যে ক্ষতি হয়েছিল, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে তা পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। জীবন ও জীবিকার ক্ষেত্রেও সমন্বয় করছেন প্রধানমন্ত্রী। আমি করোনাকালে গণমাধ্যম যেভাবে ভূমিকা রাখছে স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে তা অবশ্যই প্রশংসনীয়। আমি শেষ কথা হিসাবে বলতে চাই, যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তারা বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নিন। শুধুমাত্র শ্বাসকষ্ট বাড়লেই হাসপাতালে আসুন। মাস্ক পরিধান করা এবং হাত বারবার ধোয়া, এমনকি শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখলেই আমরা করোনাকে মোকাবিলা করতে পারবো। 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com