বৃহস্পতিবার ● ৬ আগস্ট ২০২০ ● ২২ শ্রাবণ ১৪২৭ ● ১৫ জিলহজ্জ ১৪৪১
পরবর্তী প্রজন্ম যেন আমাদের কাজ ভবিষ্যতে দেখতে পারে, সে লক্ষ্যেই কাজ করছি: মীর ফখরুদ্দীন ছোটন
সিনিয়র প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ৪ জুলাই, ২০২০, ১০:৩০ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

পরবর্তী প্রজন্ম যেন আমাদের কাজ ভবিষ্যতে দেখতে পারে, সে লক্ষ্যেই কাজ করছি: মীর ফখরুদ্দীন ছোটন

পরবর্তী প্রজন্ম যেন আমাদের কাজ ভবিষ্যতে দেখতে পারে, সে লক্ষ্যেই কাজ করছি: মীর ফখরুদ্দীন ছোটন

আমাদের দেশের অপসংস্কৃতি রোধ করতে যে সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে তা ভাঙতে হলে শিল্পী সমাজকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কিন্তু এই সিন্ডিকেটের অনেকেই আবার সরাসরি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তাই এ সিন্ডিকেট ভাঙা খুবই কষ্টসাধ্য কাজ। আমাদের সমাজে শুধু যৌন আবেদনকে কাজে লাগিয়ে অনেকেই পারফারমার তৈরি করছে। এতে করে সাংস্কৃতিকভাবে আমাদের ইমেজ নষ্ট হচ্ছে বলে মনে করেন আলোচকরা। দৈনিক ভোরের পাতার নিয়মিত আয়োজন ভোরের পাতা সংলাপে এসব কথা বলেন আলোচকরা।

শনিবার (৪ জুন) ভোরের পাতা সংলাপে আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নজরুল সংগীত শিল্পী ও নজরুল গবেষক সুজিত মোস্তফা, টেলিপ্যাবের আর্কাইভ সেক্রটারি মীর ফখরুদ্দীন ছোটন এবং অভিনেত্রী ফারজানা ছবি। দৈনিক ভোরের পাতার সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসানের পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক ছিলেন শামীমা তুষ্টি।

মীর ফখরুদ্দীন ছোটন বলেন, এমন একটা জীবনে আমাদের অভ্যস্ত হতে হবে, সেটা কেউ কল্পনাও করতে পারেননি। মার্চের ১৭ তারিখ শেষ শুটিং করেছি। এরপর থেকে অধিকাংশ সময়ই ঘরেই থাকতে হবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক দূরত্ব রক্ষা করে শুটিং চালু করার কথা বলা হলেও এটা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। এই চার মাসে মাত্র আমি ৬ নি অফিসে গিয়েছি। এই সময়ে কোনোদিন বাজার করতেও যাইনি। আমি বলতে চাই, সবাই আমরা দুঃসময় পার করছি। আমারে শিল্পীদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। 

তিনি আরো বলেন, আমি নিজেই প্রথম দিকে মানসিকভাবে শক্তি হারিয়ে ফেলেছিলাম। আমার চেহারা নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। টেনশন করতাম খুব। তখন আমার সন্তানরা টেলিভিশনে নিউজ দেখা বন্ধ করে দিয়েছিল। এরপর আমি সিনেমা দেখতে শুরু করলাম। এমনকি বাচ্চাদের কার্টুন দেখতে শুরু করলাম। এরপর আস্তে আস্তে মানসিক শক্তি ফিরে পেয়েছি। আমাদের সংগঠনের বয়স মাত্র এক বছর। আমরা আর্কাইভ তৈরি করার জন্য কাজ শুরু করেছি। আশা করছি, দুই মাসের মধ্যেই ভালো একটা ফলাফল দিতে পারবো। পরবর্তী প্রজন্ম আমারে কাজ যেন দেখতে পারে, সে লক্ষ্যেই কাজ করছি। অনেক বড় সিন্ডিকেটের হাতেই চলে গেছে এখন নাটকের কাজ। অল্প বাজেট দিয়ে নাটক বানানোর এই পক্রিয়া আমাদের ভাঙতে হবে। আমাদের শিল্পী সমাজকে ঐক্যবদ্ধভাবে সেই সিন্ডিকেট ভাঙতে হবে। 

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com