সোমবার ● ১০ আগস্ট ২০২০ ● ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭ ● ১৯ জিলহজ্জ ১৪৪১
কাঁটাবনে বন্দি পশু-পাখিরা কাঁদছে শুনে ছুটে গেলেন মন্ত্রী
ভোরের পাতা ডেস্ক
প্রকাশ: রোববার, ৫ এপ্রিল, ২০২০, ১১:১৮ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

কাঁটাবনে বন্দি পশু-পাখিরা কাঁদছে শুনে ছুটে গেলেন মন্ত্রী

কাঁটাবনে বন্দি পশু-পাখিরা কাঁদছে শুনে ছুটে গেলেন মন্ত্রী

রাজধানীর কাঁটাবনে বিভিন্ন দোকানে থাকা পাখি ও প্রাণির প্রতি কোন ধরনের অবহেলা বা নির্দয় আচরণ যেন না হয় সেজন্য দোকান মালিকদের প্রতি কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। 

আজ রবিবার বিকালে কাঁটাবনে পাখি ও বিভিন্ন প্রাণির দোকান সরেজমিন পরিদর্শন করে তিনি এ নির্দেশনা দেন। 

এ প্রসঙ্গে শ ম রেজাউল করিম জানান, ‘কাঁটাবনে পাখি ও বিভিন্ন প্রাণির দোকান মালিকরা দোকান বন্ধ করে চলে গেছেন-পাখি ও প্রাণিগুলো কান্না করছে ‘এমন একটি সংবাদ শোনার পর আজ সরেজমিনে পরিদর্শন করি। সেখানে গিয়ে অধিকাংশ দোকান অর্ধ খোলা পাওয়া যায়। তাদের পর্যাপ্ত খাদ্য দেয়া আছে কিনা সে বিষয়ে খোঁজ-খবর নেই। খাবারের সংকট নেই, তবে যে পরিমাণ আলো বাতাস থাকা প্রয়োজন সেটা কম ছিল। বিভিন্ন পাখি ও প্রাণি যেন খাদ্যের কষ্ট না হয় এবং তাদের প্রতি যেন নির্দয় আচরণ যেন না করা হয় সে নির্দেশ দেই। পাখি ছেড়ে দেয়ার কোন ঘটনা ঘটেনি।

এক ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছেন সাংবাদিক অঞ্জন রায়।

অঞ্জন রায় তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ধন্যবাদ মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম ভাই, আপনকে সন্ধ্যা ৭টা ৪৯ মিনিটে ফোন করে জানালাম- ‘লকডাউনের মধ্যে বদ্ধদোকানের ভেতর থেকে কান্নার শব্দ আসছে ঢাকায় শখের পশু-পাখির সবচেয়ে বড় বাজার কাঁটাবনে,’ এমন সংবাদের কথা। ৭টা ৫৮ মিনিটে আপনার ফোন পেলাম- অঞ্জন দা, আমি কাঁটাবনে। এখানে উপস্থিত বিভিন্ন পশুপাখির দোকানগুলোর লোকেদের বলে দিয়েছি– প্রতিটি পশু, পাখি আর মাছের খাবার দিতে যেন অনিয়ম না হয়। আর একই সাথে এই বিষয়ে একটা সরকারী চিঠিও কাল দিয়ে দেব।

তিনি আরো লিখেছেন, একজন নগন্য সংবাদকর্মীর ফোন পাওয়ামাত্র কয়েক মিনিটের মাঝে ছুটে যাওয়া-ব্যবস্থা নেয়া। সত্যিই মুগ্ধ হলাম রেজা ভাই।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




আরও সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com