শুক্রবার ● ১০ জুলাই ২০২০ ● ২৬ আষাঢ় ১৪২৭ ● ১৮ জিলক্বদ ১৪৪১
করোনা: বিপাকে রাজধানীর পরিবহন শ্রমিকরা
ভোরের পাতা ডেস্ক
প্রকাশ: রোববার, ২২ মার্চ, ২০২০, ৮:২৭ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

করোনা: বিপাকে রাজধানীর পরিবহন শ্রমিকরা

করোনা: বিপাকে রাজধানীর পরিবহন শ্রমিকরা

করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ঢাকাসহ সারা দেশে স্থবিরতা বিরাজ করছে। জ্যাম আর ঘনবসতিপূর্ণ নগরী ঢাকা যেন রূপ নিয়েছে অচেনা নগরীতে। কর্মদিবসের প্রথম দিন রোববার সকাল থেকেই রাস্তাঘাটে লোকজনের চলাচল ছিলো সীমিত। রিক্সা, সিএনজি বা অন্যান্য যানবাহনের চলাচলও ছিলো বেশ কম। ফলে রাজধানীর শ্রমজীবী মানুষেরা অলস সময় পার করছেন।

পরিবহন শ্রমিকরা জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না সাধারণ মানুষ। ফলে তাদের যাত্রী সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে কমে গেছে। ফলে অলস সময় পার করতে হচ্ছে। আয় রোজগারও কমেছে।

ধানমণ্ডির সায়েন্সল্যাব, কলাবাগান, সিটি কলেজ, জিগাতলা সেন্ট্রাল রোড ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন মোড়ে যাত্রীর অভাবে বসে আছেন রিক্সা চলকরা। কোথাও কোথাও একইভাবে সিএনজি চালকরাও অলস সময় পার করছেন। এ্যাপ ভিত্তিক রাইডিং শেয়ার উবার কিংবা পাঠাও চালকরাও বসে আছেন যাত্রীর আশায়। কেউ কেউ আড্ডা দিচ্ছেন চায়ের দোকানে।

ধানমণ্ডি-৭ নম্বরে আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেলের সামনে যাত্রীর আশায় রিক্সার বসে সময় পার করছেন রিকশাচালক আহাদ মিয়া। তিনি জানান, দিনের বেশিরভাগ সময়ই অলস সময় পার করেছেন তিনি। যাত্রীর সংখ্যা অন্য দিনের তুলনায় খুবই কম। যাত্রীর আশায় মেডিকেলের সামনে এসেছেন তিনি।


পাশেই চায়ের টোং দোকানের সামনে বসে ছিলেন সিএনজি চালক মোহাম্মদ আবুল কাশেম। তিনি বলেন, সারাদিনে এখনো পর্যন্ত সিএনজির জমা টাকা পর্যন্ত ওঠেনি। রাস্তায় যাত্রী নেই, আয় হবে কিভাবে?

এদিকে রাস্তায় গণপরিবহনের সংখ্যাও তুলনামূলকভাবে কম। আজিমপুর থেকে নীলক্ষেত মোড় পর্যন্ত রাস্তার ধারে পার্কিংরত বাসের সারি। রাস্তায় যেসব বাস চলছে সেগুলোতে যাত্রী সংখ্যা নিতান্তই কম। সন্ধ্যায় যেসব বাসে ভিড় ঠেলে যাত্রীরা উঠতে পারতেন না, সেসব বাসের আসন ফাঁকা থেকে যাচ্ছে।

আজিমপুরের ভিআইপি ২৭ নম্বর বাসের চালক মোফিজুল ইসলাম বলেন, রাস্তায় যাত্রীর সংখ্যা খুবই কম। এই অবস্থায় গাড়ি বের করলে লোকসান গুনতে হবে। খুবই বিপদের মধ্যে আছি।

এদিকে দেশে নতুন করে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে শনাক্ত করা হয়েছে। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা রোববার এ তথ্য জানান। আইইডিসিআরের হিসেবে এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ২৭। আর এযাবৎ মৃত্যু হয়েছে দুজনের।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




আরও সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: vorerpata24@gmail.com news@dailyvorerpata.com