বৃহস্পতিবার ● ২৮ মে ২০২০ ● ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ ● ৪ শওয়াল ১৪৪১
সোনারগাঁয়ে চৈতি কম্পোজিটের শ্রমিদের মহাসড়ক অবরোধ
সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০১৯, ৬:৪৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

সোনারগাঁয়ে চৈতি কম্পোজিটের শ্রমিদের মহাসড়ক অবরোধ

সোনারগাঁয়ে চৈতি কম্পোজিটের শ্রমিদের মহাসড়ক অবরোধ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় উপজেলার টিপুরদী এলাকায় অবস্থিত চৈতি গার্মেন্সে রিনা আক্তার (২৮) নামে এক শ্রমিক নিহত হওয়ার খবরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে গাড়ী ভাংচুর করেছে শ্রমিকরা। এসময় শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে পুলিশ সহ কমপক্ষে অর্ধশত আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

চৈতি গার্মেন্সে কর্মরত সুইং অপারেটর রুমা আক্তার ও লাইন ম্যান পংকজ জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে কারখানার মূল ভবনের তিন তলায় ১২ নং লাইনে সুইং অপারেটর হিসেবে কাজ করছিলেন রিনা আক্তার নামে এক শ্রমিক। তাকে ওই লাইনের ইনচার্জ জামাল সহ কয়েক জন নির্যাতন করে হাত পা বেধে বাথরুমে ফেলে রাখে। পরে অন্য শ্রমিক বাথরুমে গেলে বিষয়টি দেখে নাজমা আক্তার সহ দুজন শ্রমিক জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এদিকে ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর কারখানার কর্তৃপক্ষ দুপুর ১টায় কারখানা বিরতি দেওয়ার কথা থাকলে নির্ধারিত সময়ের ৩০ মিনিট আগেই বিরতি দিয়ে দেন।
সোনারগাঁয়ে চৈতি কম্পোজিটের শ্রমিদের মহাসড়ক অবরোধ

সোনারগাঁয়ে চৈতি কম্পোজিটের শ্রমিদের মহাসড়ক অবরোধ


পরে কারখানা কর্তৃপক্ষ দ্রুত রিনা আক্তার নামে হাত পা বাধা শ্রমিককে গাড়ীতে করে কারখানা থেকে বের করে নেয় এবং পরের গাড়ীতে আহত দুই শ্রমিককে গাড়ী দিয়ে বের করার সময় শ্রমিকরা গাড়ী ভাংচুর করে আহত শ্রমিকদের উদ্ধার করে এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। ফলে মহাসড়কের ৯ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এক ঘন্টা যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানা পুলিশ, কাচঁপুর হাইওয়ে পুলিশ, কাচঁপুর শিল্প পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া চেষ্টা করলে পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ রাস্থা থেকে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে ৪১ রাউন্ড রাবার বুলেট ১০ রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেব করে। সংঘর্ষে পুলিশ, সাংবাদিক ও শ্রমিক সহ কমপক্ষে অর্ধশত আহত হয়। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কারখনার শ্রমিক হালিম মিয়া জানান, চৈতি গার্মেন্স কখনও নির্ধারিত সময়ের পূর্বে বিরতি দেয়না। কিন্তু বৃহস্পতিবার ৩০ মিনিট আগেই দুপুরের খাবারের বিরতি দেন কর্তৃপক্ষ।

কারখানার উপ মহা ব্যবস্থাপক বদরুল আলম জানান, কারখানায় একজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছে। গুজবে শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করে ভাংচুর চালিয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে কারখানা ছুটি ঘোষনা করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ) অঞ্চল খোরশেদ আলম জানান, কারখানায় শ্রমিক নিহত হওয়ার খবরে শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করেছে। শ্রমিকদের লাঠিচার্জ করে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক করা হয়েছে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]