বুধবার ● ৩ জুন ২০২০ ● ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ ● ১০ শওয়াল ১৪৪১
ইঞ্জিন সংকটে লালমনি এক্সপ্রেস: যাত্রী ভোগান্তি চরমে
লালমনিরহাট প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০১৯, ৫:১০ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ইঞ্জিন সংকটে লালমনি এক্সপ্রেস: যাত্রী ভোগান্তি চরমে

ইঞ্জিন সংকটে লালমনি এক্সপ্রেস: যাত্রী ভোগান্তি চরমে

রেলপথে লালমনিরহাট থেকে সরাসরি ঢাকা যাওয়ার একমাত্র যানবাহন হলো লালমনি এক্সপ্রেস।লালমনিরহাট থেকে  ৪৪৬ কিলোমিটার দুরত্বের ঢাকার কমলাপুরের উদ্যেশ্যে ট্রেনটি সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে লালমনিরহাট থেকে যাত্রী নিয়ে ১৮টি ষ্টেশনে যাত্রা বিরতি দিয়ে রাত ৯টা ১০মিনিটে  ঢাকার কমলাপুর ষ্টেশনে পৌঁছার কথা।কিন্তু ট্রেনটির ইঞ্জিন সংকটের কারণে সঠিক সময়ে ছাড়তে পারছেনা।এমনকি কোন সময় ছাড়বে তারও কোন ঠিক নেই।ফলে ঢাকাগামী যাত্রীরা পড়েছে বিপাকে।এদিকে যাত্রী বহনের জন্য ১৪ কামরা বিশিষ্ট দুটি ট্রেন থাকলেও ইঞ্জিন রয়েছে একটি।ফলে  টিকেট কেটে ষ্টেশনে এসে ঘন্টার পর ঘন্টা যাত্রীরা বসে থাকে।অপেক্ষায় থাকে কখন ঢাকা থেকে অপর ট্রেনটি ফেরত আসবে।দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করায় ভোগান্তিতে পড়েছে বয়স্ক ও শিশু যাত্রীরা।

এদিকে লালমনিরহাট থেকে ঢাকা যাওয়ার দিনের বেলায় কোন বাস না থাকায় ঢাকাগামী যাত্রীগন রয়েছে চরম বিপাকে।জরুরী প্রয়োজনে ঢাকা যাওয়া দু:সাধ্য হয়ে ওঠেছে। দিনের বেলা লালমনির এক্সপ্রেস ট্রেনটি থাকলেও সেটি সঠিক সময়ে ছাড়তে ও গন্তব্যে পৌঁছতে পারছেনা।দেখা গেছে ইঞ্জিন সংকটের কারণে ট্রেনটি গভীর রাতে কমলাপুরে পৌঁছে।এতে অনেক যাত্রীই নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে।নিরাপদ ভ্রমণের জন্য যাত্রীরা রেলকেই বেছে নেয় প্রথম।অথচ সেই ট্রেনেরই বেহাল দশা।

নিয়মিত ট্রেন যাত্রী মনিরুজ্জামান মনির,হেলেনা আক্তার,আফজাল হোসেন অভিযোগ করে বলেন, সকাল সাড়ে দশটায় ট্রেন ছাড়ার কথা কিন্তু প্রতিদিন ট্রেনটি ছাড়তে দুপুর দেড়টা দুইটা বাজে।একদিকে আমাদের ভোগান্তি অপরদিকে ঢাকা পৌঁছে অনেক রাতে ফলে যাত্রীদের বেশ ভোগান্তিতে পড়তে হয়।অথচ আর একটি ইঞ্জিন দিলে এ সংকট কেটে যায়।
ট্রেনটির ১ম শ্রেনির যাত্রী শায়লা পারভীন জানান,আরামদায়ক ও নিরাপদ ভ্রমণের জন্য ট্রেনে ঢাকা যাতায়াত করে থাকি।কিন্ত বর্তমানে ট্রেনটি একেতো বিলম্বে ছাড়ে অপরদিকে যাত্রীদের জন্য অপেক্ষমান কক্ষ বা ট্রেনের কামরা কোনটিই ভালো না।অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে দীর্ঘসময় যাত্রা করতে হয়।এতে করে শিশু ও বয়স্করা অসুস্থ হয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট রেলওয়ে ষ্টেশন মাস্টার নিজাম উদ্দিন বলেন,লালমনিরএক্সপ্রেসের একটি ইঞ্জিন নষ্ট হওয়ার ফলে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।নতুন ইঞ্জিন না আসা পর্যন্ত এ সমস্যা দূর হবেনা।

লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় যান্ত্রিক প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম জানান,রেলের ইঞ্জিনগুলো অনেক পুরনো হওয়ায় প্রায় নস্ট থাকে।এজন্য ট্রেনের সিডিউল বির্পযয় ঘটছে।নতুন ইঞ্জিনের জন্য চাহিদা প্রেরণ করা হয়েছে।অবিলম্বে তা পাওয়া যাবে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »




আরও সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক ভোরেরপাতা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৮১৮৯১৪১, ৮১৮৯১৪২, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৮১৮৯১৪৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮১৮৯১৪৩, ইমেইল: [email protected] [email protected]