রোববার ২৩ জুন ২০২৪ ৯ আষাঢ় ১৪৩১

শিরোনাম: সংগ্রাম, সাফল্য ও সংস্কৃতির বর্ণিল প্রতিভাসের নাম আ.লীগ: কাদের    বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা    আ.লীগের প্রতিষ্ঠার প্লাটিনাম জয়ন্তীর ব্যানারে স্থান পেল জয় ও পুতুলের ছবি    পবিত্র কাবাঘরের চাবি সংরক্ষক ড. শায়খ সালেহ আল শাইবা ইন্তেকাল করেছেন    রাসেল’স ভাইপার নিয়ে জনগণকে আতংকিত না হওয়ার আহ্বান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর    ভূমি নিয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স : ভূমিমন্ত্রী    বিশ্বব্যাংক থেকে ৯০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ পেলো বাংলাদেশ   
https://www.dailyvorerpata.com/ad/Inner Body.gif
মাদারীপুরে সম্বন্ধীর সাথে বোন জামাইয়ের অভিনব প্রতারণা
মাদারীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ২৫ মে, ২০২৪, ৫:৫৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

বিদেশে গিয়ে অর্থনৈতিক সমস্যা হলে বোন জামাইয়ের হাতে তুলে দেয়া হয় সাড়ে ৪ লাখ টাকা। বিদেশ থেকে দেশে ফিরে এই টাকার বিনিময়ে ১০ শতাংশ জমি লিখে দেবার কথা হয় সম্বন্ধীর নামে। স্থানীয় গণমান্যদের উপস্থিতিতেই দেয়া হয় টাকা ও মোবাইল ফোনে কথাবার্তা চূড়ান্ত হয়।  কিন্তু সম্প্রতি দেশে ফিরে বোনজামাই টালবাহানা শুরু করে। জমি লিখে দেয়া তো দূরের কথা, ফেরত দিচ্ছে না টাকাও। বোন জামাইয়ের এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ সম্বন্ধীর পরিবার। আর এমন কর্মকান্ডে তোলপাড় এলাকাজুড়ে। যদিও টাকা নেয়ার কথা অকপটে স্বীকার করেছে বোন জামাই।

জানা যায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের মধ্য পেয়ারপুর গ্রামের শাজাহান গড়িয়ার ছেলে ইতালী প্রবাসী শহিদুল ইসলাম গড়িয়া একই গ্রামের করিম চাপরাশীর ছেলে দক্ষিন আফ্রিকা প্রবাসী মনির চাপরাশীর পরিবারকে হাতে দেন সাড়ে ৪ লাখ টাকা। ২০২১ সালের মার্চে এই টাকা স্থানীয় গণমান্যদের উপস্থিতিতেই দেয়া হয়। তখন মোবাইল ফোনে মনিরের সাথে কথা হয়, টাকার বিনিময়ে দেশে ফিরে লিখে দিবেন ১০ শতাংশ জমি। টাকা লেনদেনের সময় শহিদুলের বোন ও মনিরের স্ত্রী রোকসানা বেগম রূপাও উপস্থিত ছিলেন। সম্প্রতি দক্ষিন আফ্রিকা থেকে দেশে আসেন মনির। শহিদুলের পরিবারের নামে জমি লিখে দিতে বললে মনির টানবাহানা শুরু করেন। টাকা ফেতর চাইলেও ঘুরানোর অভিযোগ ওঠে মনিরের বিরুদ্ধে। নায্য বিচার ও পাওনা অর্থ ফেরতের জন্য সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন শহিদুলের পরিবার।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, সাড়ে ৪ লাখ টাকার বিনিময়ে যে জমি লিখে দেয়ার কথা, সেই জমি তিনবছর আগে দখলে নিয়ে নেয় শহিদুলের পরিবার। জমিতে চাষাবাদ শুরু করেন শহিদুলের পরিবার। কিন্তু দেশে ফিরে মনির জমি লিখে না দেয়ায় হতাশ শহিদুলের পরিবার। ক্ষুব্ধ এলাকাবাসীও।



শহিদুলের স্ত্রী আয়শা আক্তার বলেন, আমার স্বামী ইতালী থাকেন। তার পাঠানো সাড়ে ৪ লাখ টাকা তুলে দেই রূপার শ^শুরবাড়ির লোকজনের হাতে। ঘটনার সময় রূপাও উপস্থিত ছিলো। কথা ছিল, টাকার বিনিময়ে ১০ শতাংশ জমি লিখে দিবে, কিন্তু মনির দেশে ফিরে জমি লিখে দেয়া তো দূরের কথা, টাকাও ফেরত দিচ্ছে না। আমরা তিন বছর আগে সাড়ে ৪ লাখ টাকা দিয়েছি। আত্মীয়ের মধ্যে এমন অভিনব প্রতারণা করবে বুঝতে পারিনি।

অভিযুক্ত মনির চাপরাশী বলেন, আমি সাড়ে ৪ লাখ টাকা নিয়েছি। সেই টাকা আমার শাশুড়ি মঈফুল বেগমের মাধ্যমে ফেরত দিয়ে দিবো। এটা নিয়ে আপনাদের কাছে অভিযোগ দেয়ার কি আছে, এটা নিজেদের পারিবারিক ব্যাপার।

পেয়ারপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সবুর খান বলেন, বিপদে পড়ে সম্বন্ধীর কাছ থেকে সাড়ে ৪ লাখ টাকা নেয় মনির। কথা ছিল দেশে ফিরে টাকার বিনিময়ে জমি লিখে দিবে। এটা নিয়ে এলাকায় বেশ কয়েকবার মীমাংসার জন্য বসা হয়েছিল। কিন্তু মনির কোন অবস্থাতেই জমি লিখে দিচ্ছে না। এমন কি টাকাও ফেরত দিচ্ছে না। আমরা স্থানীয় লোকজন চেষ্টা করে ব্যর্থ। পরে শহিদুলকে বলে দিয়েছে, এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএইচএম সালাউদ্দিন বলেন, বোন জামাইয়ের প্রতারনার কোন অভিযোগ থানায় এখনো আসেনি। টাকা নেয়ার কোন সাক্ষি-প্রমান থাকলে ভুক্তভোগীর আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ রয়েছে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
http://www.dailyvorerpata.com/ad/Vorer-pata-23-12-23.gif
http://www.dailyvorerpata.com/ad/bb.jpg
http://www.dailyvorerpata.com/ad/ADDDDDD.jpg
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক: ড. কাজী এরতেজা হাসান
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
সাউথ ওয়েস্টার্ন মিডিয়া গ্রুপ


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম


©ডেইলি ভোরের পাতা ডটকম

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৯৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫।
ফোন:৮৮-০২-৪১০১০০৮৭, ৪১০১০০৮৬, বিজ্ঞাপন বিভাগ: ৪১০১০০৮৪, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৪১০১০০৮৫
অনলাইন ইমেইল: [email protected] বার্তা ইমেইল:[email protected] বিজ্ঞাপন ইমেইল:[email protected]