প্রধান সংবাদ

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদককে হুমকি দিলেন আ.লীগের প্রতিমন্ত্রী

নরসিংদী সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের  নতুন কমিটি হয়নি : সোহাগ-জাকির

::সিনিয়র প্রতিবেদক::
সারাদেশে আওয়ামী লীগের মধ্য থেকে হাইব্রিড ও অনু্প্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে যখন অভিযান চলছে, এমনকি প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা যেখানে অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন তখন খোদ এক প্রতিমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে জামায়াত ও বিএনপি নেতাদের পৃষ্ঠপোষকতা দেয়ার। নরসংদী সদর আসনের সংসদ সদস্য লে. কর্ণেল (অব.) মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম হীরু (বীর প্রতীক) বর্তমান সরকারের পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। দীর্ঘ ৩৫ বছর পর নরসিংদী সদর থেকে মন্ত্রী হবার পর থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতাদের কোণঠাসা করার মিশনে নামেন। বিষয়টি ‍তৃণমূল আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলের সভানেত্রীকেও জানানো হয়। সর্বশেষ শুক্রবার তিনি নরসিংদী সরকারি কলেজের ছাত্রলীগের সম্মেলনে ছাত্রদলের একজন সক্রিয় কর্মীকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেছেন। যদিও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কেউই সেই কমিটির অনুমোদন দেননি।

শুক্রবারের নরসিংদী সরকারি কলেজের ছাত্রলীগের সম্মেলনে দেয়া ভাষণে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম হিরু, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আহসানুল ইসলাম রিমনের নাম উল্লেখ করে হুমকি দেন। তার কথার বিরুদ্ধে গেলে পুলিশ দিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলেন। এমনকি ছাত্রদলের কর্মী রাব্বির হোসেন অতুলকে ছাত্রলীগের কলেজ শাখার ছাত্রলীগের কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী ঘোষণা করলেই এর বিরোধিতা করেন রিমন। এতে প্রতিমন্ত্রী এতটাই ক্রোধান্বিত হন যে, সম্মেলনের ওই রাতেই রিমনের বাড়ির সামনে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

ছাত্রলীগের কমিটিতে কিভাবে একজন ছাত্রদলের সক্রিয় কর্মী যার বিরুদ্ধে নরসিংদী মডেল থানায় মামলা রয়েছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার নেশা করার ছবি এবং অস্ত্রসহ ছবি রয়েছে তাকে কেন নরসিংদী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক করতে হবে? এমন প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এম সাইফুর রহমান সোহাগ ভোরের পাতাকে বলেন, ছাত্রলীগে কোনো অনুপ্রবেশকারী প্রবেশ করতেই পারবে না। এটা আমাদের সংগঠনের অভিভাবক ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ। জেলা আওয়ামী লীগের নেতা অথবা প্রতিমন্ত্রী কোনোভাবেই ছাত্রলীগের নেতা নির্বাচন করতে পারেন না। তিনি সর্বোচ্চ পরামর্শ দিতে পারেন। নরসিংদী কলেজের বিষয়টি আমি শুনেছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে বিষয়টি সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত কোনো কমিটি ঘোষণা না করারও নির্দেশ দিয়েছেন সাইফুর রহমান সোহাগ।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন বলেন, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আদর্শের বাইরের কেউ ছাত্রলীগের নেতা হতে পারবে না। যদি বিএনপি-জামায়াত, ছাত্রদলের কাউকে কোনো মন্ত্রী, এমপি নেতা বানাতে চেষ্টা করেন তবে সেটা আমরা রুখে দিবো। সে দায়িত্ব আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনাই দিয়েছেন। নরসিংদী জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্ধারণ করবে কারা সরকারি কলেজের নেতা হবেন, কে হবেন না? এখানে জেলা আওয়ামী লীগ পরামর্শ দিতে পারতো, কিন্তু ঘোষণা দেয়ার ক্ষমতা তাদের নেই। নরসিংদী সরকারি কলেজের কোনো কমিটি হয়নি বলেও জানান তিনি। খুব দ্রুতই কেন্দ্র থেকে বিষয়টি সমাধান করে নতুন কমিটি দেয়া হবে বলেও জানান জাকির হোসাইন।

Spread the love
  • 2.4K
    Shares

প্রধান সংবাদ | আরো খবর