আপন জুয়েলার্সের মালিকসহ দু’জনের বিরুদ্ধে পুত্রবধূর গর্ভপাত চেষ্টার মামলা

  • ১২-মার্চ-২০১৯ ০২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদারসহ দুইজনের বিরুদ্ধে শারিরীক-মানসিক নির্যাতন, জোর করে গর্ভপাতের চেষ্টা ও হত্যার হুমকির অভিযোগে তার পুত্রবধূ চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে একটি মামলা করেছেন।

সোমবার (১১ মার্চ) ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে মামলা দায়েরের আবেদন করেন রাজধানীর বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের মামলার প্রধান আসামি ও আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদারের ছেলে সাফাত আহমদের স্ত্রী ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা। এতে আপন রিয়েল স্টেটের উপদেষ্টা মোখলেছুর রহমানকে আসামি করার আবেদন করা হয়েছে।

মামলা দায়েরের পর মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. তোফাজ্জাল হোসেন বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন। আদালত নথি পর্যালোচনা করে পরে আদেশ দেবেন বলে জানিয়েছেন।

বাদীর অভিযোগ, সাফাতকে ডিভোর্স ও গর্ভের সন্তান নষ্ট করতে তার উপর নির্যাতন চালাচ্ছেন তার শ্বশুর। বর্তমানে সে দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা। 

অপরদিকে ফারিয়াকে ভিভোর্স না দিলে সাফাতকে ত্যাজ্যপুত্র করার হুমকিও দিয়েছেন দিলদার।

মামলার এজাহারে বলা হয়, এ মামলার বাদীর সাথে সাফাতের ২০১৫ সালে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে শ্বশুর বাড়ীতেই থাকেন তিনি। বিয়ের পর থেকেই শ্বশুর দিলদার আহমেদ তার ওপর নির্যাতন করে আসছেন।

স্বামীর অনেক অনৈতিক কাজে শ্বশুর উল্টো উৎসাহিত করতেন এবং সহযোগিতা করতেন।

চলতি মাসের ৫ তারিখে রাত আটটার দিকে বাদী ঔষধ ও স্বামীর প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনা কাটার জন্য নিকটস্থ মার্কেটে যান। বাসায় ফেরার পর দিলদার আহমেদ ও মোখলেছুর রহমান মাথায় পিস্তল ঠেকান, চরথাপ্পড় মারেন ও গর্ভপাত করানোর উদ্দেশ্যে তলপেটে লাথি মারার চেষ্টা করেন। তারা স্বর্ণালঙ্কার, নগদ টাকা রেখে এক কাপড়ে বাসা থেকে বের করে দেন।

উল্লেখ্য, বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনার মামলায় বাদীর স্বামী সাফাত আহমেদ প্রধান আসামি। মামলাটিতে বর্তমানে তিনি কারাগারে রয়েছেন।

 

/কে 

Ads
Ads