কিডনি সমস্যা ও ইনফেকশন সারিয়ে দ্রুতই কাদেরের বাইপাস সার্জারি

  • ৫-মার্চ-২০১৯ ০২:৩৭ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের শরীরে ইনফেকশন ও কিডনি সমস্যা রয়েছে। এসব সমস্যা সারিয়ে দ্রুতই তার বাইপাস সার্জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন তার সঙ্গে থাকা চিকিৎসক ডা. আবু নাসার রিজভী।

ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার হালনাগাদ বিষয়াদি মঙ্গলবার (০৫ মার্চ) সিঙ্গাপুর সময় দুপুরে হাসপাতালে ব্রিফ করেন ডা. ফিলিপ কো এর নেতৃত্বাধীন মেডিক্যাল বোর্ড।

ডা. ফিলিপের বক্তব্যের আলোকে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার সর্বশেষ তথ্য মিডিয়ার জন্য জানিয়েছেন তার সঙ্গে থাকা বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রফেসর ডা. আবু নাসার রিজভী। ডা. আবু নাসার রিজভীর বক্তব্যের একটি ভিডিও সাংবাদিকদের কাছে পাঠিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. আবু নাছের।

ডা. আবু নাসার রিজভীর ভিডিওতে শোনা যায়, গতকাল ১১টার সময় (স্থানীয় সময়) মাননীয় মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে হাসপাতালে আনা হয়। হাসপাতালের কার্ডিওলজিস্ট ডা. ফিলিপ কো-এর নেতৃত্বে জরুরি ভিত্তিতে পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। তারা নিবিড় পর্যবেক্ষণ ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে পরবর্তীতে আজ (মঙ্গলবার) সকালে আমাদের সঙ্গে বসেন এবং তার ফিডব্যাক দেন।

‘প্রথমত তারা এপ্রিসিয়েট করেন যে, বাংলাদেশে গত দুই দিনে তাকে (ওবায়দুল কাদের) যে ম্যানেজমেন্ট করা হয়েছে তারা ভেরি এক্সিলেন্ট ম্যানেজমেন্ট। এখন তার অবস্থা মোটামুটি স্ট্যাবল আছে। কিন্তু তার কিডনিতে একটু সমস্যা আছে এবং তার কিছু ইনফেকশন আছে। তারা চিন্তা করছেন আগামী কয়েক দিনের ভেতর এই কিডনি সমস্যা এবং ইনফেকশন কন্ট্রোল করার পরে- দে আর থিংকিং ফর দ্যা বাইপাস সার্জারি। বর্তমানে তার অবস্থা আগের থেকে ক্রমেই উন্নতির দিকে যাচ্ছে। বাকিটা এখন আমরা দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থী। আপনারা সবাই দোয়া করবেন।’

আবু নাছের জানিয়েছেন, ব্রিফিংয়ের সময় উপস্থিত ছিলেন ওবায়দুল কাদেরের সহধর্মিণী ইসরাতুন্নেসা কাদের, সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান, সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী ও নিজাম হাজারী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহে আলম মুরাদ, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম এবং সিঙ্গাপুরস্থ বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতাসহ হাইকমিশনের কর্মকর্তারা।

বুধবার (০৬ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টায় ডা. ফিলিপ আবারও ব্রিফ করবেন জানিয়ে আবু নাছের বলেছেন, সড়ক পরিবহন মন্ত্রীর পরিবার তার সুস্থতার জন্য দেশবাসীর দোয়া চেয়েছেন।

এর আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওবায়দুল কাদেরের এনজিওগ্রাম করা হয়। এতে দেখা যায়, তার হার্টে তিনটি ব্লক।

এনজিওগ্রাম করে দেখা যায়, তার হার্টের প্রধান আর্টারিসহ তিন রক্তনালিতে বড় ধরনের ব্লক রয়েছে। এ ছাড়া আরও কিছু ছোট ছোট ব্লক রয়েছে। তিনটি রক্তনালিতে ব্লকের পরিমাণ যথাক্রমে ১০০ শতাংশ, ৯৯ শতাংশ ও ৮০ শতাংশ। পরে দ্রুততার সঙ্গে বিকল্প পদ্ধতিতে স্টান্টিং করে (রিং পরিয়ে) একটি ব্লক অপসারণ করা হয়।

এ ছাড়া শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক করতে একটি এক্সটার্নাল পেসমেকারও লাগানো হয়। তার হার্টের তিনটি রক্তনালির মধ্যে একটি আগে একসময় হার্ট অ্যাটাকে ১০০ শতাংশ বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। বাকি দুটি রক্তনালির মধ্যে একটি ৮০ শতাংশ বন্ধ।

আর এলএডি (লেফট এন্টেরিয়র ডিসেন্ডিং) নামের যে আর্টারি হার্টের দুই-তৃতীয়াংশে রক্ত সরবরাহ করে, তার ৯৯ শতাংশ ছিল বন্ধ।

ওবায়দুল কাদেরের শরীরে কিডনিসহ অন্যান্য সমস্যা থাকায় বিএসএমএমইউর চিকিৎসকরা ওপেন হার্ট সার্জারির সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি। গত দুদিনে তার অন্যান্য শারীরিক জটিলতা কমে আসায় এবং হৃৎপিণ্ডে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করতে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার ওপেন বাইপাস সার্জারির সিদ্ধান্ত নিলেন।

মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজি বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ড. ফিলিপ কোহের তত্ত্বাবধানে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা চলছে। আইসিইউ ৩০০৮ নম্বর কেবিনে চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের।

সেখানে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে রয়েছেন তার স্ত্রী ইশরাতুন্নেসা কাদের ও বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) নিউরোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. আবু নাসের রিজভী। এ ছাড়া আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে সেখানে অবস্থান করছেন গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ও ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।

সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ দূতাবাস ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার সার্বক্ষণিক তদারকি করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দূতাবাস কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে দলীয় সাধারণ সম্পাদকের চিকিৎসার বিষয়ে সার্বিক খোঁজখবর নিচ্ছেন।

সোমবার এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয় আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে। রাত ৮টা দিকে বিমানবন্দরে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সটি ল্যান্ড করার পরই তাকে নেয়া হয় মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে।

Ads
Ads